A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

এমপি নিক্সনের স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু: ঘটনাস্থলে যায়নি পুলিশ | Probe News

এমপি নিক্সনের স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু: ঘটনাস্থলে যায়নি পুলিশ

ফেসবুক ফটো 3প্রোবনিউজ, ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আত্মীয় সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তবে এ ঘটনা জানার পরও ঘটনাস্থলে যায়নি পুলিশ। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় রাজধানীর গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে মারা যান নিক্সনের স্ত্রী মুনতারিন মুজিব চৌধুরী (৩৩)।
এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার লুৎফুল কবীর বলেন, “মঙ্গলবার রাত ১০টার পরে হাসপাতাল থেকে নিক্সন চৌধুরীর স্ত্রীর মৃত্যুর খবর থানায় জানানো হয়। কী কারণে মারা গেছে, তা বলেনি।” অপমৃত্যুর শিকার মুনতারিনের ময়নাতদন্ত করা হবে কি না, সেই সিদ্ধান্ত নেয়নি পুলিশ।
গুলশান থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, “কেউ পুলিশকে কোন অভিযোগ করেনি বলে রাতে পুলিশ নিক্সন চৌধুরীর বাসায় যায়নি।”
গুলশান-২ এর ৭৬ নম্বর সড়কের ২০ নম্বর ৬ তলা বাড়ির চতুর্থ তলার এ-৪ নম্বর ফ্লাটে এক মেয়ে ও স্বামীসহ থাকতেন মুনতারিন।
বাড়ির নিরাপত্তারক্ষী মো. মাসুদ বলেন, “গতকাল ৬ তলা ভবনটির নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন নিরাপত্তারক্ষী মো. রবিউল। সে আমাকে বলেছে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ম্যাডাম চারতলা থেকে পড়ে যান। এরপর সবাই মিলে তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেন। সেখানেই মারা যান তিনি।”
বুধবার সকালে ওই বাড়ির সামনে লোকজন জড়ো হতে থাকে। কিভাবে মুনতারিন মারা গেলেন সে বিষয়ে পরিবারের বক্তব্য জানতে কোনো সাংবাদিকও ওই বাড়িতে ঢুকতে পারেননি।
নিরাপত্তারক্ষী মো. মাসুদ বলেন, “স্যার অসুস্থ হয়ে অক্সিজেন নিচ্ছেন। তিনি কারো সঙ্গে কথা বলতে পারবেন না।”
ফেসবুক ফটো 2নিক্সনের পাশের আসন শিবচর থেকে গুলশানে ছুটে আসা শিবচর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে বলেন, “হার্ট অ্যাটাক করে ভাবি মারা গিয়েছেন শুনে এলাকা থেকে ছুটে এসেছি।” কয়েক ঘণ্টা বাইরে দাঁড়িয়ে থেকেও ভেতরে প্রবেশ করতে পারেননি তিনিও।
ফরিদপুরের ভাঙ্গা-সদরপুর-চরভদ্রাসনের এই সাংসদের পারিবারিক বন্ধু পরিচয় দিয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরেক ব্যক্তি বলেন, “রাতে ঝড় হলে পৌনে ৯টার দিকে মুনতারিন বারান্দার ফুলের বাগানে যান। এরপর পানিতে পা পিছলে চারতলা থেকে মাটিতে পড়ে যান।”

সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা খন্দকার জাহিদুর রহমান বুধবার বলেন, “ছয়তলা বাসার ছাদ থেকে পা পিছলে পড়ে গিয়েছিলেন মুনতারিন চৌধুরী।”
ইউনাইটেড হাসপাতালের কর্মকর্তা (ডিউটি ম্যানেজার) মোহাম্মদ মিনহাজ বলেন, “মঙ্গলবার রাত ৮টা ৩৮ মিনিটে তাকে (মুনতারিন) হাসপাতালে আনা হয়।
“ছাদ থেকে পড়ার ইনজুরি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। পরে আইসিইউতে রাখা হয়, সেখানে তার মৃত্যু হয়।” স্ত্রী ‘পড়ে যাবার’ সময় সাংসদ নিক্সন বাসায় ছিলেন বলে জানান তার ব্যক্তিগত কর্মকর্তা।
মুনতারিনের মৃত্যু নিয়ে বিভিন্ন ধরনের সন্দেহের প্রতিক্রিয়ায় জাহিদুর রহমান বলেন, “এটি আত্মহত্যা নয়। উনি পা পিছলে পড়ে গিয়েছিলেন।”
আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য নূর-ই আলম চৌধুরীর (লিটন চৌধুরী) ভাই নিক্সন চৌধুরী দশম সংসদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন ফরিদপুর-৪ আসনে। সেখানে আওয়ামী লীগ প্রার্থী কাজী জাফরউল্লাহকে হারিয়ে বিজয়ী হন তিনি।
নিক্সন প্রধানমন্ত্রীর ফুফাতো ভাইয়ের ছেলে। নিক্সনের মাও প্রধানমন্ত্রীর ফুফাতো বোন। পদ্মাসেতু নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল দুর্নীতি দমন কমিশন।
সর্বশেষ নির্বাচনের আগে ফরিদপুরে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী নিক্সনকে ইঙ্গিত করে জনসভায় বলেন, পদ্মাসেতুতে জড়িতদের কেউ তার আত্মীয় নন।
পোব/পি/খোআ/জাতীয় ৩০.০৪.২০১৪

৩০ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ২১:২৬:৩৭ | ১৯:১৩:৩৭

জাতীয়

 >  Last ›