A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সেভেন মার্ডার:চাকরিচ্যুত তিন র‍্যাব কর্মকর্তা নজরদারিতে | Probe News

সেভেন মার্ডার:চাকরিচ্যুত তিন র‍্যাব কর্মকর্তা নজরদারিতে

সেভেন মার্ডার.jpgপ্রোবনিউজ, ঢাকা:নারায়ণগঞ্জে চাঞ্চল্যকর সেভেন মার্ডার ঘটনায় চাকরিচ্যূত র‍্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তা লে. কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মাদ, আরিফ হোসেন ও নারায়ণগঞ্জ ক্যাম্পের সাবেক প্রধান লে. কমান্ডার এমএম রানা নজরদারিতে রয়েছেন।
দোষী প্রমাণিত হলে তাদেরকে ফৌজদারি আদালতের মুখোমুখি হতে হবে। এরই মধ্যে তাদের চলাফেরার ওপর অঘোষিত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। শিগগিরই তাদেরকে ওই ঘটনা তদন্তে গঠিত র‍্যাবের চার সদস্যের কমিটির মুখোমুখি করা হবে।

এদিকে তিন কর্মকর্তার ব্যক্তিগত ব্যাংক একাউন্টসহ তাদের কয়েকজন নিকটাত্মীয়েরে এ্যাকাউন্ট খতিয়ে দেখছে তদন্তকারী দল। এর আগে ওই তিন কর্মকর্তাকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠানো হয়।

নারায়ণগঞ্জের ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলামসহ সাতজনের অপহরণ ও খুনের ঘটনায় শেষ পর্যন্ত চাকরি চ্যুতির পর এই সিদ্ধান্ত আসে। নজরুলের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম চেয়ারম্যান তার জামাতাসহ সাতজনকে হত্যার জন্য এই তিন কর্মকর্তাকে সরাসরি দায়ী করে আসছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন, ছয় কোটি টাকার বিনিময়ে নূর হোসেন র্যাবকে দিয়ে এ কাজ করিয়েছে।

সেনাবাহিনী সূত্র জানিয়েছে, সেনা কর্মকর্তারা আপাতত নিজ বাসায়ই থাকতে পারবেন। মঙ্গলবার তাদের অবসর দেয়া নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এতে অকালীন অবসরের কার্যকরের তারিখ দেয়া হয় ৫ই মে অপরাহ্ণ থেকে। অবসরের পর তারা সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাবেন বলেও জানা গেছে। চাকরিচ্যুত তারেক সাঈদকে ঘটনার পর র্যাব-১১ অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে সেনাবাহিনীতে ফিরিয়ে আনা হয়।

উল্লে্খ্য, ২৭শে এপ্রিল দুপুরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড থেকে অপহৃত হন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী চন্দন সরকারসহ সাতজন। এর তিন দিন পর ৩০শে এপ্রিল শীতলক্ষ্যায় তাদের লাশ ভেসে ওঠে।

এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নূর হোসেনকে প্রধান আসামি করে মামলা করে নজরুলের পরিবার। গত রোববার নজরুলের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদ চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, ছয় কোটি টাকার বিনিময়ে র‍্যাবের তিন কর্মকর্তা ওই সাতজনকে অপহরণ ও খুন করেছেন।

সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জের ঘটনার পর তিন কর্মকর্তাকে গত ২৮শে এপ্রিল স্ব স্ব বাহিনীতে ফেরত পাঠানো হয়। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশ দেয়া হয়। মঙ্গলবার তিন কর্মকর্তাকে অবসরে পাঠানোর বিষয়টি চূড়ান্ত হয়। এ নিয়ে র্যাবের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। চার সদস্যের কমিটির প্রধান র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আফতাব উদ্দিন আহমেদ।

প্রোব/পি/জাতীয়/০৮.০৫.২০১৪

৮ মে ২০১৪ | জাতীয় | ১২:০৫:৫৮ | ১৪:৫১:৩৮

জাতীয়

 >  Last ›