A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর্দা উঠছে আজ | Probe News

প্রোবনিউজ, ডেস্ক: আজ স্বাগতিক বাংলাদেশ আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নতুন সদস্য দেশ আফগানিস্তানের খেলার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর।
Bangladesh-vs-Afghanistan.jpgমিরপুরের শের-এ-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতি চলছে। গ্যালারিতে ধোয়া মোছার কাজ শেষ প্রায়, এরপরই শুরু হবে সাজানো। ষোলটি দলের উপস্থিতিতে শুরু হবে লড়াই। বাংলাদেশের ক্রিকেট আয়োজকরা বলছেন তারা সব প্রস্তুতি শেষ করেছেন।
এই আসরকে বেশ গুরুত্বের সাথেই নিয়েছেন তারা। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের একজন পরিচালক মাহবুব আনাম বলছিলেন, এই ইভেন্ট আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
তিনি বলেন, “একটা হলও নিজেরা আয়োজক হিসেবে কিভাবে নিজেদের উপস্থাপন করলাম সে বিষয়টি যেমন রয়েছে, তেমনি রয়েছে এই সুযোগে নতুন সংযোজন হওয়া আটটি ক্রিকেট মাঠ যা ভবিষ্যতে ক্রিকেটের উন্নয়নে বড় অবদান রাখবে।”
স্বাগতিক বাংলাদেশ এ যাবত অনুষ্ঠিত চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্ব প্রতিযোগিতাতেই খেলেছে এবং ২০০৭ সালে জোহানেসবার্গে প্রথম এবং এখন পর্যন্ত একমাত্র জয়টি পায়। সে সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ছয় উইকেটে হারায় বাংলাদেশ।
কিন্তু এর পরের ইতিহাস আবার ভাল নয়। সেই থেকে আজ অব্দি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মোট দশটি খেলা খেলেছে বাংলাদেশ, আর সব কয়টিতেই পরাজয় ছিল সঙ্গী ।

এবারে নিজ দেশের মাটিতে হতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ইতিমধ্যেই বাংলাদেশের মাটিতে উপস্থিত হয়েছে বাঘা বাঘা সব লড়াকু দল।
ক’দিন আগেই শেষ হলও এশিয়া কাপ। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে কয়েকটি খেলাতে। কিন্তু নিজ মাটিতে হলেও এশিয়া কাপের কোন খেলাতেই জয় পায়নি বাংলাদেশ। এবারে টি-টোয়েন্টি কে ঘিরে কেমন প্রস্তুতিতে স্বাগতিকরা?
বাংলাদেশ দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বলছিলেন, “দেশের মাটিতে হোম কন্ডিশন, আর টিমে যারা আছে তারা ভালো পারফর্ম করেছে। স্বাভাবিকভাবেই সবাইBD file photo.jpg কনফিডেন্ট । ইনশাল্লাহ ভাল হবে আশা করি। দল হিসেবে কেমন খেলবো সেটাই দেখার ব্যাপার হবে।”
২০১২ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে র আসরে বাংলাদেশ হেরেছিল নিউ জিল্যান্ড ও পাকিস্তানের কাছে। সেই সময়কালে এই সাকিবই ৮৪ রান করে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছিলেন। ২০১৩ তে এসে মুশফিকুর রহিম দলের দায়িত্ব নেয়ার পর টেস্ট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি - সব ফরম্যাটেই বাংলাদেশ তুলনামূলকভাবে ভালো করা শুরু করে।
টেস্ট ম্যাচের মতো টানা কয়েকদিন দর্শকদের বসে থাকতে হয়না টি-টোয়েন্টি ম্যাচে। তাই টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে আগ্রহ বেশি।

একই সাথে টি-টোয়েন্টি বিভিন্ন দেশসহ বাংলাদেশেও জনপ্রিয়তার বেশ ওপরের দিকে উঠে গেছে। দর্শকপ্রিয়তা তো আছেই, যারা ক্রিকেটেই জীবন গড়তে চান তাদের অনেকের স্বপ্নই এখন ভবিষ্যতে টি-টোয়েন্টির দিকে।
টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের খেলায় দুটি দল ১২০ টি করে ২৪০ টি বলের ওপর ভর করে জয় পরাজয় নির্ধারণ করে। কম সময়ে কে কত বেশি রান করবে, কে কত বেশি চার ছক্কা হাঁকাবে তার ওপর নির্ভর করে অনেক কিছু। আর টেস্ট ম্যাচে ক্রিজে টিকে থাকার লড়াইটাই হলও আসল।
এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অন্যতম স্পন্সর কোমল পানীয় পেপসি।
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক, ক্রিকেট বোর্ডের একজন পরিচালক এবং গেমস ডেভেলপমেন্ট কমিটির প্রধান খালেদ মাহমুদ সুজন।
তিনি বলছেন, টেস্ট ক্রিকেটেই আসল ক্রিকেট, যদিও এখন টি-টোয়েন্টি বেশ ডমিনেট করছে। টি-টোয়েন্টি মানুষের ব্যস্ত জীবনে ভিন্ন রকমের স্বাদ দিচ্ছে, তবে একই সাথে বহু লোককে এই ফরম্যাট ক্রিকেটে আগ্রহী করে তোলায় এটি ক্রিকেটের জন্যই ভাল হচ্ছে। তবে আমাদের জন্য মুখ্য হচ্ছে টেস্ট। বাংলাদেশের জন্য এর কোনো বিকল্প নেই।
ক্রিকেটের ময়দানে নিজেদের অবস্থান দৃঢ় করতে যে আরও খানিকটা সময় লাগবে তাতে যেমন কোনো সন্দেহ নেই, তেমনি টেস্ট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি সব ক্ষেত্রেই কৌশলী হবারও কোনো বিকল্প নেই। বিবিসি।
প্রোব/পার/খেলা/১৬.০৩.২০১৪
১৬ মার্চ ২০১৪ । খেলা

১৬ মার্চ ২০১৪ | খেলা | ১০:১৯:২৩ | ১৭:৫২:২৮