A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পরিচালককে ‘তুলে নেয়ার চেষ্টা’ | Probe News

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পরিচালককে ‘তুলে নেয়ার চেষ্টা’


Asok-Nur+Khan.pngপ্রোবনিউজ, ঢাকা: পরিচালক নূর খানকে অপহরণের চেষ্টা হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছে মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র । নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের প্রেক্ষাপটে সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান নিষিদ্ধের দাবি তোলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বৃহস্পতিবার এই অভিযোগ এল।
আসকের কর্মকর্তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, সাদা পোশাকের একদল এই ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা চালালেও সতর্ক থাকায় নূর খান দৌড়ে কার্যালয়ে ঢুকে পড়েন। প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা সুলতানা কামালের ধারণা, তার প্রতিষ্ঠানের ইনভেস্টিগেশন ও ডকুমেন্টেশন ইউনিটের পরিচালক নূর খানকে অপহরণের পরিকল্পনাই হয়েছিল।
আসকের কার্যালয় রাজধানীর মোহাম্মদপুরে, সেখান থেকে বের হওয়ার পরপরই নূর খান দুর্বৃত্তের কবলে পড়তে যাচ্ছিলেন বলে আসকের তথ্য কর্মকর্তা আবু আহমেদ ফয়জুল কবির জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বিকাল সোয়া ৫টার দিকে নূর খান অফিস থেকে বেরিয়ে রিকশায় চড়েন। “এসময় একটি সাদা মাইক্রোবাসে ৬/৭ জন লোক তাকে ফলো করতে থাকেন। রিকশার কাছে গিয়ে মাইক্রোবাসের দরজা খোলার সঙ্গে সঙ্গে নূর খান দৌড়ে অফিসে ঢুকে পড়েন।”
ঘটনাটি মোহাম্মদপুর থানায় জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি ফয়জুল। সুলতানা কামাল সাংবাদিকদের বলেন, “অফিসের এক পরিচালকের সঙ্গে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। ধারণা করছি, তাকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছিল।” কার্যালয়ে ঢোকার পর নূর খান সেখানেই অবস্থান করছেন। নিরাপত্তাঝুঁকির কথা জানিয়ে গত ২০ এপ্রিল একটি সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন তিনি।
এই বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মদপুর থানার ওসি ওয়াজেদ আলী বলেন, একটি মাইক্রোবাস দেখে সন্দেহ হলে তিনি পুনরায় অফিসে ঢুকে পড়েন বলে জেনেছি। “কিন্তু মাইক্রোবাস থেকে তাকে কেউ টেনে গাড়িতে ওঠাতে চেয়েছিল কি না কিংবা কেউ তাকে ডাক দিয়েছিল কি না, সেটা তিনি বলেননি।” কেন নূর খানকে অপহরণের চেষ্টা করা হবে, তাও স্পষ্ট নয় ওসির কাছে।
নূর খানের জিডির বিষয়বস্তু জানতে চাইলে তিনি বলেন, “২০ এপ্রিল সকালে একজন লোক এসে তার প্রতিষ্ঠানের (আসক) দারোয়ানের কাছে তার খোঁজ নিয়েছিলেন, তবে পরিচয় বলেনি। এ নিয়ে তার সন্দেহ হয়েছিল।”
বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড এবং আইনশৃঙ্থলা বাহিনীর বিভিন্ন কার্যক্রমের কড়া সমালোচনা করে আসছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র। নারায়ণগঞ্জে অপহরণ করে সাতজনকে হত্যার ঘটনায় বুধবার এক সমাবেশে আসকের সাধারণ সম্পাদক জেড আই খান পান্না সাদা পোশাকে কাউকে গ্রেপ্তার না করার বিধান করার দাবি জানান।

প্রোব/বান/জাতীয় ১৫.০৫.২০১৪

 

১৫ মে ২০১৪ | জাতীয় | ২০:৪৫:৩৬ | ১৩:৫৩:২৭

জাতীয়

 >  Last ›