A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

ভারতের নির্বাচন রাজনৈতিক দলগুলোর শক্তি ও দুর্বলতা | Probe News

election india.jpg

প্রোবনিউজ, ডেস্কঃ কে হবেন ভারতের ভবিষ্যত প্রধানমন্ত্রী। আর কোন দলই বা গঠন করবে সরকার। এই প্রশ্নকে সামনে রেখে ভারতের প্রধান চারটি রাজনৈতিক দলের শক্তি, দুর্বলতা, সম্ভাবনা আর হুমকি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ভারতের সংবাদ মাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।
প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ২০১৪ সালের ভারতের নির্বাচনের দৌড় শুরু হলেও কে জিতবে তা এখনো অন্ধকারে। আর এবারের নির্বাচনে আম আদমি পার্টির উত্থান এই দৌড়কে আরো প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ এবং আরো বেশি অনিশ্চিত করে তুলেছে বলে এতে মন্তব্য করা হয়।
প্রতিবেদনটিতে কংগ্রেস, থার্ড পার্টি বা ফেডারেল ফ্রন্ট, বিজেপি আর আম আদমি পার্টি’র বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়েছে। আর তা হলো.....
Congress.jpg০১.কংগ্রেস ও মিত্রদল
শক্তি: কংগ্রেসের সবলতা হচ্ছে রাহুল গান্ধী। তার বিরুদ্ধে এখনো কোন ধরণের বিতর্ক তৈরি হয়নি। তাকে নিয়ে নেই দলের অভ্যন্তরীন কোন দ্বন্দ্বও। বিজেপির তুলনায় গ্রহণযোগ্যতা ভাল থাকায় এই নির্বাচনে দেড়শ আসনের প্রতিরোধ গড়বে দলটি।
দুর্বলতা: গেলো ডিসেম্বরে বিধানসভার নির্বাচনে চারটি রাজ্যে পরাজয় লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের জন্য অবশ্যই চিন্তার বিষয়। এছাড়া দলের নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া নির্বাচনী প্রচারণার সময় রাহুলের বক্তব্য কংগ্রেসের স্ববিরোধি হওয়ায় অনেকটাই বিপাকে দলটি।
সম্ভাবনা: বিজেপি যদি শুরুতেই গুটিয়ে যায় আর মতবিরোধের কারণে তথাকথিত থার্ড পার্টি যদি নেতাদের নামের তালিকা ছোট করতে না পারে তাহলে নির্বাচনে কংগ্রেস অন্যান্য দলের সমর্থনে বা অন্য দলকে সমর্থন দিয়ে সরকার গঠন করার সম্ভাবনা রয়েছে।
হুমকি: দুর্নীতি আর অনেকটা শক্তিহীন হয়ে দ্বিতীয় দফায় সরকার গঠন কংগ্রেসের জন্য একটি বড় হুমকী। এছাড়া আম আদমি পার্টি কংগ্রেসের ভোট টানতে পাওে বলে আশংকা করা হগচ্ছে। আর তা হলে বেশ কম ভোটই পাবে কংগ্রেস।
Third_Front.jpg২.থার্ড ফ্রন্ট/ফেডারেল ফ্রন্ট
শক্তি: টিকে থাকার জন্য বিজেপি বা কংগ্রেসের মতো সুসংগঠিত দলের দরকার হয়না ভারতের এই রাজনৈতিক দলটির। অ্যামিবার মতো প্রতিকূল পরিবেশেও নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতেপারে ফেডারেল ফ্রন্ট।
দুর্বলতা: দলটিতে নেতাকর্মীদের সংখ্যা যেমন বেশি তেমনি নেতাদের মধ্যে মতবিরোধ অনেক বেশি। দলটির নেতাদের মধ্যে রয়েছেন মমতা ব্যানার্জী, প্রকাশ কারাত, এম করণানিধি, জে জয়ললিতা, মুলায়াম সিং এবং মায়াবতী। আর এদের সমস্যা হচ্ছে আলোচনার জন্য এরা সবাই একসঙ্গে এক টেবিলে বসতে পারেন না।
সম্ভাবনা: বিজেপির বিশাল নির্বাচনী প্রচারণার পরও থার্ড পার্টির ১৮০টি আসনের প্রতিরোধ ভাঙতে অনেকটাই বেগ পেতে হবে মোদিকে। আর কংগ্রেসের পিছিয়ে পড়ার প্রবণতার জন্য অনেকটাই এগিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে থার্ড পার্টির।
হুমকি: থার্ড পার্টি সবসময় কংগ্রেসকেই সমর্থন দেবে-এমন একটি মনোভাব তৈরি হয়েছে গেলো নির্বাচনের পর। এছাড়া এই দলের নেতারা একমত হতে পারে না-এমন ধারণা ভোটারদের কংগ্রেসকে বেছে নিতেই আগ্রহী করে। তবে এই ধারণা এবার কংগ্রেসের পরিবর্তে বিজেপিকে লাভবান করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
BJP.jpg৩. বিজেপি ও মিত্রদল:
শক্তি: বিজেপির সবচে বড় সবলতা হচ্ছে এর বৃহত্তর নির্বাচনী প্রচারণা। এছাড়া পরিবর্তন এসেছে নেতৃত্বেও। সুসংগঠিত দলের প্রায় সব নেতারাও।
দুর্বলতা: বিজেপির দুর্বলতা ২০০২ সালের গুজরাট দাঙ্গায় সংশ্লিষ্টতা। এছাড়া পশ্চিমবঙ্গ, উত্তর-পূর্ব এবং দক্ষিণ ভারতে কম সমর্থন রয়েছে বিজেপির। নেই সংখ্যালঘূদের কাছে বিশ্বাসযোগ্যতাও।
সম্ভাবনা: কংগ্রেসের দুর্বলতাই বিজেপির সবচে বড় সম্ভাবনার জায়গা। কংগ্রেস যেসব রাজ্যে বিরাগভাজন সেসব রাজ্যে ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা রয়েছে বিজেপির।
হুমকি: বিজেপির অন্য নেতাদের মধ্যে মোদি বিরোধি মনোভাব, দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক দুর্বলতা, সিদ্ধান্ত গ্রহণে মতবিরোধ, তৃনমূল পর্যায়ে সক্রিয়তার অভাব বিজেপির জন্য প্রধান হুমকী। এসব কারনে কংগ্রেস বিরোধি ভোট যেতে পারে আম আদমি পার্টির ঝুলিতে।
AAP.jpg৪. আম আদমি পার্টি
শক্তি: আম আদমির সবলতা হচ্ছে শুরু থেকেই ব্যাপক মিডিয়া কাভারেজ। সরকার পরিচালনার ভিন্ন ধরণের সিদ্ধান্ত ও বাস্তবায়ন, সব মিলিয়ে ভারতের দরিদ্র জনগণের স্বপ্নের দলে পরিণত হয়েছে আম আদমি পার্টি।
দুর্বলতা: নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার মতো আর্থিক উৎসের অভাব, বিস্তৃত সংগঠন গঠনের সময়ের অভাব, প্রতিনিধি বা সবল নেতৃত্বের অভাবই মূলত আম আদমির দুর্বলতা। এছাড়া দলটির রাজনৈতিক দর্শন অনেকটা নগরকেন্দ্রিক বলেও মত অনেকের।
সম্ভাবনা: পুঁজিবাদ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে অনেকটাই পরিচিতি জুটিয়েছে দলটি। ব্যবসায়িক ছাড়াও রাজনৈতিক নেতারাও পরিণত হয়েছেন তার টার্গেটে। বাদ পড়েননি মুকেশ আমবানিও। কংগ্রেস ও মোদি বিরোধি ভোট তার ঝুলিতে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।
হুমকি: মধ্যবর্তী শ্রেনীর ভোট কেজরিওয়ালের ভাগ্যে না জোটার সম্ভাবনাই বেশি। বিশেষ করে তার নাটকীয় আচরণের জন্য। এছাড়া জাতীয় পর্যায়েও এর প্রভাব পড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে।
প্রোব নিউজ/মম/আন্তর্জাতিক/০৭.০৩.২০১৪

৭ মার্চ ২০১৪ | আন্তর্জাতিক | ১৬:৪৬:৪৮ | ১৪:৩৫:১০

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›