A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

‘রানা প্লাজা ট্রাজেডি বিষয়ে সরকারের আন্তরিকতার অভাব রয়েছে’ | Probe News

cpd002প্রোবনিউজ, ঢাকা: সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)-এর চেয়ারম্যান প্রফেসর রেহমান সোবহান বলেছেন, গার্মেন্টস শ্রমিকদের বিশেষ করে রানা প্লাজার দুর্ঘটনায় নিহত, আহত কিংবা নিখোঁজদের বিষয়ে সরকারকে একটি কমিশন গঠন করতে হবে। এর সঙ্গে দেশের সিভিল সোসাইটিকে এগিয়ে আসতে হবে। কাজ করতে হবে ঐক্যবদ্ধভাবে।
বুধবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ১৫টি বেসরকারি সংগঠনের সহযোগিতায় সিপিডি আয়োজিত রানা প্লাজা দুর্ঘটনা এক বছর শীর্ষক এক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় তিনি বলেন, রানা প্লাজায় গত বছরের ২৪ এপ্রিলের ওই দুর্ঘটনায় যারা হাত পা হারিয়েছেন কিংবা নিখোঁজ হয়েছেন তাদের এখন সরকার গুরুত্ব সহকারে দেখছে না। এ ধরণের দায়িত্ব অবহেলা কোনো গণতান্ত্রিক সরকার ব্যবস্থায় হতে পারে না। এ বিষয়ে সরকারের আন্তরিকতার ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে।
রেহমান সোবহান বলেন, এ সরকার গার্মেন্টস শ্রমিকদের সম্পর্কে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা করতে ব্যর্থ হয়েছে। এই দায়ভার কোনোভাবে সরকার এড়াতে পারে না। তিনি বলেন, এই মূহূর্তে যা দেখছি তা দেশীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে কোনো ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটেনি। বিশেষ করে আহতদের দীর্ঘ মেয়াদী চিকিৎসা বিষয়ে। ছয় মাস আগে যা ছিলো এখনো প্রায় একই অবস্থা বিদ্যমান।
সরকারি দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা উল্লেখ করে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য এমপি শিরিন আকতার বলেন, কোনো দুর্ঘটনা ঘটার আগেই তার প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। কোনোভাবেই অপরাধীদের ছাড় দেয়া যাবে না। একই সাথে ক্রটিপূর্ণ ভবনের মালিকদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অনুষ্ঠানে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মিকাইল শিপার বলেন, সরকার যে খুব ভালোভাবে দায়িত্ব পালন করতে পেরেছে তা নয়। তবে এ বিষয়ে সরকারের আন্তরিকতার কোনো অভাব ছিলো না। এরই মধ্যে দেশে বিল্ডিং কোড, বিল্ডিং সম্পর্কিত আইন সংশোধন নিয়ে কথা চলছে।
সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির অতিরিক্ত গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। এ সময় তিনি বলেন, রানা প্লাজার এক বছর পরেও জলন্ত অবস্থা দেখা যাচ্ছে। প্রাপ্তি বা অপ্রাপ্তির হিসেব মিলছে না। বিভিন্ন সংস্থার হিসেব মতে এখনো এক হাজার জন শ্রমিক কাজে যোগদান করতে পারেনি। আহতদের মধ্যে দীর্ঘ মেয়াদী চিকিৎসা পেয়েছেন মাত্র ৩৬ জন ব্যক্তি।
দুর্ঘটনার শিকার শ্রমিকরা অনেকে ক্ষতিপূরণ বা আর্থিক সহায়তা পাননি উল্লেখ করে তিনি বলেন, এক বছর পর হলেও ওই শ্রমিকদের পূর্ণাঙ্গ বেতন এখনো দেওয়া হয়নি। এর উপর আবার নিখোঁজ হয়েছেন অনেকে। ২৯১ নিহতের মধ্যে ডিএনএ চিহ্নিত হয়নি ৮৫ জনের। যা সরকারের চরম ব্যর্থতা হিসেবে দেখা যেতে পারে।
এছাড়া সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ।
প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৪ এপ্রিল সভারের রানা প্লাজায় ভবন ধসে ১১৩৮ জন নিহত হন। এর অধিকাংশই গার্মেন্টস শ্রমিক। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অনেকে।
প্রোব/খোআ/জাতীয় ২৩.০৪.২০১৪

২৩ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ১৯:২৯:৫২ | ১৬:২৯:৪৫

জাতীয়

 >  Last ›