A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সাঈদীর রায়ে বগুরায় তাণ্ডব: অন্যতম আসামি গ্রেপ্তার | Probe News

bogura14.jpgসাঈদীর রায়ে বগুরায় তাণ্ডব: অন্যতম আসামি গ্রেপ্তার

প্রোবনিউজ, বগুড়া: বগুড়ার শেরপুরে এরশাদুল বারী নামের জামায়াত-শিবিরের সমর্থিত শ্রমিক সংগঠনের এক নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উপজেলার নয়মাইল এলাকা থেকে সোমবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
পুলিশ জানিয়েছে, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায়ের পরে গত বছরের ৩ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত বগুড়ায় চালানো জামায়াতের তাণ্ডব ও সহিংসতার ঘটনায় এরশাদুলের বিরুদ্ধে ১২টিরও বেশি মামলা আছে ।
এরশাদুল বারী জামায়াত-সমর্থিত শ্রমিক সংগঠন শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন জেলা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। তিনি বগুড়া পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর।

বগুড়া পুলিশ সুপার মো. মোজাম্মেল হক বলেন, জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায়ের পরে গত বছরের ৩ মার্চ থেকে শুরু করে বিভিন্ন সময়ে বগুড়ায় জামায়াতের চালানো তাণ্ডব, হত্যা, সহিংসতা, অগ্নিসংযোগের ঘটনায় এরশাদুলের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। তাঁর নেতৃত্বেই ওই সময়ে বগুড়ায় বেশির ভাগ সহিংসতার ঘটনা ঘটে বলে তিনি দাবি করেন।
পুলিশ সুপার মো. মোজাম্মেল হক আরও বলেন, পুলিশ দীর্ঘদিন ধরে এরশাদুলকে খুঁজছিল। তিনি পলাতক ছিলেন।

ইসলামী ছাত্রশিবিরের শহর কমিটির প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান বলেন, এরশাদুল বারী জামায়াত-সমর্থিত শ্রমিক সংগঠন শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন জেলা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।
জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায় ঘোষণার পর গত বছরের ৩ মার্চ বগুড়ায় তাণ্ডব চালায় জামায়াত-শিবির। ওই ঘটনায় জেলার বিভিন্ন থানায় ৫৬টি মামলা হয়। এর মধ্যে ৫০টি মামলার অভিযোগপত্র এবং পাঁচটি মামলার চূড়ান্ত অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করা হয়েছে।

গত বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি জামায়াত নেতা সাঈদীর মৃত্যুদণ্ডাদেশের রায়কে কেন্দ্র করে ৩ মার্চ হরতাল ডাকে জামায়াত-শিবির। এর আগের রাত থেকে প্রচার করা হয়, ‘সাঈদীর মুখ চাঁদে দেখা গেছে’। তাঁকে রক্ষার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। এতে হাজার হাজার মানুষ বগুড়ার থানা ও পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তাঁরা পুলিশের অস্ত্র লুট করে। শহরের ছয়টি পুলিশ ফাঁড়িতে আগুন দেওয়া হয়। এসব ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে জামায়াত-শিবিরের সংঘর্ষে ১০ জন মারা যান।
প্রোব/খোআ/জাতীয় ২৮.০৪.২০১৪

২৮ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ১৪:১৬:৩০ | ১০:৫২:২১

জাতীয়

 >  Last ›