A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছাত্রদল, নতুন কমিটির দাবি কর্মীদের | Probe News

নিবিড় পর্যবেক্ষণে ছাত্রদল, নতুন কমিটির দাবি কর্মীদের


JCD.pngপ্রোবনিউজ, ঢাকা : কেন্দ্রীয় ছাত্রদল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কোন রাজনৈতিক অবস্থান নেই। দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকায় হতাশ হয়ে ছাত্র রাজনীতি থেকে সরে যাচ্ছে ত্যাগী ও মেধাবী ছাত্র নেতারা। ক্যাম্পাস ও হলে সহ-অবস্থান না থাকায় তরুণ কর্মীরাও ছাত্রদলের রাজনীতি করতে আগ্রহী হচ্ছে না। বিশ্ববিদ্যালয়ে সহ-অবস্থান নিশ্চিত করে ক্লাস-পরীক্ষা অংশগ্রহণ, ক্যাম্পাসে মিছিল মিটিং করার দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতাকর্মীরা।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদলের একাধিক নেতা প্রোবনিউজকে জানিয়েছে, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নেতাকর্মীদের নিজ বাসায় ডেকে নিয়ে কথা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক কমিটি বাতিল করে নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটি দিবেন। সেদিকে চেয়ে আছে এক সময়ের শক্তিশালী ছাত্র সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। বিএনপি চেয়ারপারসনের কাছে তাদের দাবি, অচিরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত ছাত্রদের নিয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করে দেশরক্ষার আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহণ করার সুযোগ সৃষ্টি করা।
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি মহিদুল হাসান হিরু প্রোবকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও ছাত্রলীগ যে দমন-পীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে এতে সুষ্ঠু স্বাভাবিকভাবে ক্যাম্পাসে রাজনীতি করার সুযোগ পাচ্ছে না ছাত্রদল। ক্যাম্পাসে মিটিং মিছিল তো দূরের কথা, লেখাপড়া করাই সুযোগ পাচ্ছি না।’ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে সহ-অবস্থান নিশ্চিত করার দাবি জানান তিনি।
২০১০ সালের ২৬ জুনের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে পারেনি ছাত্রদল। তাদের রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করতে হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে বিভিন্ন জায়গায়। তবে, মাঝে মাঝে কাক ডাকা ভোরে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ক্যাম্পাসের আশে পাশে ঝঁটিকা মিছিল করতে দেখা গেছে। ছাত্র রাজনীতিতে ছাত্রদলেরে এমন ভীতু ও কর্মহীন রাজনৈতিক কার্যক্রমের ব্যাপারে জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক ওবায়দুল হক নাসির বলেন, ‘ছাত্রদলের রাজনীতিকে শক্তিশালী করতে হলে নেতাদের সমন্বিত উদ্যোগ প্রয়োজন। ছাত্রলীগ ও পুলিশ বাহিনীর দমন-পীড়নকে উপেক্ষা করে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। নিজেদের মধ্যে কুন্দল দূর করে দেশের গণতান্ত্রিক রক্ষার করতে আন্দোলনে অংশ নিতে হবে।’ এক্ষেত্রে ছাত্রদলে অছাত্রদের বাদ দিয়ে নিয়মিত ছাত্র ও তরুণ নেতৃত্বকে শক্তিশালী ভূমিকা রাখার আহবান জানান তিনি।
কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের আরেক যুগ্ম সম্পাদক আকরাম হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে ছাত্রদল বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করতে পারছে না। ছাত্রদলকে নেতাকর্মীদের পিটিয়ে হল ও ক্যাম্পাস থেকে বিতারিত করছে ছাত্রলীগ। এসব দেখেও নিরব রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ছাত্রদলকে বসে থাকলে চলবে না। ঐক্যবদ্ধ হয়ে পুলিশ, ছাত্রলীগ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনকে সহ-অবস্থান দিতে বাধ্য করতে হবে।’
বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশী এক নেতা জানিয়েছে, ‘দীর্ঘদিন যাবত কমিটি না থাকায় ছাত্রদল নিক্রিয় হয়ে পড়ছে। নেতাকর্মীরা রাজনীতিতে হতাশ হয়ে অন্য দিকে ধাবিত হচ্ছে। তরুণ নেতাকর্মীও রাজনীতি করার আগ্রহ হারাচ্ছে।’ এই নেতা আরো জানান, ‘কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক উভয়েই অছাত্র ও বিবাহিত। তাদের বয়স ৪৫ কোটায়। তাদের একাধিক সন্তানও রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকও অছাত্র ও বিবাহিত।’ ছাত্রদলকে অছাত্রমুক্ত করে অচিরে নিয়মিত ছাত্রদের দিয়ে পুরাতন কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি দেয়ার দাবি জানান তিনি।
ছাত্রদলের সুষ্ঠু স্বাভাবিক ও অছাত্রমুক্ত ছাত্র রাজনীতির ব্যাপারে জানতে চাইলে বিএনপির ছাত্র-বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী অ্যানি বলেছেন, ‘ছাত্রদলের কমিটি যেহেতু দীর্ঘদিন আগে হয়েছে সেখানে নিয়মিত ছাত্র না থাকাই স্বাভাবিক। আশা করছি, বিএনপি চেয়ারপারসন নিয়মিত ছাত্রদের দিয়ে যে নতুন কমিটি ঘোষণা দিয়েছেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের কমিটি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিটিকে ব্যর্থতার দায়ভার চাপানো উচিত হবে না। সরকারী দলের পুলিশি নির্যাতন, জেল ও মামলার জন্য সুষ্ঠু স্বাভাবিক রাজনীতি করার পরিবেশ পাচ্ছে না ছাত্রদল। আশা করি, খুব শীঘ্রই পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের মাধ্যমে ছাত্রদলকে রাজনীতিতে সক্রিয় করা হবে।’
প্রোব/এহ/পি/জাতীয় ০৩.০৬.২০১৪

৩ জুন ২০১৪ | জাতীয় | ১৪:২৭:৫২ | ১১:২৪:১৯

জাতীয়

 >  Last ›