A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সোভিয়েত বিজয় উদযাপনে ক্রিমিয়ায় পুতিন ক্ষুব্ধ ইউক্রেনসহ মিত্র দেশগুলো | Probe News

সোভিয়েত বিজয় উদযাপনে ক্রিমিয়ায় পুতিন

ক্ষুব্ধ ইউক্রেনসহ মিত্র দেশগুলো

ukrain russiaপ্রোবনিউজ, ডেস্ক: ইউক্রেনের ক্রিমিয়াকে রুশ ফেডারেশনে যুক্ত করার পর প্রথমবারের মত অঞ্চলটি সফরে গেলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ১৯৪৫ সালে নাৎসিদের বিরুদ্ধে সোভিয়েত জয় উদযাপনের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার সিভাস্তোপুলের নৌ সদস্যদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন তিনি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা পালনের জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে ধন্যবাদ জানান পুতিন। পাশাপাশি ক্রিমিয়াকে রুশ ফেডারেশনে অন্তর্ভূক্ত করার ক্ষেত্রে অবদানের জন্যও প্রশংসা করেন তাঁদের।
এর আগে মস্কোর রেড স্কয়ারে ভাষণ দেন পুতিন। সেসময় মাতৃভ’মিকে সুরক্ষা দিতে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করা হলেও সরাসরি ইউক্রেনের নাম উচ্চারণ করেননি তিনি। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে বলা হয় গত ২০ বছরে রেড স্কয়ার প্যারেডের মত এত বড় ধরনের ইভেন্ট আর হয়নি।
এদিকে পুতিনের এ আকস্মিক সফরে ক্ষোভ জানিয়েছে ইউক্রেন সরকার। একে দেশের সার্বভৌমত্বের চরম লঙ্ঘন বলে অভিহিত করেছে তারা। পাশাপাশি সোভিয়েত বিজয় উৎসবটি আরও ছোটখাটো আয়োজনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখা যেত বলেও মন্তব্য করেছে ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ। তাদের আশঙ্কা, ব্যাপক আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান উদযাপিত হলে এর সুযোগ নিয়ে সহিংসতা তৈরি করতে পারে সশস্ত্র রুশপন্থীরা।
পুতিনের ক্রিমিয়া সফরের আগে এমনটা না করতে রুশ প্রেসিডেন্টকে আহ্বান জানিয়েছিলেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলও। তিনি বলেন, সোভিয়েত বিজয়ের দিনটিতে পুতিনের ক্রিমিয়া সফর হবে অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা।
এদিকে ইউক্রেন সরকার এবং পশ্চিমাঞ্চলের সশস্ত্রদের মধ্যে অব্যাহত রয়েছে সংঘর্ষ। বৃহস্পতিবার মারিয়াপুলে ইউক্রেনের সরকারি বাহিনী এবং সশস্ত্র রুশপন্থীদের মধ্যে সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছে। মেডিকেল সূত্রের পক্ষ থেকে তিনজন নিহত হওয়ার কথা বলা হলেও এ সংখ্যা আরও বেশি উল্লেখ করা হয়েছে বিভিন্ন গণমাধ্যমে।
১৯৫৪ সালে ইউক্রেন প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করা হয় ক্রিমিয়াকে। পরে উপদ্বীপটিতে বিপুল সংখ্যক সেনা মোতায়েন করে রাশিয়া। আর অঞ্চলটির অর্ধেকেরও বেশি জনগণকে পরিচিতি দেয়া হয় এথনিক রাশিয়ান হিসেবে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনের রুশপন্থী প্রেসিডেন্ট ভিক্টও ইয়ানুকোবিচকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর ক্রিমিয়ার বিভিন্ন অংশের দখল নিতে শুরু কওে রুশ বাহিনী। পরে এক গণভোটের মধ্য দিয়ে ক্রিমিয়াকে রুশ ফেডারেশনে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।
আর নিজেদের স্বাধীনতার দাবিতে এবার উঠে পড়ে লেগেছে দক্ষিণ ও পূর্বাঞ্চলীয় সশস্ত্র রুশপন্থীরা। এ নিয়ে রোববার গণভোটের ডাক দিয়েছে তারা। ইউক্রেন কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, দেশটির পূবৃাঞ্চলেও ক্রিমিয়া ঘটনার পুনরাবৃত্তি চান পুতিন।
প্রোব/ফাউ/আন্তর্জাতিক/০৯.০৫.২০১৪

৯ মে ২০১৪ | আন্তর্জাতিক | ১৯:৫৮:১৩ | ১৫:৩২:০৯

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›