A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

তথ্য-প্রযুক্তিখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তার আশ্বাস দক্ষিণ কোরিয়ার | Probe News

তথ্য-প্রযুক্তিখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তার আশ্বাস দক্ষিণ কোরিয়ার


Korean-ambassedor.jpgপ্রোবনিউজ, ঢাকা : বাংলাদেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। পাশাপাশি বাংলাদেশের স্বাস্থ্য সেবা এবং রসায়ন শিল্পসহ বিভিন্ন খাতে সক্ষমতা বৃদ্ধিতে প্রযুক্তি হস্তান্তরেরও আশ্বাস দিয়েছে দেশটি।
বৃহস্পতিবার শিল্প মন্ত্রণালয়ে শিল্পমন্ত্রী আমির আমুর সঙ্গে বৈঠককালে এ আগ্রহের কথা জানান বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি ইয়ান ইয়াং।
বৈঠকে দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত চট্টগ্রামে অবস্থিত কোরিয়ান ইপিজেড (কেইপিজেড) এ ভূমির মালিকানা হস্তান্তর সম্পর্কিত জটিলতা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য শিল্পমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি বলেন, এসব জমিতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির কোরিয়ান শিল্প কারখানা স্থাপিত হলে, বাংলাদেশের রপ্তানি আয় কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে। বর্তমানে বাংলাদেশের শিল্পখাতে ১৫৬টি প্রতিষ্ঠান বিনিয়োগের অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানান দেশটির রাষ্ট্রদূত লি ইয়ান ইয়াং।
বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের তথ্য-প্রযুক্তিখাতের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে দক্ষিণ কোরিয়ার সহায়তার প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, জ্ঞানভিত্তিক শিল্পায়নের জন্য বর্তমান সরকার তথ্য-প্রযুক্তিখাত প্রসারের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। তিনি বিএসটিআই’র আধুনিকায়ণ, গবেষণাগারের মানোন্নয়ন ও অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি স্থাপনে দক্ষিণ কোরিয়া সহায়তা করতে পারে বলে অভিমত দেন।
বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্রে (বিটাক) দক্ষিণ কোরিয়ার আধুনিক সাশ্রয়ী প্রযুক্তি স্থানান্তরের জন্য রাষ্ট্রদূতের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন মন্ত্রী । চট্টগ্রাম কেইপিজেডে’র ভূমি মালিকানা হস্তান্তর বিষয়ক জটিলতা নিরসনে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলোচনা করে উদ্যোগ নেয়া হবে বলে রাষ্ট্রদূতকে আশ্বস্ত করেন তিনি ।
বৈঠকে শিল্পসচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্, বাংলাদেশে কোরিয়ান দূতাবাসের ডেপুটি চিপ অব মিশন কিম হাইয়ান-জু-সহ শিল্প মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ¦তন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এরপরে বাংলাদেশ ইনডেনটিং এজেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা শিল্পমন্ত্রীর সাথে তাঁর দপ্তরে সাক্ষাত করেন। সাক্ষাতকালে তাঁরা দেশে গুণগত শিল্পায়ন প্রক্রিয়া জোরদার করতে মেধাসত্ত্ব সংরক্ষণের ওপর কয়েকটি সুপারিশ তুলে ধরেন। তাঁরা পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেড মার্কস অধিদপ্তরে জনবল বৃদ্ধি, দ্রুত রেজিট্রেশন সনদ প্রদান, আমদানিকৃত পণ্যের পাইরেসিরোধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ ও সবুজ শিল্পায়নে সরকারের ভূমিকা জোরদারের ওপর গুরুত্ব দেন।
এসময় সংগঠনের সভাপতি কে.এম.এইচ. শহীদুল হক, পরিচালক দীপক কুমার বরাল, এস.এম. সেলিম রেজা, এম. আনোয়ারুল গণিসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
প্রোব/আরএম/শর/অর্থনীতি/ ১৫.৫.২০১৪

 

১৫ মে ২০১৪ | অর্থনীতি | ২০:৫১:৩২ | ১৩:৪৬:২৪

অর্থনীতি

 >  Last ›