A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

১৩ দফা দাবিতে নমনীয় সংগঠনটি | Probe News

hefajot file photo.jpgপ্রোবনিউজ, ঢাকা: আগামী ১১ ও ১২ এপ্রিল চট্টগ্রামের লালদিঘি ময়দানে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে হেফাজতে ইসলামের সবচেয়ে বড় সম্মেলন ‘শানে-রেসালত ইসলামী মহাসম্মেলন’ এরই মধ্যে সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি প্রায় শেষ করেছে সংগঠনটি।


হেফাজতের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফির প্রেস সচিব মুনির আহমদ প্রোবনিউজকে জানিয়েছেন, ৫ লাখেরও বেশি মানুষ সমাগমের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে লাল দীঘির ময়দানকে। হ্যান্ড বিল, পোষ্টারিং, মাইকিংসহ প্রচার-প্রচারণা চলছে। প্রশাসনের লিখিত অনুমতিও পাওয়া গেছে। চট্টগ্রামের আশে-পাশের সকল জেলা ও ঢাকা মহানগর থেকে অনুসারীদের আসার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।


এছাড়া হাটহাজারি আল্লামা শফির নিজ কার্যালয়ে কয়েকবার প্রস্তুতি সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানান তিনি। ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন- স্থানীয় সকল ইসলামী সমমনা সংগঠন ও মাদরাসার শিক্ষকরা।
জানাগেছে, এ সম্মেলনটি গত ৩ ও ৪ এপ্রিল হওয়ার কথা ছিলো । টি-২০ বিশ্বকাপের কারণে পিছিয়ে পরে ১১ ও ১২ এপ্রিল ঘোষণা করা হয় সম্মেলনের তারিখ।


সম্মেলনের পোস্টার, মাইকিং বা প্রচার-প্রচারণার কোনটিতেই নেই ১৩ দফার উপস্থিতি। এ প্রসঙ্গে হেফাজত- এর মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘১৩ দফা হচ্ছে তৌহীদি জনতার ঈমানী দাবি । এর থেকে চুল পরিমাণও সরে আসার সুযোগ নেই। ঐতিহ্যগতভাবেই এই সম্মেলনটি হয়ে আসছে, এখানে ১৩ দফাটা মূখ্য নয়। যেহেতু ১৩ দফা দাবি উথাপনের পর এটাই একমাত্র শানে-রেসালাত মহাসম্মেলন, তাই এই সম্মেলনে ১৩ দফা গুরুত্বের দাবি রাখে। আশা করছি, সেটা নেতৃবৃন্দের বক্তব্যে উঠে আসবে।’


৫ মে’র পর হেফাজত ইসলামের এটাই বড় সমাবেশ হতে যাচ্ছে। আগামী ৫ মে-কে সামনে রেখে নতুনভাবে সংগঠিত হচ্ছে কিনা হেফাজত তা নিয়েও রয়েছে সরকারের বিভিন্ন মহলে রয়েছে নানা কৌতূহল।


প্রসঙ্গত, চট্টগ্রামের প্রায় একশোটি কওমি মাদরাসার শিক্ষকদের নিয়ে ২০১০ এর ১৯ জানুয়ারি গঠিত হয় হেফাজতে ইসলাম। হাটহাজারী মাদরাসার পরিচালক শাহ আহমদ শফী এই সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা আমীর। সংগঠনটি ২০১০ সালে বাংলাদেশের ধর্মনিরপেক্ষ শিক্ষানীতির বিরোধিতার মধ্য দিয়ে আত্মপ্রকাশ করে। ২০১১ সালে তারা বাংলাদেশ নারী উন্নয়ন নীতি (২০০৯) -র কয়েকটি ধারাকে ইসলামের সাথে সাংঘর্ষিক দাবি করে এর তীব্র বিরোধীতা করে।


২০১৩ সালে তারা ইসলাম ও রাসুলকে কটুক্তিকারী নাস্তিক ব্লগারদের ফাঁসি দাবি করে ব্যাপক আন্দোলন ও সমাবেশ শুরু করে। এ প্রেক্ষিতে তারা ১৩ দফা দাবি উত্থাপন করে। হেফাজত ইসলামের এই দাবির কয়েকটি দফা সমালোচিত হলে পরবর্তীতে তারা সংবাদ সম্মেলনে ১৩ দফার ব্যাখ্যা দেয়।
২০১৩ সালের ৬ই এপ্রিল হেফাজতে ইসলাম সারা দেশ থেকে ঢাকা অভিমুখে লং মার্চ করে এবং ঢাকার মতিঝিল শাপলা চত্ত্বরে তাদের প্রথম সমাবেশ করে।


২০১৩ সালের ৫ই মে, হেফাজতে ইসলাম ঢাকা অবরোধ কর্মসূচি এবং ঢাকার মতিঝিলে তাদের দ্বিতীয় সমাবেশের আয়োজন করে। ৫ ও ৬ই মে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে নিরাপত্তাবাহিনীর সাথে কর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষে হেফাজতকর্মী, পুলিশ, বিজিবি সদস্যসহ বেশ কয়েকজন নিহত হয়। আহতের সংখ্যাটাও ছিলো উল্লেখযোগ্য।


এরপর বিভিন্ন ছোট খাটো-কর্মসূচি দিলেও সেই অর্থে আর সংগঠিত হতে পারেনি হেফাজত। সর্বশেষ গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর কওমী শিক্ষা আইন বাতিলের প্রতিবাদে মতিঝিলের শাপলা চত্বরে সমাবেশ করার কথা থাকলেও নানা জটিলতায় সেটি স্থগিত করা হয় ।


প্রোব/বিএইচ/জাতীয়/০৮.০৪.২০১৪

৮ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ২১:১৯:৫৭ | ১৬:২৮:৫১

জাতীয়

 >  Last ›