A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

‘মৌলিক অধিকার নিশ্চিত ছাড়া মানবাধিকার বাস্তবায়ন সম্ভব নয়’ | Probe News

‘মৌলিক অধিকার নিশ্চিত ছাড়া মানবাধিকার বাস্তবায়ন সম্ভব নয়’

natpksfপ্রোবনিউজ, ঢাকা : শুধু ক্ষুদ্র ঋণ নয়, অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর টেকসই কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণের তাগিদ দিয়েছেন সরকারের তিন প্রভাবশালী মন্ত্রীসহ অর্থনীতিবিদরা। তারা বলেছেন, দেশের বৃহৎ এই জনগোষ্ঠীর মৌলিক অধিকার নিশ্চিত ছাড়া মানবাধিকার বাস্তবায়ন সম্ভব নয়।
রোববার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওস্থ পিকেএসএফ মিলনায়তনে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) ও কৃষি শ্রমিক অধিকার মঞ্চের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘অতি দরিদ্রদের অবস্থা ও উত্তরণের পথ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এ ছাড়া, সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশ স্বল্প আয়ের দেশের তালিকা থেকে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। পৃথিবীর অন্যান্য স্বল্প উন্নত দেশের তুলনায় বাংলাদেশের মানুষের জীবনযাত্রার মান ও আয় অনেক বেশি।’ তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা অতি দরিদ্র মানুষের উন্নয়নের জন্য রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নে কাজ করছেন। মৌলিক অধিকার ও সামাজিক উন্নয়ন করতে পারলে বাংলাদেশ বিশ্বের মধ্যে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হবে।’
পিকেএসএফের সভাপতির ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের সম্মানীয় অতিথি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য নারী ও আদিবাসীদের পিছিয়ে পড়া থেকে উত্তরণ ঘটাতে হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘সংবিধানের চার মূলনীতির মধ্যে সমাজতন্ত্র বাস্তবায়নের তাগিত রয়েছে। অতিদরিদ্রদের উত্তরণের জন্য রাষ্ট্রকে দায়িত্ব নিতে হবে। এসব বিষয় বেসরকারী খাতে দিয়ে দিলে চলবে না।’
সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী বলেন, ‘চা শ্রমিকদের উন্নয়নের জন্য সরকার এরই মধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে। চা শ্রমিকদের শিক্ষিত করার লক্ষ্যে ১৪টি বাগানে হাইস্কুল করার কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। ’
সভাপতির বক্তব্যে ড. কাজী খলীকুজ্জামান বলেন, ‘মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল অর্জন করতে হলে দারিদ্র্যতাকে কেবল একটি মাপকাটি দিয়ে বিচার বিশ্লেষণ করা যাবে না। এর বহুমাতৃতিক রূপ চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিতে হবে। অবশ্যই দারিদ্র্যতা থেকে উত্তরণের জন্য সমন্বিত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘উন্নয়ন প্রক্রিয়ার জন্য পিকেএসএফ বর্তমানে শ্রমিকদের নিজস্ব ব্যাংকিং সুবিধা লাভ করে সঞ্চয় নিশ্চিত ও প্রতিটি ইউনিয়নে অতিদরিদ্র্যদের সহায়তা প্রশিক্ষণ দিচ্ছে।’
আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কৃষি শ্রমিক চম্পা আক্তার, শারিরীক প্রতিবন্ধী আক্তার হোসেন, নীলফামারী জেলার শ্রমিক উদ্যোক্তা জাহেরা খাতুন, গাবতলীর পরিচ্ছন্নতাকর্মী রুবি আক্তার, বরিশালের দলিত সম্প্রদায়ের শ্রমিক উত্তম কুমার, পটুয়াখালী থেকে আসা রাখাইন আদিবাসী আচাং মুন, নরসিংদীর হান্নান মিয়া ও মৌলভীবাজারের চা শ্রমিক সুনীল কুমার মৃধাসহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের সদস্যবৃন্দ।
পিকেএসএফের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ফজলুল কাদের ও ড. জসীম উদ্দিনসহ বাংলাদেশ দলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর অধিকার আন্দোলন, ধরিত্রী ফাউন্ডেশন, অং হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন খেইন, প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যসহ অতিদরিদ্র সদস্যবৃন্দ আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেছেন।
প্রোব/এহ/পি/জাতীয় ০৩.০৫.২০১৪

৩ মে ২০১৪ | জাতীয় | ২০:৪২:২৭ | ১৯:১০:৫৫

জাতীয়

 >  Last ›