A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

‘মোবাইল মেসেজে জীবনের আকুতি’ | Probe News

Ferry.jpgপ্রোবনিউজ, ডেস্ক: “তোমাকে অনেক ভালোবাসি মা। তবে আর কোনোদিন হয়তো এই কথাটা বলতে পারব না তোমাকে।” দক্ষিণ কোরিয়ার ডুবে যাওয়া ফেরির মৃত্যুপথযাত্রী সন্তান মুঠোফোনের বার্তায় এ কথা লিখে পাঠিয়েছে মাকে। একসময় বন্ধ হয়ে গেছে সংযোগ। মা এখনও জানেন না, আর কখনও ভালোবাসার কথা বলতে পারবে কিনা স্নেহের সন্তান।
এমনি করেই মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে স্বজনদের কাছে তাদের ভালোবাসা ভয় আর হতাশার কথা জানিয়েছে ডুবে যাওয়া ফেরিতে থাকা কিশোররা। বুধবার ডুবে যাওয়া ফেরিটির বেশিরভাগ যাত্রীই ছিল মাধ্যমিক স্কুলের ছাত্র। ছুটি কাটানোর জন্য দ্বীপে যাচ্ছিল তারা। ফেরি ডুবির পর, জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে নিজেদের শেষ কথাগুলোই হয়তো তারা পৌঁছে দিতে চেয়েছে মেসেজের মাধ্যমে।
তাদের পাঠানো সে মেসেজগুলো বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয় স্থানীয় গণমাধ্যমে। স্তব্ধ হয়ে পড়ে পুরো জাতি। মেসেজে ষোল বছর বয়স্ক এক ছাত্র কিম ওয়াং কিং তার বড় ভাইয়ের নিকটে সাহায্য চান। তিনি ওই মেসেজে জানান ফেরিটার এক অংশ ডুবে গেছে এবং তার কামড়াটি প্রায় ৪৫ডিগ্রি কাত হয়ে আছে। মোবাইলটা ভাল কাজ করছেনা। কিং এর ভাই যেকোনভাবে সাহায্য করার আশ্বাস দিলেও একসময় নিরবতা নেমে আসে। বন্ধ হয়ে যায় কিং এর সেলফোন।
ফেরিটা ডুবে যাবার কিছুক্ষণ আগে অভিভাবকেরা তাদের সন্তানদের ফোন পেয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন জানান তার সন্তান তাকে মেসেজে বলেন “ফেরিটা কাত হয়ে যাচ্ছে আমি চারদিকে কিছুই দেখতে পারছিনা”। অন্য আর একজন মা জানান আমার সন্তানের সাথে আমার ফোনে কথা হয় সে আমাকে জানায় এখোনো লাইফ জ্যাকেট পরা হয়নি। পরবর্তীতে ফোনটা বন্ধ হয়ে যায়।
বুধবার ৪৭০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার ফেরি ডুবির একদিন পরও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ প্রায় তিনশো মানুষের। বুধবার রাতভর অভিযানের পর অনুসন্ধান অব্যাহত রয়েছে বৃহস্পতিবারও। কর্তৃপক্ষের দেয়া সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী, অন্তত ৯টি মৃতদেহ এবং ১৭৯ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।
প্রোব/শামা/আর্ন্তজাতিক/১৭.০৪.২০১৪

১৭ এপ্রিল ২০১৪ | আন্তর্জাতিক | ১৯:৫২:৪০ | ১৬:০৭:৪৩

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›