A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

১০ জেলার ২১ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত | Probe News

প্রোবনিউজ, ঢাকা: নির্বাচনের পরিবেশ না থাকাসহ সহিংসতার ঘটনায় ১০ জেলার ২১টি ভোটকেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। এর মধ্যে কুমিল্লার ২টি, চাঁদপুরের ৬টি, ফেনীর ২টি, ময়মনসিংহের ৩টি, বরিশাল জেলার হিজলা উপজেলার ৩টি, কিশোরগঞ্জ, যশোর, লক্ষীপুর, ভোলা ও রাজশাহীর ১টি করে কেন্দ্র রয়েছে। শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে দুপুর পৌনে ২টার দিকে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সহকারী সচিব আশফাকুর রহমান কমিশন সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ৩ জেলায় ৯টি কেন্দ্রের ফল স্থগিত করার খবর জানিয়েছিলেন। সেগুলো হচ্ছে- কুমিল্লার সিজিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও পরীকেট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, ফেনীর ওলাতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ধরাপপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং চাঁদপুরের পাথোর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বেরকোটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাঝিগাছা এমএম উচ্চ বিদ্যালয়, টেগুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পশ্চিম রাজারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র।

বিকেলে ইসি থেকে জানানো স্থগিত অন্য ১২টি কেন্দ্রের মধ্যে রয়েছে - ময়মসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার তারাটি টেরিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বন্ধ গোয়ালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার বড় চাচা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাঁদপুরের মেনাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, যশোর জেলার মনিরামপুরের হাজারকাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং লক্ষীপুর জেলার কমলনগর উপজেলার উত্তর পশ্চিম চর মার্টিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, ভোলার সদর উপজেলার একটি ভোটকেন্দ্র। অন্য তিনটি ভোটকেন্দ্র বরিশালের।

চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে শনিবার ৮১ উপজেলায় ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়। নির্বাচনী সহিংসতায় বাগেরহাট, শরীয়তপুর ও নেত্রকোনায় একজন করে মোট ৩ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের ঘটনাসহ জালভোটের খবর পাওয়া গেছে।

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর কর্মীরা দায়িত্ব পালনকালে ৩ সাংবাদিকের ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়েছেন। ফেনীতে ২টি মিডিয়ার গাড়ি ভাংচুরের ঘটনাও ঘটেছে। বেশ কয়েকটি উপজেলায় ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ না থাকার অভিযোগে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা দুপুরের দিকেই ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

এ ধাপে ৪১ জেলার ৮১ উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এক হাজার ১১৯ প্রার্থী। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৪১৯, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪২৩ জন ও সংরক্ষিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৭৭ জন।

ভোটগ্রহণ উপলক্ষে নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। এছাড়া মিটিং মিছিল ও যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধজ্ঞা আরোপ করা হয়।

দুই দিন আগে বৃহস্পতিবার থেকে নির্বাচনী এলাকায় সেনা টহল শুরু হয়। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে একজন করে প্রিজাইডিং অফিসার ও প্রতিটি ভোটকক্ষের জন্য একজন করে সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার দায়িত্ব পালন করেন। বিকেল ৪টায় ভোট গ্রহণ শেষে এখন চলছে গণনার কাজ।

শনিবার আরও দুটি উপজেলারও ভোটগ্রহণের কথা ছিল। কিন্তু ক্ষমতাসীন দলের দু'গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের কারণে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা নির্বাচন স্থগিত করা হয়। সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় আদালতের নির্দেশে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের নির্বাচন বন্ধ রয়েছে।

প্রোব/বান/জাতীয় ১৫.০৩.২০১৪

১৫ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৪:৪০:২৮ | ১৯:৩৫:৩৯

জাতীয়

 >  Last ›