A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

বিক্রির লক্ষ্য পাঁচ কোটি টাকা | Probe News

বৃক্ষ মেলায় ২৫ হাজার চারার সমারোহ

বিক্রির লক্ষ্য পাঁচ কোটি টাকা


Tree fair.png
প্রোবনিউজ, ঢাকা:
‘অধিক বৃক্ষ-অধিক সমৃদ্ধি’ এই স্লোগান নিয়ে রাজধানীর আগারগাঁওস্থ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার মাঠে চলছে মাসব্যাপি জাতীয় বৃক্ষ মেলা। এ মেলা চলবে জুলাইয়ের ৪ তারিখ পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মেলা প্রাঙ্গন খোলা থাকবে দর্শনার্থীদের জন্যে।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও জাতীয় এ বৃক্ষ মেলায় আম, আনার, আঙ্গুর, আপেল, আমড়া, জাম, জারুল, জামরুল, লেবু, লিচু ও করমচাসহ নানা জাতের ফল ও ফুলের চারা নিয়ে সারা দেশ থেকে নার্সারি প্রতিষ্ঠানগুলো মোলায় অংশ গ্রহণ করেছে।

মেলার আয়োজোক প্রতিষ্ঠান বন অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ১৯টি সরকারি নার্সারি, ৩টি বেসরকারি নার্সারি, ৭৬টি ব্যক্তি মালিকানা নার্সারি প্রতিষ্ঠান মোট ১৭ হাজার ৭৩০টি প্রজাতির ফলের চারা এবারের মেলায় এনেছে। এছাড়াও এক হাজার ৫৫০ প্রজাতির শোভাবর্ধনকারী গাছের চারা, ৭০৬৫ প্রজাতির ক্যাকটাস, আগর, নীল, তকমা, কাউফল, পাতিআমড়া, ডেউয়া, ডরিআম, দেশি গাব, বাওয়ার ও তমালসহ ৫৬৫টি বিলুপ্তপ্রায় বিরল প্রজাতির গাছের চারা মেলায় রয়েছে। আরো রয়েছে ওষধি ও বনজ গাছের চারা। মেলায় মোট স্টলের সংখ্যা ১১০টি।

ehsansabir_1371831309_4-DSCF3258.jpg১৯৯৩ সাল থেকে বন অধিদফতর প্রতি বছর নগরীতে এ মেলার আয়োজন করে আসছে। গত বছরে জাতীয় এ বৃক্ষ মেলায় ফলজ, বনজ ও ভেষজ গাছের চারা বিক্রি হয়েছিল আট লাখ ২৪ হাজার ৪৭১টি। যার বিক্রয় মূল্য চার কোটি ৭৬ লাখ ১৯ হাজার ২৯টাকা। এবারে মেলায় বিক্রির পরিমাণ পাঁচ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে- এমনটিই আশা বিক্রেতাদের। ২০১২ সালে মেলায় তিন কোটি ৯০ লাখ টাকার গাছের চারা বিক্রি হয়েছিল বলে জানিয়েছে মেলার আয়োজক বন অধিদফতর।

এবার শুরুর দিন থেকেই জমজমাট মেলা প্রাঙ্গণ। জ্যৈষ্ঠের ভ্যাপসা গরম উপেক্ষা করে মেলায় বাড়ছে ভিড়। দর্শকরাও মুগ্ধ ফলবতি এবং ফুলবতি বাহারি গাছের আয়োজনে। বরিশাল নার্সারি মেলায় নিয়ে এসেছে থাইল্যান্ডের আমলকির চারা। আমলকির এ জাতটির বৈশিষ্ট্য বছরে দুইবার ফলন দেয়, আকারে ফল হয় বড়, স্বাদে কিছুটা মিষ্টি কিছটাু টক এবং এর আয়ু ৫০ বছরের বেশি বলে দাবি করলেন প্রতিষ্ঠানটির মালিক ইব্রাহিম খলিল। এদিকে ফল বড়া আমলকি গাছটি দেখতে রীতিমতো উপচে পড়া ভিড় দর্শকদের। এ পর্যন্ত চারাটির দাম ৯০ হাজার টাকা পর্যন্ত উঠেছে বলে জানান তিনি।

এছাড়া, বইয়ের পাতায় দেখা ফুল বাস্তবে দেখে আনন্দিত মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুলের শিক্ষার্থী মুস্তাফিজ রনি। তিনি বলেন, এতদিন বইয়ের পাতায় কেবল জারবেরা, গ্লাডিওলাস, অর্কিড এবং ঝুমকোলতা ফুল দেখেছি। এবার তা বাস্তবে দেখতে পারলাম।

এদিকে বিদেশ থেকে আনা ময়ুরপঙ্খী বাঁশ নিয়ে মেলায় আলোড়ন তুলেছেন রাঙ্গাবন নার্সারি । বৃক্ষ মেলায় ভালো চারা বিক্রিতে অবদান রাখায় এই প্রতিষ্ঠান চারবার প্রথমসহ বেশ কয়েকবার জাতীয় পুরষ্কারও পেয়েছে।
প্রতিটি বাঁশের চারা বিক্রি হচ্ছে ছয় হাজার টাকা করে বলে জানালেন রাঙ্গাবন নার্সারি ইনচার্জ আনিসুর রহমান।

মেলায় বিক্রি সম্পর্কে জানতে চাইলে আনিসুর রহমান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে এবারে মেলায় গাছ বিক্রি বেশি হবে । কারণ দেশে রাজনৈতিক অবস্থা ভালো রয়েছে। তিনি দাবি করেন, তার প্রতিষ্ঠান রাঙ্গাবন নার্সারি জাতীয় বৃক্ষ মেলায় কয়েকবার পুরষ্কার পেয়েছে।
প্রোব/খোআ/শর/জাতীয়/০৮.০৬.২০১৪

৮ জুন ২০১৪ | জাতীয় | ১৩:০৫:১৭ | ১৬:২৮:২৪

জাতীয়

 >  Last ›