A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

এবার জাল নোটের চোরাচালান রোধে ভারতের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে | Probe News

India- Bangladesh.jpgপ্রোবনিউজ, ঢাকা: বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে জাল নোটের চোরাচালান প্রতিরোধে শিগগিরই দুই দেশের মধ্যে একটি সমাঝোতা স্মারক চুক্তি স্বাক্ষরিত হচ্ছে। সম্প্রতি দুই দেশের সীমান্তে জাল রুপির অবাধ চোরাচালানে উদ্বিগ্ন ভারত এই চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে আগ্রহ দেখালে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ইতিবাচক সারা দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
নয়া দিল্লিতে দু্ইদিনব্যাপী ভারত-বাংলোদেশ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে শনিবার সাংবাদিকদের এ কথা জানান ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিং। ভারতের ‘অভজারভার রিচার্স ফাউন্ডেশন’ এবং’ ‘বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইস ইনস্টিটিউট’ এ বৈঠকের আয়োজন করে।
সুজাতা সিং বলেন, জাল নোটের সমস্যা সমাধানে গেল জানুয়ারি মাসে টাস্ক ফোর্সের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমানে এ ব্যাপারে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের জন্য তৎপরতা শুরু হয়েছে।
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের ব্যাপারে তিনি বলেন, গেল পাঁচ বছরে দু-দেশের মধ্যে সম্পর্ক যথেষ্ট নিবিড় হয়েছে। ভবিষ্যতেও সেই প্রয়াস অব্যাহত থাকবে।
ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ২০০৭-০৮ সালে দু-দেশের মধ্যে ৩.৭ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্যিক লেনদেন হয়েছিল। কিন্তু ২০১২-১৩ সালে সেই পরিমাণটা বেড়ে ৫.৩ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। এক সময় দক্ষিণ এশিয়ায় শ্রীলংকা ছিল ভারতের সবচেয়ে বড় বিজনেস পার্টনার। এখন বাংলাদেশ সেই জায়গাটা দখল করে নিয়েছে। আর এই পরিসংখ্যান বলে দেয় যে দু-দেশের মধ্যে সম্পর্ক কতটুকু উন্নত হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, ভবিষ্যতে দু-দেশ নিজেদের বাণিজ্যিক ক্ষেত্রকে আরো উন্নত করে তোলার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে। কেননা অনেক ভারতীয় সংস্থা বাংলাদেশে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। একইভাবে বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠানও পিছিয়ে নেই। তারাও এ দেশে আসতে চাইছেন। এসব বিষয় নিয়ে ‘অভজারভার রিচার্স ফাউন্ডেশন’ ও ‘বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইস ইনস্টিটিউট’ এর পরবর্তী সভায় আলোচনা হবে বলে জানান সুজাতা সিং।
দ্বিপাক্ষিক ওই বৈঠকে বিশেষ অতিথির হিসেবে বক্তব্য দেন ভারতের সাবেক কূটনৈতিক পিনাক রঞ্জন চক্রবর্তী ও বাংলাদেশের ড. জয়িতা ভট্টাচার্যসহ বেশ কয়েকজন বক্তা।
বাংলাদেশে দীর্ঘদিন হাইকমিশনারের দ্বায়িত্ব পালন করা পিনাক রঞ্জন চক্রবর্তী নিজের বক্তব্যে পরামর্শ দিয়ে বলেন, উভয় দেশের প্রধানমন্ত্রী, রাজ্য প্রধান ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের নিয়ে একটি পরিষদ গঠন করা হোক। ওই পরিষদের মাধ্যমেই উত্তরপূর্ব ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে চলা সীমান্ত বিবাদ নিষ্পত্তি করার পরামর্শ দেন তিনি।
প্রোব/পার/জাতীয়/০৬/০৪/২০১৪

৬ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ২০:১২:০২ | ১৩:১৯:২৫

জাতীয়

 >  Last ›