A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

‘আ ’লীগ হিটলারের গোয়েবলসীয় কায়দায় মিথ্যাপ্রচার করছে’ | Probe News

‘আ ’লীগ হিটলারের গোয়েবলসীয় কায়দায়
মিথ্যাপ্রচার করছে’

প্রোবনিউজ, ঢাকা: ‘আওয়ামী লীগ হিটলারের গোয়েবলসীয় কায়দায় মিথ্যাপ্রচার করছে’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অব. আ স ম হান্নান শাহ। তিনি বলেন, “একটি মিথ্যাকে তারা বার বার এমনভাবে প্রচার করে যে মানুষ শেষে ভুলে যায় কোনটা আসলে সত্যি।”

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ডেমোক্রটিক মুভমেন্ট আয়োজিত ‘নারায়ণগঞ্জ ও কালশীসহ বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ধামাচাপা ও নাগরিক নিরাপত্তা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলে, “আমরা গণতান্ত্রিক পন্থায় এই সরকারের পতন ঘটাবো। জনগণ জানে সরকার পতন ঘটাতে কী করতে হয়। তারা যখন মাঠে নামবে তখন গুলি, আগুন আর নিরাপত্তা বাহিনী দিয়ে দমাতে পারবে না। এরশাদ পারেনি, এই সরকারও পারবে না।”

আন্দোলন করার মতো ইস্যু আছে, মাঠ পর্যায়ে নেতা-কর্মী আছে, কিন্তু নেতৃত্ব দেয়ার মতো নেতা নেই বলে মন্তব্য করে হান্নান শাহ বলেন, আন্দোলনের জন্য ছেলেরা প্রস্তুত। শুধু নেতার অভাব।

সরকার নতুন নতুন ইস্যু তৈরি করে মানুষের সঙ্গে ধোঁকা ও ভাওতাবাজি করছে অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, “সরকার সবকিছুই ধামাচাপা দেয়। তারা মনে করে নতুন একটা ইস্যু আসবে আর জনগণ আগের ইস্যুর কথা ভুলে যাবে।”

হান্নান শাহ বলেন, “জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনের মাধ্যমে এ সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করতে হবে। জনগণ যখন মাঠে নামবে তখন এসব গুলি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ রাঙানি কাজে আসবে না।”

তিনি বলেন, “সরকারের এত অহংকার যে, তারা পার্লামেন্ট এবং বাইরে তাদের কথাবার্তায় মনে হয় তারা ধরাকে সরা জ্ঞান করছে। আমাদের কথা শুনলে নাকি তাদের গা চুলকায়। তাহলে ওষুধ হিসেবে গঙ্গাজলে ডুব দিয়ে আসতে পারেন।”

নারায়রণগঞ্জের ঘটনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “এখন রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় হত্যাকাণ্ড ঘটছে। ডিফেন্স সার্ভিসের কর্মকর্তারা কিলিং মিশন নিয়ে র্যা বে কাজ করছে। কিলিং মিশনে সেনাবাহিনীর ১৭ জন কর্মকর্তা অংশ নিয়েছেন, তারা নিজস্ব বাহিনীতে ফিরে গেলে তাদের অধস্তনদের মাঝে অনৈতিকতা ছড়িয়ে পড়বে।”

শতকরা ৯০ ভাগ পুলিশ চার ফিট দূরের টার্গেটেও গুলি করতে পারে না জানিয়ে তিনি বলেন, “নিরপরাধ লোকদের ধরে খুব কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। নিহতদের কোনো পোস্টমর্টেম করা হয়নি। হলে বোঝা যেত কারা এর সঙ্গে জড়িত।”

শামীম ওসমানকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “আপনার মন্তব্যের জন্য আপনি জাতি এবং সাংবাদিকদের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চান।” তিনি বলেন, “বাকশাল গঠনের পর তাজউদ্দিন শেখ মুজিবকে বলেছিলেন, আপনি তো গণতান্ত্রিক উপায়ে সরকার পরিবর্তনের ব্যবস্থা রাখলেন না। এর পরের ঘটনা আমরা সবাই জানি।”

সব হত্যাকাণ্ডের বিচার হওয়া উচিত মন্তব্য করে তিনি বলেন, “বিএনপি যখন সরকারে ছিল তখনই সব হত্যাকাণ্ডের বিচার শুরু করা উচিত ছিল। তা শুরু হয়নি বলে আমি বিব্রত। সিরাজ শিকদারকে কে হত্যা করেছে আমরা সবাই জানি।”

আওয়ামী লীগ এবং ভারত সম্পর্কে কিছু বলার নেই জানিয়ে তিনি বলেন, “তারা নিজেদের স্বার্থে বিভিন্ন চুক্তি করে থাকে। যা দেশের কল্যাণে কাজে আসে না। আর যা দেশের কল্যাণে আসবে তা বাস্তবায়ন হয় না। যেমন ইন্ধিরা-মুজিব চুক্তি।”

সংগঠনের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, গণস্বাস্থের ড. জাফরুল্লাহ, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের রহমাতুল্লাহ, ন্যাপরে সভাপতি এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া প্রমূখ।

১ জুলাই ২০১৪ | জাতীয় | ১৫:০৫:১০ | ১৪:৪৪:৪৯

জাতীয়

 >  Last ›