A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সক্ষম হলে আরো বড় পরিসরে ট্রানজিট: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী | Probe News

প্রোব নিউজ, চট্টগ্রাম: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, দেশের মহাসড়কসহ অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে সক্ষমতা তৈরির পর বড় পরিসরে ট্রানজিট দেওয়া হবে। এতদিন শুধু ভারত-বাংলাদেশ ট্রানজিট ও ট্রান্সশিপমেন্ট বলে রাজনৈতিক জটিলতার মধ্যে আটকে ফেলা হতো বিষয়টি। কিন্তু এখন বৃহৎ আকারে করা হলে সবাই বুঝতে পারবে কোনো একটি দেশ বা রাষ্ট্রকে আলাদা সুবিধা দেওয়ার জন্য করা হচ্ছে না।
মঙ্গলবার নগরের একটি হোটেলে ‘বাংলাদেশ, চীন, ভারত, মিয়ানমার—বিসিআইএম অর্থনৈতিক করিডোর’ শীর্ষক এক সেমিনারে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এ কথা বলেন।
চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলমের সভাপতিত্বে সেমিনারে বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জুন, ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার সন্দ্বীপ চক্রবর্তী প্রমুখ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির ইনস্টিটিউট অব গভর্নেন্স স্টাডিজের শহীদুল ইসলাম। এতে চেম্বারের পরিচালকেরাও বক্তব্য দেন।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৫ সালে মিয়ানমার এবং ভারত যৌথভাবে আমাদের সেধে গ্যাস দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু বিএনপি সরকার প্রত্যাখ্যান করে। এটি প্রত্যাখ্যান না করলে চট্টগ্রামে গ্যাসের সংকট হতো না। আমরা এখন চেয়েও গ্যাস পাচ্ছি না। তবে আশার কথা, মিয়ানমারের গ্যাসের সরবরাহ বাড়লে আমরাও পেতে পারি।’
লি জুন চট্টগ্রামে চীনা বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষায়িত ইপিজেড বা অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের প্রস্তাব দেন। তিনি বলেন, পরবর্তী পাঁচ বছরে প্রায় পাঁচ বিলিয়ন ডলার বহির্বিশ্বে বিনিয়োগ করবে চীন। আঞ্চলিক সহযোগিতার ভিত্তিতে বাংলাদেশেও এই বিনিয়োগ আসতে পারে।
সন্দীপ চক্রবর্তী বলেন, এই চার দেশের চতুর্পক্ষীয় অর্থনৈতিক অঞ্চল সফল করতে হলে দ্বিপক্ষীয়ভাবে সম্পাদিত চুক্তির আলোকে সড়ক, রেল ও নৌ যোগাযোগ উন্নয়নের বিকল্প নেই।
মাহবুবুল আলম বলেন, সোনাদিয়া গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ ও চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি করে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনের মাধ্যমে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল থেকে মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হতে পারে। পাশাপাশি এসব দেশের সঙ্গে বাণিজ্য ঘাটতি দূর করে বাংলাদেশ অনেক বেশি আর্থিক সুবিধা লাভ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
সেমিনারে বলা হয়, গত বছর ডিসেম্বরে বিসিআইএমের প্রথম যৌথ ওয়ার্কিং কমিটির সভা হয়েছে। আগামী জুনে চট্টগ্রামে হবে পরবর্তী সভা। পরবর্তী বছরের মধ্যে এই অর্থনৈতিক অঞ্চলের একটি কাঠামো দাঁড় করানো যাবে।
প্রোব/মুআ/জাতীয় ২৫.০৩.১৪

২৫ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ২০:১৮:১৪ | ১২:৪২:৪২

জাতীয়

 >  Last ›