A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

মিথ্যুক চেনার দশটি উপায় | Probe News

প্রোব নিউজ, ডেস্ক: প্রায় সময়ই মানুষ মিথ্যা কথা বলে থাকে। কে মিথ্যা বলছে আর কে সত্য বলছে তা নির্ধারণ করা বেশ কঠিন কাজ। তবে কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মিথ্যুকের মধ্যেই দেখা যায়। জেনে নেয়া যাক এমনই কিছু বৈশিষ্ট্য।
১. কেউ ডদি আপনার সাথে মিথ্যে বলতে চায় তাহলে সে আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলবে না। হয় নিচের দিকে তাকিয়ে কথা বলবে নাহলে উপরের দিকে বা আশেপাশে তাকিয়ে কথা বলবে। তবে এর ব্যতিক্রমও হতে পারে। অর্থ্যাৎ সে আপনার অতি মাত্রায় আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলবে এজন্য যে সে যা বলছে তা অবশ্যই সত্য।
২. কেউ পরিকল্পিতভাবে মিথ্যে বলতে চাইলে সে যা বলতে চায় তা খুব স্পষ্ট করে বলবে। অথবা সে যা বলছে তার প্রতি অতিরিক্ত জোর দিয়ে কথা বলবে। কারণ সে আপনাকে বোঝাতে চায় যে সে যা বলছে সেটাই সত্য। অথবা আপনি তাকে কোন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করলে সে উত্তর না দিয়ে আপনাকে পাল্টা প্রশ্ন করবে যে আপনি সেটা কোথায় বা কার কাছ থেকে শুনেছেন। আর পরে এনিয়ে সে আপনার কাছে হাজির করবে মনগড়া ব্যাখ্যা।
৩. মিথ্যে বলতে গেলে অনেকে অস্বাভাবিক আচরণ করে থাকে। যেমন, কথা বলার সময় আপনার দিকে পেছন ফিরে দাড়ানো, ঘন ঘন চোখের পাতা ফেলা, কম হাসি এবং গলার স্বরে হঠাৎ পরিবর্তন। এছাড়া দুই হাত ভাঁজ করে রাখা, শরীরের যেকোন অংশ অস্বাভাবিকভাবে স্পর্শ করা যেমন, গালে হাত,নাক বা কান চুলকানো, হাতের চাবি বা অন্য কিছু থাকলে তা নাড়াচাড়া করা ইত্যাদি।
৪. যারা মিথ্যে বলে তারা অনেক সময় আপনি প্রশ্ন না করলেও কোন ঘটনা সম্পর্কে অতিরিক্ত তথ্য দিয়ে থাকে। তারা মনে করে যে, কোন ঘটনা যত বেশি বিস্তারিত হবে তা তত বেশি বিশ্বাসযোগ্য হবে। আসলে তা নয়। কোন ঘটনা যত বেশি বিস্তারিত ধরে নিতে হবে তা ততবেশি অংলকৃত এবং সত্য থেকে তার অবস্থান তত বেশি দূরে।
৫. কেউ যখন মিথ্যে বলে তখন সে আক্রমণাত্মক হয়। তার উপর থেকে আপনার মনোযোগ সরাতে সম্ভাব্য সবকিছুই করবে সে। আপনি সে বিষয়ে কথা বলতে চাইলে এড়িয়ে যাবে। আর তারপরও আপনি যদি সে বিষয়ে প্রশ্ন করতে থাকেন তাহলে উল্টো সে আপনার উপর রেগে যাবে। আর যারা সত্য বলে তারা আপনার সাথে এধরণের আচরণ কখনোই করবে না।
৬. মিথ্যুকেরা যেকোন ঘটনা অলংকার দিয়ে সাজিয়ে গুছিয়ে উপস্থাপন করতে পছন্দ করে। আর এই ফাঁকে ঘটনার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলো সে লুকিয়ে ফেলে। ওই ব্যক্তি ভাবে,সাজিয়ে গুছিয়ে বললে তা বেশি বিশ্বাসযোগ্য হয়। তবে যে শুনবে সে ধরে ফেলবে যে কোন কিছুতে সদস্যা রয়েছে। একই প্রশ্ন তাকে বারবার করলে একেক সময় একেক উত্তর পাবেন আপনি তার কাছ থেকে।
৭. আপনি যখন কারো সাথে কথা বলছেন তখন তার চোখের দিকে খেয়াল করুন। কেউ যদি ভুলে যাওয়া কোন ঘটনা মনে করতে চায়, আর সে যদি সত্য বলতে চায় তাহলে সে তার চোখ উপরের দিকে ঘুরিয়ে বাম দিকে নিয়ে আসবে। আর যদি সে মিথ্যে বলতে চায় তাহলে চোখ উপরের দিকে ঘুরিয়ে ডান দিকে নিয়ে আসবে। বাহাতি লোকেরাও একই কাজ করেন তবে বিপরীত দিকে। মানুষ যদি মিথ্যে বলতে চায় তাহলে তার চোখের পাতা ঘনঘন নড়বে অথবা সে চোখ চুলকাবে। পলক পড়বে সাধারণের চাইতে কম। সে না চাইলেও তার হাত বার বার চোখের আশেপাশে ঘোরাফেরা করবে।
৮. অনেকে মিথ্যে বলতে গেলে অনেক বেশি ঘেমে যায়। কেউ যদি কোন কথা বলার সময় একই সঙ্গে ঘামে, লাল হয়ে যায়, তোঁতলায় এবং খুব কষ্টে ঢোঁক গিলতে থাকে তাহলে আপনি ধরেই নিতে পারেন যে সে আপনার সাথে মিথ্যে বলছে।
৯. যার সাথে কথা বলছেন তার ছোট ছোট অভিব্যক্তির বিষয়ে লক্ষ্য করুন। কোন বিষয় সম্পর্কে কারো সত্য অভিব্যক্তির প্রকাশ খুব কময়ের মধ্যে হয়ে থাকে। আর তা হয় আলোচনার একদম শুরুতে। ছোট্ট একটু হাসি যা ৫ সেকেন্ডের মতো হতে পারে। আর এসব ছোট ছোট অভিব্যক্তির মাধ্যমে মানুষ বুঝে যায় যে কেউ তার সঙ্গে মিথ্যে বলছে। তবে সে কিভাবে বুঝে যায় তা সে বলতে পারে না।
১০. কেউ আপনাকে মিথ্যে বলছে এরকম সন্দেহ হলে ওই ব্যক্তিকে একই ঘটনা আবারো বলতে বলুন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ওই ব্যক্তি একই ঘটনা আগে যেভাবে বলেছে দ্বিতীয়বার একইভাবে বলতে পারে না। আর অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সে এরকম ক্ষেত্রে অস্বস্তিবোধ করে।
প্রোব নিউজ/মম/আন্তর্জাতিক/১২.০৩.২০১৪

 

১২ মার্চ ২০১৪ | লাইফস্টাইল | ২১:১২:৩৪ | ০৭:৪০:৪৪