A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

প্রসিকিউশনে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের তালিকা জমা দেয়া তদন্ত সংস্থার মুর্খতা | Probe News

shah riar.jpgবেলায়েত হোসাইন, প্রোবনিউজ: দল হিসেবে জামায়াতের বিচারের পাশাপাশি জামায়াত সংশ্লিষ্ট শতাধিক প্রতিষ্ঠানের একটি তালিকা প্রসিকিউটরের কাছে জমা দিয়েছে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা। এর ভেতরে জামায়াত নিয়ন্ত্রিত প্রতিষ্ঠান এক তৃতীয়াংশ। অন্যগুলোর সঙ্গে জামায়াতের কোন সংশ্লিষ্টতা নেই বলে দাবি করেছেন জামায়াত নেতারা। এ প্রসঙ্গে প্রোবনিউজের সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘ফরমাল চার্জ গঠনের জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রসিকিউশনে জমা দেয়া তদন্ত সংস্থার মুর্খতা ছাড়া আর কিছুই নয়।’

তিনি বলেন, ‘১৯৭১ সালে মানবতা বিরোধী অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলো জামায়াতে ইসলামী। এর সঙ্গে তো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সম্পর্ক থাকতে পারে না। কারণ, একাত্তরেতো এসব প্রতিষ্ঠানের কোন ভূমিকা ছিলো না। অথবা সেগুলোর জন্মও হয়নি তখন। ’

নির্মূল কমিটি সভাপতি বলেন, ‘মীর কাসেম আলী ইসলামী ব্যাংকের মালিকানায় আছেন। মানবতা বিরোধী অপরাধ করেছেন তিনি। তাই বলে ইসলামী ব্যাংক তো বিচারের মুখোমুখি হতে পারে না। কারণ, ১৯৭১ সালে ইসলামী ব্যাংকের জন্মও হয়নি। তাছাড়া ইসলামী ব্যাংক মীর কাসেম আলীর একার নয়। মীর কাসেম আলীর বিচার হলে তার সম্পদের ব্যাপারে সরকার সিদ্ধান্ত নেবে।’

শাহরিয়ার কবির আরো বলেন, ‘জামায়াত একটি সন্ত্রাসী সংগঠন। সেই হিসেবে জামায়াতের বিচার হতেই হবে। তাই বলে জামায়াত সংশ্লিষ্ট কোন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিচার হতে পারে না। জামায়াতের বিচারের পরেই সংশ্লিষ্ট সম্পদ বাজেয়াপ্ত করবে, না কি নিষিদ্ধ করবে তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া যেতে পারে। তবে হ্যাঁ, জামায়াতের সহযোগী সংগঠনগুলোর বিচার করতে হবে। যেমন- আল বদর, রাজাকার, আল-শামস এগুলোর বিচার করতে হবে।’

এসব আর্থিক প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্ত করে কোন লাভ নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় প্রসিকিউশন এটা গ্রহণ করবে না। আর গ্রহণ করলেও ট্রাইবুন্যাল তা খারিজ করে দেবে।’

প্রোব/বিএইচ/পি/জাতীয়/২০.০৪.২০১৪

২০ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ১৯:৫২:৩৪ | ১১:৪৯:৩৯

জাতীয়

 >  Last ›