A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

রাজধানীর বিপণী বিতানে বৈশাখের আমেজ | Probe News

Pohela+Boishakh-1420++Bangla+New+Year-2013.jpgপ্রোবনিউজ, ঢাকা: চিরাচরিত নিয়মে বৈশাখকে বরণ করে নিতে পোশাকে লাল-সাদার আধিক্য থাকলেও গত কয়েক বছর ধরে তা রূপ পেয়েছে ভিন্নতা। লাল-সাদার পাশাপাশি বাঙালির প্রিয় এই মাসের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ আকাশি, গোলাপি, সবুজ, লেমন গ্রিন, কমলাসহ বিভিন্ন রঙের উপস্থিতি বাঙালির এ প্রাণের উৎসবকে করে তুলেছে আরও বর্ণিল।
এবারও বৈশাখের পোশাকে থাকছে ঋতুভিত্তিক রঙের ছোঁয়া। বৈশাখী পোশাক হিসেবে মেয়েদের রয়েছে বাহারি রঙের শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, টিউনিক, আর কারুকাজ করা টপস। ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবি, ধুতি-পাজামা, শার্ট, টি-শার্ট, পলো টি-শার্ট। তরুণদের বৈশাখের পাঞ্জাবির কালেকশনে লম্বা বা মাঝারি পাঞ্জাবী, পাশাপাশি জিন্সের সঙ্গে পরার উপযোগী শর্ট পাঞ্জাবিও রয়েছে। এবার বৈশাখের কালেকশনে শিশুদের জন্য ছিল ভিন্নধর্মী ডিজাইন ও বাহারি রঙের বৈশাখী লুঙ্গি, পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, শার্ট, ফতুয়া, ফ্রক। বর্ণ-শ্রেণীভেদে সবাইকে একইসূত্রে গাঁথতে যে উৎসবের আয়োজন তার ছোঁয়া থেকে দূরে নেই নি¤œ বিত্তরাও। তারাও প্রাণের উৎসবকে বরণ করতে কিনছে পছন্দের পোশাক।
রাজধানীর ধানমন্ডি, গুলশান, আজিজ সুপার মার্কেট, কাঁটাবন, এলিফ্যান্ট রোড, নিউমার্কেট, মিরপুর এবং উত্তরাসহ বিভিন্ন মার্কেটে ছিল গত সপ্তাহে বৈশাখের পোশাকের বাহারি প্রদর্শনী। রাজধানীর মার্কেটগুলো ঘুরে দেখা গেছে, ছেলেদের টি-শার্ট ও ফতুয়া ১৯০-৪৫০ টাকা, পাঞ্জাবি ৫০০- ১৫০০ টাকা এবং মানভেদে এর চেয়ে কম-বেশি দামে পাওয়া যাচ্ছে। বৈশাখে শিশুদের পাঞ্জাবি ৩০০ থেকে এক হাজার টাকার উপরে, টি-শার্ট ১৫০- ৩৫০ টাকা, শার্ট ২০০- ৫০০ টাকা, ফতুয়া ২০০-৩৫০ টাকা।
মেয়েদের সালোয়ার-কামিজ ৬০০ থেকে ২ হাজার টাকার উপরে, ফতুয়া ২৫০-৪৫০ টাকা, শাড়ি ৫০০ থেকে ৫ হাজার টাকা বা তার উপরে। মেয়েদের জন্য মাটি ও কাঠের তৈরি বিভিন্নPohela-Boishakh.jpg গহনাও পাওয়া যাচ্ছে বৈশাখ উপলক্ষ্যে। গলার ও কানের দুল সেট ২৫০ টাকা, চুড়ি ২০০-৫৮০ টাকা, গলার সেট ১৭০ টাকা, কানের দুল ১০০-২৫০ টাকা, লকেট ৪৫০ থেকে ১ হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে মার্কেটভেদে পোশাকের দামে কিছুটা তারতম্য রয়েছে।
দেশি পোশাকের সমাহারের কারণে আজিজ সুপার মার্কেটের দোকানগুলোকে বৈশাখের আমেজ ছিল অনেকটাই বেশি। ‘মেঘ’ আয়োজন করেছে ছোট-বড় সকলের জন্য সাদা রঙের বৈশাখী টি-শার্ট, পাঞ্জাবী, ফতুয়া। বাচ্চাদের জন্য জন্য নানা রঙের নকশা করা পাঞ্জাবি-ফতুয়া। তরুণীদের জন্য টপস আর কোর্তা। ম্যানেজার আল-আমীন বিশ্বাস জানান, ‘এবার সবচেয়ে বেশি বৈশাখী পোশাক এনেছি। পোশাকগুলোর মান ভালো থাকায় চাহিদা বাড়ছে। বেচা-বিক্রিও ভালো চলছে।’
ফ্যাশন হাউস ‘রঙ’ এবার বৈশাখে ঐতিহ্যবাহী লুঙ্গির মোটিভ শাড়ি, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, সালোয়ার-কামিজ, কোর্তা, টি-শার্ট, কটি, টুপি, ব্যাগ, গহনাসহ ইত্যাদিতে বিভিন্নভাবে ব্যবহার করেছে। বৈশাখে যেহেতু প্রচন্ড গরম থাকে, তাই পোশাকগুলোতে আরামদায়ক পাতলা সুতি কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে। লাল, কালো, হলুদ, নীল, বেগুনি, মেজেন্ডা, সাদা ছাড়াও গ্রামবাংলার উজ্জ্বল রংগুলো ব্যবহার হয়েছে পোশাকগুলোয়।
দোকানগুলোতে ভীড় চোখে পড়ার মতো। আজিজ সুপার মার্কেটের নক্ষত্র, খেয়া, ব্যাঙ, প্লাস পয়েন্ট, বার্ডস আই, নববী, ইজি, আরশী, সাদা-কালো, অপোস, বাংলার রং, বিচিত্রা, ক্যাটস আই, রংধনু, উৎসব, গ্রামীন ইউনিক্লো, রিচ ম্যান, সিলভার, নিউ সিনড্রেলা, লা রিভ ও জেন্টল পার্কসহ বিভিন্ন ব্যান্ড বৈশাখের পোশাকের উপর বিশেষ ছাড় দিচ্ছে।

বৈশাখ উপলক্ষে কেনাকাটা করতে আসা সুফিয়া কামাল হলের শাহীনা আক্তার বলেন, ‘একটা সবুজ রঙের শাড়ি কিনেছি। দাম বেশি নিলেও পছন্দের পোশাক কিনতে পেরে আনন্দিত।’

বৈশাখের বেচা-কেনা থেকে দূরে নেই ফুটপাথগুলোও। আজিমপুর কলোনির ফুটপাথে বিক্রি হচ্ছে তরুণীদের পোশাক ও প্রসাধনী সামগ্রী। মেয়েদের সাদা-কালো বৈশাখী শাড়ি, বাহারি রঙের টপস, কুর্তি, থ্রি-পিস, সালওয়ার কামিজ, মোটিফ ড্রেস ও লেগিংস প্যান্টসহ বিভিন্ন ধরনের পোশাক। ফুটপাথের দোকানে বিক্রি হচ্ছে মেয়েদের কাঁচের চুড়ি, লিপস্টিক, নেইল পলিশ, মাশকরা, কাজল। আজিজ সুপার মার্কেটের মর্মর শো-পিস হাউসে বাঙলার ঐতিহ্যের মার্বেল পাথরের বিভিন্ন গিফট আইটেম পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়াও রয়েছে বৈশাখের নানা ধরনের মাটি ও কাঠের গহনা।
বাবা-মা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন, প্রিয়জন, বন্ধু-বান্ধবকে সঙ্গে নিয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে ধানমন্ডি রবীন্দ্র-সরোবর, রমনা পার্ক, চারুকলা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে প্রচন্ড ভীড়। বাঙলির প্রাণের উৎসবকে পালনের জন্য পান্তা-ইলিশ, মুড়ি-মড়কিসহ নানা মিষ্টান্ন খাওয়ার আয়োজন থাকছে নিজেদের আলয়ে। নতুন পোশাক আর ঐতিহ্যবাহী খাবারে বাঙালি আপন আপন সামর্থ্যে বরণ করে নেবে নতুন বছরের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখকে।
প্রোব/এহ/জাতীয় ১৩.০৪.২০১৪

১৩ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ২১:৪১:০৩ | ১৫:৫৮:৩৮

জাতীয়

 >  Last ›