A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

শিক্ষক লাঞ্ছনার প্রতিবাদে জবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সাময়িক বহিস্কৃত | Probe News

প্রোবনিউজ, ঢাকা: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ আলমকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় বিচারের দাবিতে আজ শনিবার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। গেলো বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ দপ্তরে ‘দরপত্র’ পছন্দের প্রার্থীকে দেওয়া নিয়ে সৈয়দ আলমকে মারধর করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি শরিফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম। সৈয়দ আলম ৮ মার্চ পর্যন্ত ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক ছিলেন।
লাঞ্ছনার অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম সিরাজুল ইসলামকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন-শৃঙ্খলা কমিটির এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও বিভাগের শিক্ষকেরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদের কমনরুমের আসবা কিনতে দরপত্র আহ্বান করে ছাত্রকল্যাণ দপ্তর। ওই দরপত্র পছন্দের প্রার্থীকে দিয়ে আসছিল ছাত্রলীগ। কিন্তু সৈয়দ আলম তাতে রাজি না হওয়ায় বৃহস্পতিবার তাঁকে মারধর করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।
এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ সকাল ১০টার দিকে ক্যাম্পাসে মৌন মিছিল বের করেন রসায়ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। পরে বেলা ১১টার দিকে মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্যের সামনে সমাবেশ করেন তাঁরা। সমাবেশে শিক্ষকেরা বলেন, বিনা কারণে কয়েক দিন পরপরই শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালাচ্ছে ছাত্রলীগ। কিন্তু সরকারদলীয় ছাত্রসংগঠন হওয়ায় বিচারের নামে প্রহসন করে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তাই এ ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন তাঁরা।
রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ছাত্রকল্যাণের নতুন পরিচালকে হিসাব-নিকাশ বুঝিয়ে দিতে বৃহস্পতিবার ওই দপ্তরে যাই। এ সময় দপ্তরে উপস্থিত থাকা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে টেন্ডার দিতে আমাকে চাপ দেয়। আমি তাতে রাজি না হওয়ায় মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে মারধর ও মেরে ফেলার হুমকি দেয় তারা।’
অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি শরিফুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, বৃহস্পতিবার ছাত্রকল্যাণ দপ্তরে ছিলেন না তিনি। এ ছাড়া ওই দিন ক্যাম্পাসে এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি। শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক পরিমল বালা বলেন, ‘শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার ঘটনার বিচারের দাবিতে আজ দুপুরে জরুরি সভায় বসবে শিক্ষক সমিতি। সভা শেষে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের উপ-পরিচালক সৈয়দ ফারুক আহমেদ স্বাক্ষরিত বিপ্তপ্তিতে বলা হয়, ১৩ মার্চ রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ সৈয়দ আলমকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র এস এম সিরাজুল ইসলাম এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ছাত্র শামীম আহমেদকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।
এছাড়া পরিসংখ্যান বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র শ্যামন মোল্লাকে ‘কেন তার সার্টিফিকেট বাতিল করা হবে না’ মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি এঘটনার জন্য শিগগিরই কোতয়ালী থানায় একটি মামলা করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

প্রোব/বান/জাতীয় ১৫.০৩.২০১৪

১৫ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৭:৪৬:৪০ | ১৪:৪৮:২৫

জাতীয়

 >  Last ›