A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

ব্ল্যাক বক্সই শেষ আশা | Probe News

black box.jpgপ্রোব নিউজ, ডেস্ক: মালয়েশিয়ার বিমানটি দক্ষিণ ভারত মহাসাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে বলে দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হলেও উদঘাটন করা যায়নি বিমানটির অন্তর্ধান রহস্য। আর যদি ভারত মহাসাগরে বিমানটির সলিল সমাধি হয়েই থাকে তবে বিশেষজ্ঞদের মতে রহস্যের কুল কিনারা করতে এখন প্রয়োজন ফ্লাইট এমএইচ ৩৭০-এর ব্ল্যাক বক্সটির। তবে তা দিয়ে রহস্যের সমাধান হবে কিনা সে ব্যাপারেও সন্দিহান বিশেষজ্ঞরা।
ব্র্যাক বক্স নামে ঐ ফ্লাইট রেকর্ডারে থাকে দুটি অংশ। একটি ককপিট ভয়েস রেকর্ডার এবং অন্যটি ডেটা রেকর্ডার। বিশেষজ্ঞদের মতে এগুলোর কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। যাত্রা শুরুর পর টানা রেকর্ড চলতে থাকে ভয়েস রেকর্ডারে। মার্কিন হানিওয়েল এরোস্পেস কর্তৃপক্ষ জানায়, শুধু ককপিটের শেষ দুই ঘন্টার কথোপকথনই রেকর্ড হয় ভয়েস রেকর্ডারে। নিয়মানুযায়ী একটি বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার কারণ নির্ণয়ে শেষ দুই ঘন্ট কে জরুরি বলে মনে করা হয়ে থাকে।
Pinger.jpgতবে বিশেষজ্ঞদের দাবি, মালয়েশিয়ার বিমান নিখোঁজের ক্ষেত্রে বিষয়টি আলাদা। বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার অনেক আগেই গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলো ঘটে গিয়েছে বলে সন্দেহ করচেন তারা। অন্যদিকে স্টিভ বুজদিগান নামে সাবেক এক পাইলট জানান, ভয়েস রেকর্ডার থেকে পাওয়া না গেলেও ডেটা রেকর্ডার থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যেতে পারে। তিনি আরও বলেন, বিমানের গতিপথ পরিবর্তনের বিষয়টি ডেটা রেকর্ডারে রেকর্ড থাকে।
পানির সংস্পর্শে আসলে ব্ল্যাক বক্স থেকে এক ধরনের শব্দ পাওয়া যায়। আর তা গ্রহণ করা হয় একটি মাইক্রোফোন এবং একটি সিগন্যাল এনালাইজারের সাহায্যে। আর যেখান থেকে সংকেতটি পাঠানো হয় তাকে বলা হয় পিংগার। ভয়েস রেকর্ডার এবং ডেটা রেকর্ডার প্রত্যেকেরই আলাদা পিংগার রয়েছে। তবে সেক্ষেত্রেও রয়েছে সমস্যা। পিঙ্গারের ব্যাটারির মেয়াদ মাত্র ৩০ দিন বলে জানিয়েছে হানিওয়েল। আর সে মেয়াদ শেষ হলে বন্ধ হয়ে যাবে শব্দ পাঠানো। তবে ব্যাটারি শেষ হয়ে গেলেও রেকর্ড হওয়া ডেটাগুলো অক্ষুন্ন থাকে বলে আশ্বস্ত করেছে তারা।
ব্ল্যাক বক্ষের আকার একটি জুতার বাক্সের সমান উল্লেখ করে বিমান বিশেষজ্ঞ ডঃ গাই গ্র্যাটন বলেন, মাঝ সাগরে হালকা কমলা রংয়ের ব্ল্যাক বক্সের সন্ধান পাওয়া খুবই দূরূহ। পাশাপাশি অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি ১০ কেজি ওজনের ব্র্যাক বক্সটি পানিতে ভেসে থাকারও কোন সম্ভাবনা নেই।
পিঙ্গার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হানিওয়েল জানায়, মাত্র কয়েক মাইল জুড়ে সংকেত পাঠানোর ক্ষমতা রয়েছে এর। এদিকে সাগরে ব্ল্যাক বক্স সনাক্ত করতে সক্ষম এমন একটি বিশেষ জাহাজ মোতায়েন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। আর এ জাহাজটির সুক্ষ ¤্রবণ ক্ষমতা রয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এপি। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে এক্ষেত্রেও যথেষ্ট জটিলতা রয়েছে। তার কারণ, ব্ল্যাক বক্সটি যদি একেবারে সাগরের তলায় চলে যায় এবং এর উপরে ঠান্ডা কিংবা গরম পানির স্তর থাকে তবে ব্ল্যাক বক্স থেকে পাঠানো সংকেতটি প্রতিসৃত হবে।
সুতরাং বলা যায়, মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বিমানের ব্ল্যাক বক্সটি আদৌ পাওয়া সম্ভব কিনা তা নিয়েও রয়েছে অনিশ্চয়তা।
প্রোব/ফাউ/ডেস্ক/২৫.০৩.২০১৪

২৫ মার্চ ২০১৪ | আন্তর্জাতিক | ১২:২৮:৪০ | ১৮:৩৮:৩১

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›