A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সাঈদীর মামলার চূড়ান্ত রায়ের পর কঠোর প্রতিক্রিয়ার প্রস্ততি জামায়াতের | Probe News

Saeedi 2.jpgবেলায়েত হোসাইন, প্রোবনিউজ : জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর মাওলানা দেলোওয়ার হোসাইন সাঈদীর যুদ্ধাপরাধ বিষয়ক রায় দেয়া হবে যেকোনো দিন। এ রায়ে ট্রাইব্যুনালের দেয়া ফাঁসি বহাল থাকুক বা যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হোক তা নিয়ে কঠোর প্রতিক্রিয়া দেখাবে তার দল জামায়াতে ইসলামী। এরই মধ্যে রায়ের প্রতিক্রিয়ামূলক আন্দোলন করার সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন করেছে দলটি। জামায়াতের নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।
জামায়াতের নীতি নির্ধারণী সূত্র জানিয়েছে, সাঈদীর রায়ের প্রতিবাদে প্রতিক্রিয়া দেখাতে সারা দেশকে ১৫টি অঞ্চলে ভাগ করেছে দলটি। এই অঞ্চলগুলোর পরিচালক হিসাবে রয়েছে দলটির একজন করে কর্মপরিষদ সদস্য। প্রত্যেক অঞ্চলের পরিচালকের সহযোগী হিসেবে রয়েছেন ৩-৪ জন করে সাবেক জেলা আমীর।
সূত্র জানায়, এরই মধ্যে ১৫টি অঞ্চলের পরিচলকরা তাদের অধিনস্থ জেলাগুলোতে সফর সম্পন্ন করেছেন। প্রত্যেক জেলার নেতা, কর্মী ও অনুসারীদের দেয়া হয়েছে বিশেষ মোটিভেশন। এদিকে জামায়াতের নির্দেশনা অনুযায়ী শিবিরের কেন্দ্রিয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সংগঠনটির ১৩৪টি সাংগঠনিক শাখায় সফর করেছেন। দিয়েছেন আন্দোলনের প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা।
তবে সব জেলায় একযোগে আন্দোলনের ডাক দিলেও জামায়াতের মূল টার্গেট ৪৩টি জেলা বলে জানা গেছে। এই ৪৩টি জেলায় হার্ডলাইনে থাকবে দলটি। এর জন্য জেলাগুলোর প্রত্যেকটি ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও থানা শাখায় জামায়াত ও শিবিরের সমন্বয়ে আলাদা কমিটি গঠন করা হয়েছে। ফরিদপুর, শরিয়তপুর, গোপালগঞ্জসহ বাকি ২১টি জেলায় জামায়াত অনেকটা নমনীয় ভাব নিয়ে আন্দোলন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

জামায়াতের সূত্র বলছে, মহিলাদের মাঠে নামাতেও কাজ করে যাচ্ছে জামায়াতে ইসলামী। রায় সাঈদীর বিপক্ষে গেলে লাঠি-ঝাড়ু– মিছিল নিয়ে মাঠে নামতে প্রস্তুত করা হচ্ছে মহিলাদের। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে ‘সাঈদী মুক্তি পরিষদ’ এর ব্যানারে সাঈদী মুক্তি মঞ্চ বানানোর প্রস্ততি নেওয়া হচ্ছে।
সূত্রটি বলছে, উপজেলা নির্বাচনের সময়কে কাজে লাগিয়ে সাঈদী রায়ের প্রতিবাদ আন্দোলনের ব্যপক হোমওয়ার্ক করেছে জামায়াতে ইসলামী। ওই সময়ে কৌশলে ব্যক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমে দলভুক্ত করা হয়েছে অনেক নতুন সদস্য।
সূত্র আরো জানায়, সরকার জামায়াতকে ঠেকাতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি যদি ছাত্রলীগ-যুবলীগকে মাঠে নামায় তা হলে সরকারি এই দুই অংগ সংগঠনের কর্মীদের ব্যাপকভাবে মোকবেলা করবে জামায়াতে ইসলামী।
এ প্রসঙ্গে জামায়াতের কেন্দ্রিয় মজলিসে শুরার সদস্য ও শিবিরের সাবেক কেন্দ্রিয় সভাপতি ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস ন্যায়বিচার পাবো। আর সরকার যদি অন্যায়ভাবে সাজা দেয়ার চেষ্টা করে তা হলে জনগণ রাজপথে নেমে এসে প্রতিবাদ জানাবে। ফাঁসি বহালতো দূরের কথা মাওলানা সাঈদীকে একদিনের সাজা দিলেও এদেশের মানুষ তা কোনভাবে মেনে নিবে না। জনগণ গণ-প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।’
প্রসঙ্গত, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মৃত্যুদন্ডাদেশের বিরুদ্ধে করা আপিলের রায়কে অপেক্ষমাণ রেখেছে আপিল বিভাগ। গত ১৬ এপ্রিল প্রধান বিচারপতি মোঃ মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ এটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ (সিএভি) রাখার আদেশ দেন। এর আগে বিচারিক আদালতে দায়ের হওয়া পিরোজপুরের ইব্রাহিম কুট্টি হত্যা মামলার নথি তলব বা তদন্তের বিষয়ে আসামিপক্ষ ও রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন দু’টি খারিজ করে আদালত। সাঈদীর বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে ২০টি অভিযোগে চার্জ গঠন করা হয়েছিল। এরমধ্যে আটটি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে বলে ট্রাইব্যুনালের রায়ে বলা হয়েছে। ওইসব অভিযোগের দু’টিতে তাকে ফাঁসির দণ্ড দেওয়া হয়েছে। বাকি ছয়টি অভিযোগে খালাস পেয়েছেন তিনি।
প্রোব/বিএইচ/আপা/পি/রাজনীতি/১৯.০৪.২০১৪

 

২০ এপ্রিল ২০১৪ | রাজনীতি | ১০:৫২:৫৩ | ২২:৫৭:১৪

রাজনীতি

 >  Last ›