A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই এ প্রতিবেদন: জামায়াত | Probe News

প্রোবনিউজ, ঢাকা: দল হিসেবে জামায়াতের বিচারের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের প্রতিবাদ জানিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ জানান দলটির ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমাদ ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য জামায়াতের বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত কল্পকাহিনী রচনা করে জামায়াতকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে সরকারের তদন্তকারী সংস্থা।
তারা বলেন, সরকার তাদের দলীয় আশির্বাদপুষ্ট তদন্তকারী সংস্থার মাধ্যমে ট্রাইব্যুনালের চীফ প্রসিকিউটর বরাবর মিথ্যা, বায়বীয় ও কাল্পনিক তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। তদন্ত প্রতিবেদনে জামায়াতের বিরুদ্ধে যে ৭টি অভিযোগের কথা উল্লেখ করা হয়েছে তার সাথে জামায়াতের কোন সম্পর্ক নেই। এসব অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট ও দূরভিসন্ধিমূলক।
জামায়াতের এই দুই নেতা আরো বলেন, যে আইনের ভিত্তিতে সরকার আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত গঠন করে কথিত মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের মিথ্যা মামলায় জামায়াত নেতৃবৃন্দের বিচারের নামে প্রহসন করছে সেই আইনটি ১৯৭৩ সালে তদানীন্তন পার্লামেন্টে পাশ করা হয়।

ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইমস্ ট্রাইব্যুনাল এ্যাক্ট ১৯৭৩-এ কোন দলের বিরুদ্ধে বিচারের কথা উল্লেখ ছিল না। ২০০৯ সালে এ আইনের সংশোধনের সময়ও কোন দলের বিচারের কথা বলা হয়নি। স্বাধীনতার ৪৩ বছর পর বর্তমান সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্যই আইনের সংশোধন করে সে আইনের ভিত্তিতে জামায়াতকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য এই তদন্ত প্রতিবেদন তৈরি করেছে।
শীর্ষ এই দুই নেতা বলেন, এ সরকার বিরোধী মত প্রকাশের মাধ্যম পত্র-পত্রিকা ও বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের উপর অবৈধ হস্তক্ষেপ করে অনেক পত্রিকা ও টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দিয়েছে। যে দু’একটি বিরোধী মত প্রকাশের মাধ্যম এখনো বিদ্যমান রয়েছে সরকার সেগুলো বন্ধ করার নানান বাহানা তালাশ করছে।
দৈনিক সংগ্রামের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র তারই একটি অংশ মাত্র। বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেক নাগরিকের রাজনীতি করার সাংবিধানিক অধিকার স্বীকৃত। এর উপর হস্তক্ষেপের অধিকার কারো নেই। কোন্ দল রাজনীতি করবে তা নির্ধারণ করার দায়িত্ব দেশের জনগণ কোন সরকার বা দলকে প্রদান করেনি।
মকবুল ও শফিক বলেন, এ ব্যাপারে চূড়ান্ত রায় দেয়ার অধিকার বাংলাদেশের জনগণের রয়েছে বলে আমরা বিশ্বাস করি। জামায়াতের বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র দেশের জনগণ গণতান্ত্রিকভাবে নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে মোকাবেলা করবে। আমরা সুস্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, জামায়াত গণতান্ত্রিক ধারার নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতিতে বিশ্বাসী। জামায়াতের প্রতিটি কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ। আমরা আইনগতভাবে ও জনগণকে সাথে নিয়ে রাজনৈতিকভাবে জামায়াতের বিরুদ্ধে সরকারের পরিচালিত সকল ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করব।

প্রোব/বিএইচ/রাজনীতি/২৫.০৩.২০১৪

২৫ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৯:২১:০৭ | ১২:৫২:০৪

জাতীয়

 >  Last ›