A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

'মোদী চোর'; চা খাওয়ানোতেও নিষেধাজ্ঞা | Probe News

প্রোবনিউজ, ডেস্ক: ভারতের বিরোধী দল বিজিপি নেতা নরেন্দ্র মোদিকে জার্মানির নাৎসি নেতা অ্যাডলফ হিটলারের সঙ্গে তুলনা করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। বুধবার টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়। এদিকে আদর্শ আচরণবিধি চালু হয়ে যাওয়ার পর, মোদীর নামে চা বিলিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। তাদের বক্তব্য, নির্বাচনের মুখে এভাবে চা বিলি করা ভোটারদের ঘুষ দেওয়ারই সামিল।
মঙ্গলবার গুজরাটের পঞ্চমহল আসনে এক জনসভায় ভাষণ দিচ্ছেলেন রাহুল গান্ধী। এসময় মোদির কঠোর সমালোচনা করে তাকে হিটলারের সঙ্গে তুলনা করেন তরুণ এই কংগ্রেস নেতা রাহুল। এছাড়া তিনি মোদির বিরুদ্ধে কৃষকের জমি চুরি করার অভিযোগ এনে তাকে চোর বলেও উল্লেখ করেন। রাহুল বিজেপি নেতার নাম উল্লেখ না করে বলেন,‘ ‘কংগ্রেসের আদর্শ হচ্ছেন মাহাত্মা গান্ধী। কংগ্রেস নেতারা লোকজনের সঙ্গে দেখা করেন। তাদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে বেড়ায়। আর অন্য দলের নেতারা হিটলারের মতো। হিটলার বিশ্বাস করতেন লোকজনের কাছ থেকে শিক্ষা নেয়ার কিছু নেই।জার্মানিতে যা কিছু হয়েছে, সবকিছুই তাঁর করা।’
২৫ মিনিট ধরে দেয়া ভাষণে রাহুল মোদিকে উদ্দেশ্য করে আরো বলেন, ‘এই মানুষটি জনগণকে বলেন, তাঁকে দেশের চৌকিদার বানালে দুর্নীতি দূর হবে। যে লোক গুজরাটের কৃষকের জমি চুরি করেছেন এবং তা পছন্দের শিল্পপতিদের উপহার দিয়েছেন, তিনি কীভাবে ভারতের চৌকিদার হবেন? চোরকে চৌকিদার কীভাবে বানাব?’ তবে রাহুলের এই বক্তব্যের সমালোচনা করেছে বিজেপি। বিজেপির মুখপাত্র রবিশংকর প্রসাদ সাংবাদিকদের বলেছেন, রাহুলের এসব বক্তব্য সত্তরের দশকের। ২০১৪ সালে এই বক্তব্যের কোনো প্রাসঙ্গিকতা নেই।
এদিকে নরেন্দ্র মোদীর আমআদমি কানেকশন তুলে ধরতে চায়ের পেয়ালাকে প্রচারের অন্যতম হাতিয়ার করেছে বিজেপি। জায়গায় জায়গায় নমো টি স্টল খুলে চলছে প্রচার। ভোটারদের বিনা পয়সায় চা বিলি করা হচ্ছে। কিন্তু আদর্শ আচরণ বিধি চালু হয়ে যাওয়ার পর এমন প্রচার আর বরদাস্ত করছে না জাতীয় নির্বাচন কমিশন। সম্প্রতি উত্তর প্রদেশের লখিমপুর জেলায় বিজেপির একটি প্রচার অনুষ্ঠানে ভোটারদের বিনা পয়সায় চা দেওয়া হয়। এলইডি স্ক্রিনে দেখানো হয় মোদীর প্রচার। ওই ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ দায়ের হয়। তারপরই এই ধরনের প্রচারকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। কমিশনের বক্তব্য, অনুমতি না নিয়ে এমন প্রচার চালানো ভোটারদের ঘুষ দেওয়ারই সামিল।
নির্বাচন কমিশনের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে আরজেডি। কমিশনের নির্দেশে অস্বস্তিতে বিজেপি শিবির। বিজেপি যাই বলুক না কেন, নির্বাচন কমিশন কিন্তু কঠোর ভূমিকাই নিচ্ছে। ভোটপ্রচারে বিনা মূল্যে নমো টি বিলি করা হলে,যাতে তা আদর্শ আচরণ বিধি লঙ্ঘন হিসেবে দেখা হয়, তার জন্য নির্বাচনী আধিকারিকদের সতর্ক করে চিঠি দিয়েছে কমিশন।

প্রোব/বান/আন্তর্জাতিক ১২.০৩.২০১৪

১২ মার্চ ২০১৪ | আন্তর্জাতিক | ১৩:২৮:৫৪ | ২১:১৩:৩৭

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›