A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

রিংটোন লাইফটোন নয় | Probe News

malayshia phone.JPGপ্রোব নিউজ, ডেস্ক: ২৩৯ জন আরোহী নিয়ে নিখোঁজ হওয়ার ৫ দিন পর বিমানে থাকা চীনের যাত্রীদের স্বজনদের সঙ্গে আজ প্রথমবারের মতো বৈঠক করলো মালয়েশিয়ার সরকার। বেইজিংয়ের মেট্রোপার্কে লিডো হোটেলে প্রায় চারশ স্বজনের সঙ্গে দুই ঘণ্টা ধরে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে যতটা না উত্তর পাওয়া যায় তার চেয়ে বেশি অবতারণা হয় প্রশ্নের। এসব প্রশ্নের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলো, বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরও স্বজনদের ফোনে রিংটোন শুনতে পাওয়ার দাবি।
বৈঠকের সময় কয়েকজন যাত্রীর পরিবারের সদস্যরা দাবি করেন, বুধবার পর্যন্ত নিখোঁজ স্বজনদের ফোনে রিং বাজার শব্দ শুনেছেন তারা। সেসময় বিমানটি কোথাও অবতরণ করেছে কিনা অথবা ফোন রিসিভ করা না হলে অন্য কোন নম্বরে পরিবর্তন করা হয়েছে কিনা- এসব প্রশ্নের সঠিত উত্তর দিতে মালয়েশিয়ার কুটনীতিককে প্রশ্ন করেন তারা।
এছাড়া ফোন বাজার ভিডিও চিত্র ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে। বিমানটি হয়তো এখনো অক্ষত আছে- এমন ধারণাও ছড়িয়ে পড়েছে।
তবে এসব ধারণা ও দাবি নাকোচ করে দিয়েছেন প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ এবং ই-কমার্স টাইমসের কলামিস্ট জেফ কাগান। সিএনএন-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে কাগান বলেন, ফোনে রিং বাজার ঘটনা থেকে কোন সিদ্ধান্তে পৌছানোর কোন উপায় নেই। যখন একটি ফোন বাজে তখন প্রথমেই এটি একটি নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়। আর তারপর চেষ্টা করে অপরপ্রান্তে থাকা ডায়াল করা নম্বরের সঙ্গে যুক্ত করতে। আর তখন যদি কয়েক মিনিট ও কয়েকবার রিং হওয়ার পরও অপর প্রান্তে থাকা নম্বরটি খুজে পাওয়া না যায় তাহলে এটি আপনা আপনি বন্ধ হয়ে যায়। আর ঠিক এঘটনাই ঘটেছে বিমানের নিখোঁজ যাত্রীদের স্বজনদের সঙ্গে। এজন্য তারা রিং বাজার শব্দ শুনছে এবং ভাবছে এটা হয়তো তাদের স্বজনদের ফোন নম্বরের সঙ্গে সংযোগ পাচ্ছে। কিন্তু আসলে তা নয়। রিং হিসেবে তারা যা শুনছে সেটা হচ্ছে নেটওয়ার্কের পাঠানো সংকেত ছাড়া আর কিছু নয়। এটা ফোনের নেটওয়ার্কের কাজ করার একটি পদ্ধতি মাত্র।
come home.jpgএদিকে বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার আগে পাইলটের সঙ্গে সর্বশেষ কি কথা হয়েছিলো এমন প্রশ্নে জবাবে মালয়েশিয় কুটনীতিক দাতুক ইসকান্দার সারুদিন জানান, পাইলটদের সঙ্গে শেষ কথা ছিলো ‘ঠিক আছে, শুভ রাত্রি’
বিমানটি মালয়েশিয়ার আকাশসীমা থেকে ভিয়েতনামে আকাশসীমায় প্রবেশ করছে এবং পরবর্তী সংকেত ভিয়েতনামের হো চি মিন সিটির কন্ট্রোল টাওয়ার থেকে দেয়া হবে জানিয়ে মালয়েমিয় কন্ট্রোল টাওয়ার থেকে বার্তা পাঠানো হয়। এই বার্তার পর পাইলটরা ওই কথা বলেন। তবে বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার আগে কোন ধরনের বিপদ সংকেত দেননি পাইলটরা। কোন ধরণের নাশকতা বা সন্ত্রাসী কার্যক্রমের আভাস পেলে পাইলটরা অবশ্যই গোপন সংকেত হলেও পাঠাতো বলে জানানো হয়।
এদিকে নিখোঁজ বিমানটিকে খুজে পেতে তল্লাসিম অভিযান আরো বিস্তুত করা হয়েছে। টানা পঞ্চম দিনের মতো ৪০টি জাহাজ আর দুই ডজনেরও বেশি বিমান নিয়ে চলছে তল্লাসি অভিযান চলছে। নিখোঁজ হওয়ার সময় বিমানটিতে ১৪টি দেশের ২৩৯ জন যাত্রী এবং ১২ জন ক্রু ছিলেন। এদের মধ্যে ১৫৩ জনই চীনের নাগরিক।
প্রোব নিউজ/মম/আন্তর্জাতিক/১২.০৩.২০১৪

 

১২ মার্চ ২০১৪ | আন্তর্জাতিক | ১৬:৫৭:১০ | ১৮:০০:০৩

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›