A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সাহারার সঙ্গে বিসিবি’র চুক্তি বাতিল করা উচিত | Probe News

banjersey05প্রোব নিউজ,ঢাকা: সম্প্রতি ভারতের সাহারা গ্রুপের কেলেঙ্কারির পর বাংলাদেশে প্রশ্ন উঠেছে, তাদের সঙ্গে বাংলাদেশে ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি’র সম্পর্ক রাখা ঠিক হবে কী-না। সাহারার সঙ্গে বিসিবি’র স্পন্সর চুক্তি বাতিল করা যায় কি-না। ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক পরিচালক স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন প্রোব নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, সাাহারার সঙ্গে স্পন্সর চুক্তি করাটাই ছিল ভুল সিদ্ধান্ত। আর এই ভুল এখনো শোধরানো যায় সাহারার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে।
প্রোব নিউজ: বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের স্পন্সর সাহারা গ্রুপের কেলেঙ্কারির কথা তো শুনেছেন?
মোবাশ্বের হোসেন: তাদের এই কেলেঙ্কারি নতুন কিছু নয়। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডেও সঙ্গে যখন চুক্তি হয়, তখনই তারা এই কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়েছিল। আমি বোর্ডে না থাকলেও বাইরে থেকেই শাহারার সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করেছিলাম।
প্রোব নিউজ: বোর্ড তো বরাবরই বলে এসেছে, সাহারা বেশি রেভিনিউ দেবে, তাই তাদের ওই সমস্যাটুকু মেনে নেয়া যায়।
মোবাশ্বের হোসেন: এই কথাটিই আমি মানতে পারি না। যাদের গায়ে কলঙ্ক লেগে আছে, sahara web 2তাদের সঙ্গে কেন আমরা সম্পর্ক গড়তে যাব। আমি বরাবরই একটি কথা বলে এসেছি, বাংলাদেশের ক্রিকেট অন্য আর কোনো দেশের ক্রিকেটের সঙ্গে মেলানো যাবে না। ক্রিকেট আমাদের এখানকার ১৬ কোটি মানুষের সাধনার ব্যাপার। ক্রিকেট আমাদের হৃৎপিন্ডের ধুকপুকানি। আর হৃৎপিন্ডের সঙ্গে বেঈমানি করা যাবে না। আমি বলব, ক্রিকেট নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের কথা ভাবতে হবে।
প্রোব নিউজ: সাহরার বিরুদ্ধে আপনার এমন অনঢ় অবস্থানের কারণ কী?
মোবাশ্বের হোসেন: শাহারা কালির দাগ লেগে থাকা একটা প্রতিষ্ঠান। আমরা একে আমাদের ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত করে আমাদের গায়েও কালির দাগ লাগিয়েছি। সাহারা আসলে আমাদের ক্রিকেটের উন্নয়ন করতে আসেনি। এরা এসেছে এখান থেকে টাকা বাগিয়ে নেয়ার জন্য। তারা এখানে একটি রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে চেয়েছিল। সাহারা মাতৃভূমি নামের সেই প্রতিষ্ঠানকে এখানে প্রতিষ্ঠিত করতে আমাদের ভালোবাসার কোনো একটি জায়গায় ঢুকতে চেয়েছিল । আর সে কারণেই ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি করে।
প্রোব নিউজ: শেষ পর্যন্ত তো সাহারা মাতৃভূমি প্রতিষ্ঠানটি নিয়ে সফল হতে পারেনি। জমিতো পায়নি।
মোবাশ্বের হোসেন: হ্যাঁ, তা পারেনি। তবে বছর আড়াই-তিন আগে মুন্সিগঞ্জে বড় দাগের জমি অ্যাকেয়ার করে নেয়ার চেষ্টা করেছিল তারা। সেই সময় এর বিরুদ্ধে বড় আন্দোলনও গড়ে উঠেছিল। সে কারণেই সফল হয়নি। ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিটা হয়ে গেছে, কিন্তু ওরা জমিটা পায়নি। হয়ত আসল উদ্দেশ্য সিদ্ধ হয়নি বলেই ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে চুক্তির শর্তগুলোও ভালোভাবে পূরণ করছে না ওরা। মাঝে তো লেনদেন নিয়েও ঝামেলা হয়েছে।
প্রোব নিউজ: তাহলে সাহারার ব্যাপাওে ক্রিকেট বোর্ডেও কি করা উচিত?
মোবাশ্বের হোসেন: স্বাধীনতার পর একমাত্র কিকেটই বাংলাদেশের পতাকা স্বগৌরবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে উড়িয়েছে। আমরা যদি ক্রিকেটে কলঙ্কময় কোনো প্রতিষ্ঠান প্রবেশ করতে দেই,banjersey02 তাহলে জাতীয় পতকাকেই কলঙ্কিত করা হবে। এটা আমরা করতে পারি না। বেশি টাকার জন্য সাহারার মত বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আমরা চুক্তি করতে পারি না। আমি তো বলব, শাহারা ডেসটিনি বা যুবকরে চেয়েও খারাপ বা ঠগবাজ প্রতিষ্ঠান।
প্রোব নিউজ: বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের জার্সিতে বুকের ওপরে বড় করে সাহারা লেখা।
মোবাশ্বের হোসেন: আসলে ব্যাপার হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে এখন সৎ লোকের খুবই অভাব। ফিফটি পার্সেন্টও সৎ লোক পাওয়া যাবে না। এদের কাছে দেশ, পতাকা বা সম্মান কোনো ব্যাপার নয়। সবাই টাকার পাগল। আমার তো মনে হয় বেশি টাকা দিয়ে সাহারা যদি বলত, খেলোয়াড়দের কপালে সাহারা লিখে দেবে; তারা এতেও রাজি হয়ে যেত। কিন্তু আমি মনে কর ক্রিকেটারদের বুকে সাহারা কলঙ্ক লাগান হয়েছে। এটা সরাতে হবে। আর এরজন্য সাহারার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করতে হবে।
প্রোব/হার/কলাম/০৬.০৩.২০১৪

 

৬ মার্চ ২০১৪ | খেলা | ১৮:১৪:২৩ | ১৪:৪১:০৫