A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

মধ্যবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন এরশাদ! | Probe News

Ershad1.jpgপ্রোব নিউজ, ঢাকা: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এখন তাকিয়ে আছেন মধ্যবর্তী নির্বাচনের দিকে। তাঁর ধারণা দুই বছরের মাথায় দেশে আরেকটি নির্বাচন হবে। আর এজন্য সবধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। ৫ই জানুয়ারির সংসদ নির্বাচনে জাপার মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী কয়েকজন প্রোব নিউজকে এতথ্য জানিয়েছেন। আর এরশাদের ডাকে যারা মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন তাদের নিয়ে এরশাদ মঙ্গলবার রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন।

গত ৩রা ডিসেম্বর চূড়ান্তভাবে সংসদ নির্বাচন থেকে আসার ঘোষণা দিয়ে দলের সব প্রার্থীকে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন জাতীয় পার্টির চেয়ারমান এইচএম এরশাদ । আর তাঁর নির্দেশে জাতীয় পার্টির ২১৫ জন প্রার্থী নিজ মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নেন। বাকিরা নির্বাচনে অংশ নেন। ৩৪ জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে মনোনয়ন প্রত্র প্রত্যাহারকারীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন এরশাদ। বনানীর জাপা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে প্রায় সোয়াঘন্টা ধরে চলে এ বৈঠক। বৈঠকে সারাদেশ
থেকে আসা দেড়শ’রও বেশি মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী জাপা নেতা উপস্থিত ছিলেন।

এই বৈঠকে সাংবাদিকদের প্রবেশের অনুমতি না থাকলেও বৈঠক থেকে বেরিয়ে কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী প্রোব নিউজের সঙ্গে কথা বলেন বৈঠকের বিষয় নিয়ে। নাম প্রকাশ করার না শর্তে একজন বলেন, ‘আমি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে যেতাম। কিন্তু স্যারের(এরশাদ) কথামতো মনোনয়পত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছি। গত দুই দিন আগে স্যার (এরশাদ) আমাকে বাসায় ডেকে নিয়ে বলেছেন, দুই বছরের মাথায় দেশে আরেকটি নির্বাচন হতে পারে। তিনি নিজেও সেই নির্বাচনের পক্ষে। আমাকে ওই নির্বাচনের জন্য সকল প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে বলেছেন। ’
Rowshan Ershad.jpgএদিকে ভোলা-৩ আসন থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারী জাতীয় পার্টির ভাইস-চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘যেকোন সময় আরেকটি নির্বাচন হতে পারে বলে আজকের বৈঠকে স্যার (এরশাদ) আমাদের ইঙ্গিত দিয়েছেন। তিনি তৃণমূল থেকে পার্টিকে সুসংগঠিত করার জন্য কাজ করতে বলেছেন। আগামীতে যে নির্বাচনটি হবে সেই নির্বাচনের জন্য সর্বোচ্চ প্রস্তুতি’র কথাও বছেন।’
অবশ্য মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে আলোচনার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন জাতীয় পার্টির
মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার। বৈঠক থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আজকের বৈঠকে এধরনের কোন আলোচনাই হয়নি।’

বৈঠক সূত্রে আরো জানা যায়, এরশাদ মনোনয়ন
প্রত্যাহারকারীদের উদ্দেশ্যে বলেন ‘তোমরা বঞ্চিত হয়েছো। আমার কথামতে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছো। আগামীতে যে নির্বাচনটি হবে তাতে তোমাদের সর্বোচ্চ ছাড় দেওয়া হবে। আর যারা আমার নির্দেশ অমান্য করেছে তাদের কথাও আমার স্মরণে থাকবে। তারা আর কোন সুবিধা নিতে পারবে না আমার কাছ থেকে।’

এরশাদ আরো বলেছেন, ‘কোন অবস্থার মধ্য দিয়ে আমাকে নির্বাচন করতে হয়েছে, বর্তমান সংসদ কিভাবে গঠিত হয়েছে- এসব তোমরা ভালো করেই জানো। আজ এসবের ব্যাখ্যা দিতে চাইনা। এখনও আমাকে মামলা নিয়ে ভয়ে থাকতে হয়। কয়েকদিন পরপর আদালতে ধর্ণা দিতে হয়। কষ্ট আমিও কোন অংশে কম করিনি।’
ruhul amin hawlader.jpgজানা যায় এসময় এরশাদের পাশে থাকা মহাসিচব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য এসএম ফয়সাল চিশতী ও যুগ্ম-মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভূইয়াকে ইঙ্গিত করে ‘দালাল’ বলে চিৎকার দিতে থাকেন মনোনয়ন প্রত্যাহারকারীরা। পরে এরশাদ তাদের থামিয়ে দেন।
গত ২০শে জানুয়ারি মহিলা সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সঙ্গেও বৈঠক করেন জাপা চেয়ারম্যান। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী তখন এ প্রতিবেদককে জানান যে এরশাদ তাদের উদ্দেশ্য তিনি বলেছেন, ‘তোমরা ৯৬ জন আবেদন করেছো। কিন্তু আমি নিতে পারবো মাত্র ৬ জনকে। তবে তোমরা দু:খ পেয়োনা সরকার সঙ্গে বিএনপির সমঝোতা হলে শিগগিরই আরেকটা নির্বাচন হতে পারে। সেই নির্বাচনে তোমাদের আমি সুযোগ দিবো।’
মঙ্গলবারের বৈঠকের পর এরশাদ সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেনি। মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার বৈঠকে মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে আলোচনার কথা অস্বীকার করলেও দলকে সুসংগঠিত করতে এরশাদের নির্দেশের কথা জানান।
প্রোব/বেহো/রাজনীতি/১১.০৩.১৪

১১ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৮:২২:৪৬ | ২১:১৪:১৬

জাতীয়

 >  Last ›