A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন: আদালত এলাকায় হট্টগোল | Probe News

khaleda zia5.jpgপ্রোবনিউজ, ঢাকা: বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। আগামি ২১শে এপ্রিল মামলার সাক্ষী গ্রহণের দিন ধার্য করেছেন আদালত। এরআগে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য সময় চেয়ে করা আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়। এরপরই আদালতে হইচই করেন আইনজীবীরা। এক পর্যায়ে আজই অভিযোগ গঠন বিষয়ক আদেশ দেওয়া হবে জানিয়ে এজলাস ত্যাগ করেন বিচারক বাসুদেব রায়। দুপুরের পর তিনি এজলাসে এসে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন।
বুধবার বেলা একটার দিকে খালেদা জিয়া দুই মামলায় আদালতে হাজির হন। এর আগেই আসামিপক্ষ থেকে শুনানির পরবর্তী তারিখ ধার্য করার জন্য আবেদন করা হয়েছে। বিচারক শুরুতেই এই আবেদন খারিজ করে দিলে আদালত কক্ষে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা হইচই শুরু করেন। এই পর্যায়ে বিচারক আজকেই অভিযোগ গঠন বিষয়ক আদেশ দেওয়া হবে বলে এজলাস ত্যাগ করেন।
বিচারকাজ চলাকালে খালেদা জিয়াকে বসার জন্য একটি চেয়ার দেওয়া হয়।
এদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা এই আদেশ পুনর্বিবেচনা জন্য নতুন করে সময় চেয়ে আবেদন করেছেন।
আদালতে খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জমিরউদ্দিন সরকার, রফিকুল ইসলাম মিয়া, খন্দকার মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ।

 

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোশাররফ হোসেন, আবদুল্লাহ আবু, রিজাউর রহমান, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
এদিকে খালেদা জিয়া আদালতে আসলেও এ মামলা দুটির বিষয়ে হাইকোর্টে দায়ের করা আবেদন অনিষ্পন্ন থাকায় সময়ের দরখাস্ত দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তার পক্ষের আইনজীবী।
মামলার অন্য আসামিরা হলেন বিআইডব্লিটিএ’র নৌ-নিরাপত্তা ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না, ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান, মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ।
এ মামলার অন্যতম আসামি খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী মামলার শুরু থেকেই পলাতক আছেন।
জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ চারজনকে অভিযুক্ত করে গত ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ খান।
২০১১ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে তেজগাঁও থানায় দুর্নীতির অভিযোগে এ মামলা করেছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ।
অপরদিকে জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট এ অনিয়মের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই দুর্নীতি দমন কমিশন রমনা থানায় এ মামলা করে।
২০১০ সালের ৫ আগস্ট দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ মামলার তদন্ত শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ছয়জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
প্রোব/পর/জাতীয়/১৯.০৩.২০১৪
১৯ মার্চ ২০১৪। জাতীয়

 

১৯ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৩:০৩:৩৪ | ১০:৪২:০০

জাতীয়

 >  Last ›