A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

কিছু উপজেলায় পুনঃনির্বাচনের দাবি জামায়াতের | Probe News

প্রোবনিউজ, ঢাকা: যেসব উপজেলায় জালভোট, কেন্দ্র দখল, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে নির্বাচনের ফলাফল হাইজ্যাক করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, সেসব এলাকায় পুনরায় নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জামায়াতে ইসলামী।
রোববার ভোট পরবর্তী এক বিবৃতিতে এ দাবি করেন দলটির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান।
তিনি বলেন, চতুর্থ দফা উপজেলা নির্বাচনে সরকার দলীয় সন্ত্রাসীরা ভোট কেন্দ্র দখল, জালভোট প্রদান, প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া, ব্যালট বক্স ছিনতাই, বোমাবাজী ও সশস্ত্র সন্ত্রাসের মাধ্যমে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে আওয়ামী তান্ডবের মহোৎসব সম্পন্ন করেছে। সরকার দলীয় সন্ত্রাসীরা ভোটের আগের মধ্য রাতে অনেক কেন্দ্রে জালভোট দিয়ে ও ব্যালট বক্স ছিনতাই করে ভোট ডাকাতির সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, সকাল ৮ টায় ভোট শুরু হওয়ার আধা ঘণ্টার মধ্যে বরিশাল জেলার আগৈলঝরা উপজেলায় আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে ১৮শ জালভোট কাষ্ট করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলায় দফায় দফায় কেন্দ্র দখলের মহোৎসব চলে। পিরোজপুর জেলার জিয়ানগরে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীর পোলিং এজেন্টদের উপর হামলা চালানো হয়। কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় ১৫ টি কেন্দ্র দখল করে নেয় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।
এছাড়া কুমিল্লা, ফেনী, চট্টগ্রাম, যশোর, সাতক্ষীরা, ভোলা, পটুয়াখালী, দৌলতপুর, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সিলেট, মুন্সীগঞ্জসহ সকল জেলার উপজেলাগুলোতে প্রার্থীদের বিজয়ী করার সকল অপকর্ম নেই ক্ষমতাসীনরা করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

 

ডা. শফিক দাবি করেন, পিরোজপুরের জিয়ানগর, কুমিল্লার বরুড়াসহ দেশের বিভিন স্থানে ১৯ দলীয় জোটের ৫ শতাধিক নেতা-কর্মীকে মারাত্মকভাবে আহত করা হয়।
তিনি বলেন, আওয়ামী তান্ডবে ব্রাহ্মনবাড়ীয়ার আখাউড়ায় ১ জন, কুমিল্লার বরুড়ায় ১ জন, ঝালকাঠির রাজাপুরে ১ জন ও মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ার ১ জনসহ ৪ জন নিহত হয়। আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হাত থেকে মহিলা ভোটাররাও রেহাই পায়নি।
জামায়াতের এই নেতা আরো বলেন, গত কয়েকদিন যাবৎ সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে কার্যকর ভূমিকা পালনের জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি বারবার আহ্বান জানানো সত্বেও জনগণ তার কোন সুফল দেখতে পায়নি। নির্বাচন কমিশনের আচরণে প্রমাণিত হয়েছে দেশে কোন নির্বাচন কমিশন নেই। নির্বাচন কমিশনের অফিস আওয়ামী প্রার্থীদের বিজয়ী করার কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ আবারো জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে প্রমাণ করেছে তারা জনগণের ভোটের অধিকারে বিশ্বাস করে না। জনগণের উপর তাদের কোন আস্থা নেই। তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। জনগণের সামনে তাদের ফ্যাসিবাদী চরিত্রের মুখোশ আরেকবার উন্মোচিত হলো।
প্রোব/বিএইচ/জাতীয়/২৩.০৩.২০১৪

 

 

 

২৩ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৯:৩৭:৪৬ | ১৯:২০:১৫

জাতীয়

 >  Last ›