A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

প্রতিশোধ নিয়ে ফাইনালে শ্রীলঙ্কা | Probe News

Westindies.jpgএনামুল হক, প্রোবনিউজ, ঢাকা : মালিঙ্গার চোখে-মুখে স্বপ্নের ছড়াছড়ি। আনন্দে প্যাভিলনে সবাইকে জড়াজড়ি করলেন। কেননা তিনিই সেমিফাইনালের অধিনায়ক। জয়ের কৃতিত্বটা তারই। জয়টা অবশ্য এসেছে বৃষ্টি আর ঝড়ের ঝাঁপটায়। বৃষ্টি আইনে ২৭ রানে জয় পেয়েছে মালিঙ্গার শ্রীলঙ্কা। তার দল নিয়েছে ২০১২ সালের বিশ্বকাপে পরাজয়ের প্রতিশোধ। শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৭টায় দ্বিতীয় সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি ভারত।
মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাটিং করে ৫ উইকেটে ১৬০ রান সংগ্রহ করে সুপারফেবারিট শ্রীলঙ্কা। জবাবে গেইল ব্যাটিং করার সুযোগ পেলেও অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি পাননি। তার মুখে হাসির ঝলক থাকলেও চোখে ক্ষোভ আর হতাশা। ঝড়-শিলা বৃষ্টিতে ভেসে গেছে তাদের স্বপ্নের ফাইনাল। ফলে ডাক ওয়াথ লুইস পদ্ধতিতে ২৭ রানে জয় পায় শ্রীলঙ্কা।
Westindies Malinga.jpgপ্রথম ওভারেই কুলাসেকারাকে দুর্দান্ত হিট করেন ডোয়াইন স্মিথ। তার সঙ্গে সবার সেরা হিটার গেইল। এতে ওভার শেষে ১৭ রান। তবে মালিঙ্গার প্রথম ওভার খেলতে ব্যর্থ হন গেইল। মাত্র দুই রান নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাকে। মালিঙ্গার পরের ওভারেই ইন-সাইডার শটে আউট হয়ে যান গেইল। একই ওভারে ওপেনার স্মিথকেও বোল্ট করেন মালিঙ্গা। এতে দারুণ ব্যাটিং বিপর্যয়ে হাবুডুবু খায় ক্যারিবীয়ান ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ৫ ওভারে তাদের অর্জন ২ উইকেটে ২৮ রান। সপ্তম ওভারের প্রথম বলেই লেন্ডন সিমন্সের উইকেট তোলে নেন লঙ্কান স্পিনার প্রশন্ন। এরপর একের পর এক বিপর্যয়ের ঝড় ওঠে ক্যাবিবীয় ব্যাটিং লাইনে। তখনই মিরপুরে বাস্তবেও প্রাকৃতিক ঝড় ওঠে। প্রচন্দ্র বাতাস সেই সাথে শিলাবৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ করে রাখা হয়। এ সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ১৩ ওভার ৫ বলে ৮০ উইকেট বিলিয়ে দিয়েছে ৪ টি। তখন ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে জিততে ১০৮ রান করতে হতো স্যামিদের। কিন্তু প্রায় আধা ঘন্টার বেশি সময় প্রচন্ড ঝড় আর শিলা-বৃষ্টির পর খেলা শুরু করা যায়নি।
টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় শ্রীলঙ্কা। কিন্তু ওপেনার কুশাল পেরেরা ব্যক্তিগত ২৬ রানে সাজঘরে ফিরে যান। ওয়ান ডাউন মাহেলা জয়বর্ধনে কোন রান যোগ করতেই পারেনি। রান আউট হয়ে সোজা প্যাভিলিয়নের পথ। পরে লঙ্কান দূর্গের নির্ভরশীল ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকার এক রান করেই বিদায় নিলেন। নিজের বলে নিজেই সাঙ্গাকারার সহজ ক্যাচ ধরেন পেসার বাদ্রি। এতে বেশ চাপে পড়ে লঙ্কান ব্যাটিং। প্রথম ৫ ওভারে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৪৩ রান। আর ১০ ওভার শেষে তাদের কোন উইকেট পতন না হলেও রান হয়েছে ৭৪ একাদশ তম ওভার করতে আসেন সুপার স্টার ক্রিস গেইল। তার ওভারকেও কাজে লাগাতে পারেনি লঙ্কানদের ব্যাটসম্যান দিলশান-তিরিমান্নে। তবে বিপর্যয়ের সময় দুর্দান্ত একটা জুটি করেছে। সেটা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। সিমন্সের দুর্দান্ত থ্রো থেকে আউট হয়ে ব্যক্তিগত ৩৯ রানে সাজঘরে ফিরে দিলশান। এতে আরো চাপে পড়ে লঙ্কান ব্যাটিং। ১৫ তম ওভারে শত রান আসে পঞ্চম উইকেটে। দ্বিতীয় স্পেলে আরো একটি উইকেট তুলে নিলেন ক্রিসমার শান্তেকি। তিরিমান্নকে ৪৪ রানে সাজঘরে ফিরিয়ে দেন দুর্দান্ত এই জ্যামাইকান পেসার। অবশ্য শেষ পর্যন্ত সফল হতে পারেননি।
চার ওভারে ৪৬ রান খরচ করে শিকার করেন দুটি উইকেট। তখনো ব্যাটে অবস্থান রয়েছে অ্যাঞ্জেলো মেতিউস। কিন্তু ইনিংসের শেষ ওভারে রাসেলের বলে ব্যক্তিগত ৪০ রানে আউট হয়ে যান এই লঙ্কান অলরাউন্ডার। চার ওভারে ২৩ রান দিয়ে একটি উইকেট শিকার করেন বাদ্রি এবং ৩৭ রান খরচ করে রাসেলও তাই করেন।
প্রোব/এহ/খেলা ০৪.০৪.১৪

৪ এপ্রিল ২০১৪ | খেলা | ১৬:৪৭:৩৯ | ১৭:১৯:২৭