A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

আজ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস | Probe News

প্রোবনিউজ, ঢাকা: ১৭ এপ্রিল। আজ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের এই দিনে মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে অনাড়ম্বর পরিবেশে শপথ নিয়েছিলেন অস্থায়ী সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যরা।
জাতি যথাযোগ্য মর্যাদায় মুজিবনগর দিবস উদযাপন করে আসছে। দিনটিতে বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন হাতে নিয়েছে বিভিন্ন কর্মসূচি। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

মুজিবনগর সরকার গঠনের আগমুহূর্তেও বৈদ্যনাথতলা ছিল এক অপরিচিত গ্রাম। ৭১’র ১৭ এপ্রিল বাংলাদেশ অস্থায়ী সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে মেহেরপুরের এ গ্রামটির নামকরণ করা হয় মুজিবনগর। ১৭ এপ্রিল শপথ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ ঘোষণা করেন, আজ থেকে বৈদ্যনাথতলার নাম হবে মুজিবনগর।

এ দিনে মুজিবনগরের অস্থায়ী সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করে। ৭১-এর ২৫ মার্চ রাতে শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণার পর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কারাগারে বন্দি থাকায় তার অনুপস্থিতিতে সৈয়দ নজরুল ইসলাম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি, তাজউদ্দীন আহমদ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। এ সময় ক্যাপ্টেন মনসুর আলী অর্থ, এ এইচ এম কামরুজ্জামান ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

অনুষ্ঠানে কর্নেল আতাউল গনি ওসমানীকে প্রধান সেনাপতি ঘোষণা করা হয়। শপথ অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হিসেবে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন।

এ দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি তাঁর বানীতে আশা প্রকাশ করেছেন, দেশের তরুণপ্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানার পাশাপাশি দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে জাতিগঠনমূলক কাজে অবদান রাখবে।

তিনি বলেন, “বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান স্বাধীনতা। স্বাধীনতা সংগ্রামের গৌরবময় ইতিহাস তরুণ প্রজন্মের কাছে সঠিকভাবে তুলে ধরা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বাণীতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের প্রেরণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশবাসীকে বঙ্গবন্ধুর কাঙ্ক্ষিত ক্ষুধা, দারিদ্র্য, নিরক্ষরতামুক্ত, শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ার কাজে আত্মনিয়োগ করার উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “জাতির চরম দুর্দিনেও যে গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক ধারা ঊর্ধ্বে তুলে এগিয়ে চলা যায়, ১৭ এপ্রিল জাতীয় ইতিহাসে তার এক অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে আছে।”
প্রোব/ খোআ/ জাতীয়/ ১৭.০৪.২০১৪

 

১৭ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ১১:২৫:৩৮ | ১৪:০৭:০৪

জাতীয়

 >  Last ›