A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

বৈশাখে নেই কোন ভেদাভেদ | Probe News

8.JPGপ্রোব নিউজ, ঢাকা: পহেলা বৈশাখকে ঘিরে উচ্চবিত্ত কি নিম্নবিত্ত সর্বত্রই লেগেছে প্রাণের সঞ্চার। নতুন বছরকে বরণ করে নিতে ব্যস্ত সকলে। বাঙালির এ প্রাণের উৎসবে নিজেদের বর্ণিল সাজে সাজিয়ে তুলতে চেষ্টার কোন ত্রুটি থাকে না তাদের। আর তাই প্রতিবছর বৈচিত্র্য নিয়ে হাজির হয় দেশিয় ফ্যাশন হাউসগুলো। আর পাশাপাশি ফুটপাতেও চলে হকারদের বেচা-কেনা।
রাজধানীতে দেশীয় পোশাকের সমাহার আজিজ সুপার মার্কেট থেকে শুরু করে আজিমপুর কলোনির একাধিক ফেরি বা ভাসমান দোকানে দেখা গেছে প্রচন্ড ভীড়। বৈশাখের আমেজ যেন পুরোদমে লেগেছে আজিজ সুপার মার্কেটে। তবে মূল ধারার এ দোকানগুলোর বাইরে ফেরি করে বৈশাখের পোশাক বিক্রি করতে দেখা গেছে কয়েকজনকে । তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতি বছর এসময় আসলেই তারা ফেরি করে বৈশাখের বিভিন্ন সামগ্রী বিক্রি করে থাকেন। এতে করে অল্প সময়ের মধ্যে বেশ ভালো আয় করা যায়। তিনি বলেন, প্রতিদিন ছয় থেকে আট হাজার টাকার বিক্রি হয়। এসময় এক ক্রেতার (গার্মেন্টস কর্মী) সাথে কথা হয়। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে ঈদের আনন্দের মতোই মনে হয় বৈশাখের আনন্দ। তাই প্রতি বছর পহেলা বৈশাখ আসলেই নতুন পোশাক কিনতেই হয়।’
নিউমার্কেট এবং গাউছিয়া মার্কেটের বাইরে ফেরি করে বৈশাখের পোশাক বিক্রি করছেন হালিম ও আজহার নামের দুই ব্যক্তি। তাদের কাছে বেশির ভাগ পোশাকই পহেলা বৈশাখের। তারা সারা বছরই ফুটপাতে গার্মেন্টেস ব্যবসা করেন। তবে বছরের এ সময় আসলেই শুধুমাত্র বৈশাখের রঙে আঁকা বিভিন্ন পোশাক বিক্রি করে থাকেন। তারা বলেন, প্রতিবছর বৈশাখের আগে অল্প সময়ের মধ্যে অনেক বেশি বিক্রি করা যায় বলেই এই পোশাকগুলো বিক্রি করে থাকি। এতে লাভও বেশি হয়।
রাজধানীতে বিভিন্ন এলাকার গৃহপরিচারিকাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে তারাও পহেলা বৈশাখকে বরণ করে নিতে এ দিনে বাহারি রঙের শাড়ি পড়বেন। বাড়িতে তৈরি করবেন নানা রকমের বৈশাখী খাবার। এরা কেউ কেউ শাড়ি কিনেছেন আবার কেউ বাড়ির মালিকের কাছ থেকে বৈশাখ উপলক্ষে উপহার পেয়েছেন। তাদের চোখে মুখে এখন আনন্দের ছোঁয়া।
প্রোব/খোআ/মুআ/জাতীয় ১৩.০৪.১৪

১৩ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ২১:৫৮:১৪ | ১১:৪৮:৫৩

জাতীয়

 >  Last ›