A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

চীনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো জোরদার হবে: প্রধানমন্ত্রী | Probe News

চীনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো জোরদার হবে: প্রধানমন্ত্রী

pm in chinaপ্রোবনিউজ, ঢাকা: চীন সফরে বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো জোরদার এবং অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সহযোগিতার এক নতুন পথ উন্মোচিত হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘আমার চীন সফর একটি বিরাট সাফল্য।’ এখন থেকে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও সাংস্কৃতিক বিনিময় অতীতের চেয়ে আরো বেশি গুরুত্ব পাবে।

আজ বেইজিংয়ে ‘সাম্প্রতিক বছরে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক সাফল্য এবং চীনের সঙ্গে অংশীদারিত্ব’ শীর্ষক সেমিনারে চীনের বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। চায়না ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ (সিআইআইএস) বেইজিংয়ে তার নিজস্ব কার্যালয়ে এ সেমিনারের আয়োজন করে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর লিখিত ভাষণে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে চীনের অব্যাহত সমর্থনের প্রশংসা করে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে এ দেশের জনগণের লড়াইয়ে চীন আরো সমর্থন ও সহযোগিতা দেবে বলে আশা প্রকাশ করেন।খবর বাসস পরিবেশিত।

২০১১ সালে জাতিসংঘ মহাসচিব ‘বাংলাদেশ উন্নয়নশীল বিশ্বের একটি মডেল’ বলে যে মন্তব্য করেছেন তার উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, জাতিসংঘ মহাসচিবের এ বক্তব্য তাঁর সরকারকে ‘রূপকল্প-২০২১’ কৌশল গ্রহণে উৎসাহিত করেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ-ভারত-চীন-মায়ানমার (বিআইসিএম) অর্থনৈতিক করিডোর প্রতিষ্ঠায় চীনের প্রস্তাবের প্রতি বাংলাদেশ সমর্থন জানিয়েছে। এক সময়ের জনপ্রিয় ‘সিল্ক রুট’ হিসাবে পরিচিত এই করিডোরের ফলে নেপাল ও ভুটানসহ এ অঞ্চলের সব দেশের জনগণ লাভবান হবে।

স্বল্প সময়ে চীনের দ্রুত অর্থনৈতিক ও অবকাঠামোগত উন্নতির প্রশংসা করে শেখ হাসিনা বলেন, চীনের সাম্প্রতিক উন্নয়নে তিনি অভিভূত। চীন থেকে বাংলাদেশে অনেক কিছু শেখার রয়েছে।

এসময় সিআইআইএস-এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাবেক কুটনীতিক রুয়ান জংঝে তার স্বাগত বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন সংক্ষিপ্তভাবে তুলে ধরেন এবং তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশে বিভিন্ন খাতে সাফল্যের বর্ণনা দেন।

রুয়ান জংঝে বাংলাদেশকে একটি উন্নত, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ দেশ হিসাবে গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকারের জন্য তাঁর প্রশংসা করেন।

এ প্রশ্নোত্তর পর্বে পিপলস ডেইলি ও শেন জেন টেলিভিশনের সাংবাদিক এবং চায়না কমিউনিকেশন ইউনিভার্সিটির (সিসিইউ) ফ্যাকাল্টির সদস্যসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের অগ্রগতি এবং বাণিজ্য, বিনিয়োগ, যোগাযোগ এবং জনগণের সাথে জনগণের যোগাযোগসহ চীন-বাংলাদেশ সম্পর্কোন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

এসময় সিআইআইএস সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে বাংলা ভাষার বিপুল সংখ্যক সাবেক ছাত্র-ছাত্রী এবং উভয় দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলা ও চীনা ভাষায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রোব/পি/জাতীয়/০৯.০৬.২০১৪

৯ জুন ২০১৪ | জাতীয় | ১৫:৫৭:৪৭ | ১৮:১৬:১৪

জাতীয়

 >  Last ›