A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

উপজেলা নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম ও জালিয়াতির অভিযোগ ইডব্লিউজি'র | Probe News


প্রোব নিউজ, ঢাকা: উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে ব্যাপক অনিয়ম ও জালিয়াতি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপ। একই সঙ্গে নির্বাচনকালীন বেশ কিছু কেন্দ্রে তাদের পর্যবেক্ষকরাও নিরাপদে কাজ করতে পারেননি এবং তাদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে বলেও দাবি করেছে সংগঠনটি।
বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব অভিযোগ করেছে ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপ। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ইডব্লিউজির পরিচালক আবদুল আলিম, স্থায়ী কমিটির সদস্য নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ, হারুন অর রশিদ প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পঞ্চম পর্যায়ের উপজেলা নির্বাচনে ভোট জালিয়াতির হার ৫৩ শতাংশ। এ ছাড়া ৫০ শতাংশ ভোটকেন্দ্রে সহিংসতা হয়েছে, ৭৬ শতাংশ ভোটারকে ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে, ২০ শতাংশ ভোটারকে ভোট প্রদানে বাধা দেয়া হয়েছে, ৫৯ শতাংশ পোলিং এজেন্টকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে এবং ৩৮ শতাংশ পর্যবেক্ষককে গণনা পর্যবেক্ষণ করতে দেয়া হয়নি।
ইডব্লিউজি জানায়, বেশ কিছু কেন্দ্রে ভোট শুরুর আগেই ব্যালট বাক্সে সিলমারা ব্যালট পেপার পাওয়া গেছে। পর্যবেক্ষণ এলাকায় ভোটপ্রদানের গড় হার ৬৩.৭ হলেও জাল ভোটের কারণে এ হার প্রকৃত ভোটের প্রতিফলন নয় বলে মনে করছে সংগঠনটি।
সংগঠনটির পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে বলা হয়, লক্ষীপুরের তিনটি কেন্দ্রে ভোট শুরুর আগেই বাক্সে সিল মারা ব্যালট পাওয়া যায়। লক্ষীপুর, সাতক্ষীরা সদর ও টাঙাইলে কয়েকটি কেন্দ্রে সাধারণ ভোটাদের কেন্দ্রে প্রবেশের পর হাতে কালি লাগিয়ে দিয়ে বলা হয় তাদের ভোট দেয়া হয়ে গেছে। ভোট না দিয়েই ওই ভোটারদের ফিরে আসতে হয়।
ইডব্লিউজি জানায়, বেলকুচির একটি কক্ষে একজন প্রার্থীর ১৩ জন সমর্থক ব্যালট ছিনিয়ে নেয়। এসময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা ভোট গণনার সময় একজন প্রার্থীর লোকজন প্রবেশ করে গণনা বন্ধ করে অসত্য তথ্য দিয়ে চূড়ান্ত ফল দিতে চাপ দেয়।
প্রতিবেদনে বলা হয়, পর্যবেক্ষণকৃত আট ভাগ ভোট কেন্দ্রে গণনা প্রক্রিয়া নিয়ে আপত্তি করতে দেখা যায়। ১২ ভাগ কেন্দ্রে ফল টাঙ্গিয়ে দেননি সংশ্লিষ্ট প্রিসাইডিং অফিসার।
ইডব্লিউজি বলছে, তাদের আটজন পর্যবেক্ষককে প্রিসাইডিং অফিসার পর্যবেক্ষণে বাধা দেন। ভোট গণনার সময় ৩৯ জন পর্যবেক্ষককে গণনা কক্ষে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।
প্রোব/মুআ/জাতীয় ০২.০৪.১৪

২ এপ্রিল ২০১৪ | জাতীয় | ১৯:০৮:৫৩ | ১৫:১৪:৫৯

জাতীয়

 >  Last ›