A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

বড় কেন্দ্রগুলোর উৎপাদনে আসা অনিশ্চিত | Probe News

biddut 2.jpgমাজহারুল ইসলাম, প্রোবনিউজ: সরকার সম্প্রতি সাত শতাংশ দাম বাড়ালেও চলতি গ্রীষ্মে বিদ্যুতের নিরবিচ্ছিন্ন সরবরাহের নিশ্চয়তা মিলছে না । ফলে তীব্র খরতাপে বিশেষভাবে রাজধানীর বাইরের এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং বোরো চাষীরা বিপদগ্রস্ত। অন্যদিকে, বিদ্যুত সরবরাহে যতটুকু অগ্রগতি ঘটেছে তার ভিত্তি সাময়িক কুইক রেন্টালভিত্তিক হওয়ায় সমস্যার স্থায়ী সমাধান হচ্ছেনা। গত ফেব্রুয়ারিতে বিদ্যুত বিভাগের এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে জানানো হয়, দেশে নির্মাণাধীন বড় বিদ্যুত কেন্দ্রগুলোর মধ্যে মাত্র একটি উৎপাদনে আসার অপেক্ষায় আছেÑ অথচ এইরূপ অপেক্ষমান প্রকল্প রয়েছে ১৭টি।
এদিকে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির সাথে মুদ্রাস্ফীতির সরাসরি সম্পর্ক থাকায় বিদ্যুতের বাড়তি মূল্যের কারণে ইতোমধ্যে বাজারে জিনিসপত্রের দামও একদফা বেড়ে গেছে।
Biddut 1.jpgউল্লেখ্য, দেশে বিদ্যুত সুবিধাপ্রাপ্ত প্রায় ৯ কোটি ৫৬ লাখ গ্রাহকের জন্য বর্তমানে সম্মিলিত উৎপাদন ক্ষমতা রয়েছে ১০ হাজার মেগাওয়াট। এর মাত্র ২০ ভাগের যোগান আসছে রেন্টাল ব্যবস্থা থেকে  যদিও এর জন্য উৎপাদন খরচের ৪২ ভাগ অর্থই চলে যাচ্ছে। কুইক রেন্টালের এই বাড়তি অর্থ যোগান দিতে যেয়ে গত ৫ বছরে ১১ বার বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যুতের এই মূল্যবৃদ্ধির পেছনে বিতরণ ব্যবস্থার সিস্টেম লসও একটি বড় উপাদান হিসেবে ভূমিকা রাখছে। বর্তমানে সিস্টেম লস প্রায় ১২.২৬ শতাংশ। যেহেতু বিদ্যুতের সাময়িক সমাধান ব্যয়বহুল কুইক রেন্টাল ব্যবস্থা নির্ভরÑ সে কারণে আগামীতেও বারংবার এর দাম বাড়াতে হবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। উল্লেখ্য, উচ্চমূল্যে বিদ্যুত ক্রয়ের পাশাপাশি সরকার তেলনির্ভর কুইক রেন্টাল বিদ্যুত কেন্দ্রগুলোতে সাবসিডিতে জ্বালানিও সরবরাহ করছে।
বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালে ইউনিট প্রতি বিদ্যুত উৎপাদন খরচ ছিল ২.৪০ টাকা। বর্তমানে তা প্রায় ৭ টাকা। কুইক রেন্টালের উচ্চমূল্যের বিদ্যুতের কারণেই উৎপাদন খরচের সামগ্রিক এই বৃদ্ধি। দেশে বর্তমানে প্রায় ৩৩টি এইরূপ বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র রয়েছে।
সরকার অতীতে বিদ্যুতের দাম কমিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিলেও বড় বিদ্যুত কেন্দ্রগুলো উৎপাদনে না যাওয়ায় তা আর কখনোই সম্ভব হবে না বলে ধারণা করছে বিশেষজ্ঞরা। এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ বি ডি রহমত উল্লাহ বলেন, রেন্টাল নির্ভরতা যতদিন থাকবে ততদিন আর কখনো দাম কমানো যাবে না। সরকারও কুইকরেন্টাল বাদ দেবে বলেও মনে হয় না। কারণ, এর সাথে বহু মানুষের ব্যক্তিগত স্বার্থের যোগ রয়েছে। বি ডি রহমত উল্লাহ বিদ্যুতের ইউনিট প্রতি মূল্য ২-৩ টাকা হওয়া উচিত বলে মনে করেন।
প্রোব/পার/জাতীয়/.০৪.২০১৪

৯ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ১৩:১৯:৫৫ | ১৯:৪৬:১২

জাতীয়

 >  Last ›