A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

'বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে যাচ্ছে' | Probe News

'বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে যাচ্ছে'


Mozina, Accident.jpgপ্রোবনিউজ,মাগুরা: মাগুরা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেছেন, বর্তমান সরকার শক্তিশালী নেতৃত্ব দিচ্ছে। সরকার পরিবর্তন চাচ্ছে। আমি অনেক দেশে গেছি। কিন্তু বাংলাদেশের মতো এমন গতিশীল, সৃষ্টিশীল, ধৈর্যশীল, পরিশ্রমী মানুষ কোথাও দেখিনি।
সোমবার সুশীল সমাজের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণ সবচেয়ে ভালো। তাই আমি দেখছি, অচিরেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে যাচ্ছে।’
মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ এশিয়ার ব্যাঘ্রশক্তিতে পরিণত হবে। এ দেশকে এশিয়ার বাঘে পরিণত করতে হলে অভ্যন্তরীণ ও বিদেশি বিনিয়োগ নিয়ে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। এ দেশে গ্যাস আছে, কয়লা আছে। এখানকার কৃষি ও খনিজ সম্পদ নিয়ে কাজ করতে হবে।’
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ দরিদ্র দেশ নয়। দরিদ্র কিছু লোক এখানে থাকতে পারে।
রাষ্ট্রদূত হিসেবে মাঠপর্যায়ে সফর সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেন, ‘প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের কাছে ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর আমি আমার পরিচয়পত্র জমা দেয়ার সময় বাংলাদেশের ৬৪টি জেলা ঘুরে দেখার আশাবাদ ব্যক্ত করেছিলাম। সেই ইচ্ছা থেকেই আমি মাগুরায় এসেছি।’
ড্যান ডব্লিউ মজীনা বলেন, ‘আমি প্রত্যক্ষ বিনিয়োগ নিয়ে কথা বলতে চাই। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র শত শত কোটি টাকা বিনিয়োগ করছে। ওই বিনিয়োগ বাংলাদেশেও আসছে। তবে এ ক্ষেত্রে ভাবতে হবে, লাভ যেখানে বেশি হবে বিনিয়োগও সেখানে যাবে। বাংলাদেশকে বিনিয়োগের জন্য নিজেকে অন্য দেশের মতো করতে হবে।
মজীনা আরও বলেন, জিএসপি ইস্যু কোনো ইস্যু নয়। ইস্যু হচ্ছে, বস্ত্র খাতে যেন রানা প্লাজা বা তাজরীনের মতো দুর্ঘটনা না ঘটে। কারখানা যেন আন্তর্জাতিকমানের হয়। শ্রমিকেরা তাদের ন্যায্য অধিকার পান।
মাগুরা সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে আজ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা। কারখানাগুলোতে শ্রমিকদের সংগঠন ছিল মাত্র একটি। ২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত তা বেড়ে শ্রমিক ইউনিয়ন হয়েছে ১৫০টি। জিএসপি-সুবিধা প্রত্যাহারের ফলে এটা নিশ্চিত হয়েছে। বস্ত্র খাতে বাংলাদেশে অপার সম্ভাবনা রয়েছে। আমি দেখতে চাই, “ব্র্যান্ড বাংলাদেশ” এক নম্বর ব্র্যান্ড হিসেবে পৃথিবীর বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াক।’
এ সময় স্থানীয় সাংসদ সিরাজুল আকবর, জেলা প্রশাসক মো. মাসুদ আহমেদ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিতি ছিলেন। রাষ্ট্রদূতের সফরসঙ্গী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের তথ্য ও যোগাযোগ বিভাগের প্রধান মেরিনা ইয়াসমিন, কালচারাল অ্যাফেয়ার্স কর্মকর্তা বিলাল ফারুকী, কর্মকর্তা জেসন উইলিয়ামস, আবদুর রহমান ও লুবাইন মাসুম উপস্থিত ছিলেন।
প্রোব/শামা/জাতীয় ১২.০৫.২০১৪

১২ মে ২০১৪ | জাতীয় | ১৬:৪৭:১২ | ১৪:২৯:৫০

জাতীয়

 >  Last ›