A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

আদালত দুই শিফট করার সুপারিশ | Probe News

প্রোবনিউজ, ঢাকা: ঝুলে থাকা মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে উচ্চ ও নিম্ন আদালতের কার্যক্রম ‘দুই শিফট’ বা ‘সান্ধ্যকালীন’ কোর্ট চালুর সুপারিশ করেছে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। কমিটি বলেছে, উচ্চ আদালতে এ ব্যবস্থা প্রবর্তন করতে প্রয়োজনে নতুন আইনের ‘খসড়া’ সংসদীয় কমিটি তৈরি করে দিবে।
রোববার সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনার পর সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে সুরঞ্জিত সাংবাদিকদের বলেন, “উচ্চ ও নিম্ন আদালতে প্রায় ২৬ লাখ মামলা আটকে আছে। মামলার এই ব্যাকলক দূর করতে বিচার ব্যবস্থার আপডেট প্রয়োজন। আর এর জন্য বর্তমানে যে সংখ্যক বিচারক আছে তাতে চলবে না।”
ভারতের মাদ্রাজ ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, “মাদ্রাজ ও পশ্চিমবঙ্গে সান্ধ্যকালীন কোর্ট চলে। আমাদের নিম্ন আদালতে এটা করার জন্য আইন লাগবে না, তবে উচ্চ আদালতের জন্য প্রয়োজন হবে।” “কমিটির প্রয়োজনে এ লক্ষ্যে ল’ ড্রাফট করে কেবিনেটে পাঠাবে। ভারতে অবসরপ্রাপ্ত বিচারকদের পুনঃনিয়োগ দেয়ারও ব্যবস্থা রয়েছে। আমরা সেটাও করতে পারি।”
বিচার ব্যবস্থা গতিশীল করতে উচ্চ আদালতের অ্যটর্নি জেনারেল অফিস এবং নিম্ন আদালতের পিপি ও জিপি অফিসের কার্যক্রম সংস্কার প্রয়োজন বলেও মন্তব্য করেন এই জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্য।
বিচারকদের পারিশ্রমিক বাড়ানোর ওপর জোর দিয়ে সুরঞ্জিত বলেন, “আমরা যেমন দক্ষ ও যোগ্য বিচারক চাই তেমনি বিচারকদের পারিশ্রমিকও বাড়াতে হবে। বিচারকরা প্রশাসনিক কর্মকর্তা নয়। তাদের জন্য আলাদা পে স্কেল আছে। জেনারেল পে স্কেলে তাদের ধরলে হবে না।” “উচ্চ আদালতের বিচারকদের বেতন যদি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর চেয়ে বেশি হয় তাতে সমস্যা কি? ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কাতে প্রধান বিচারপতির সম্মানী অনেক বেশি। যখনই এ বিষয়ে আমাদের এখানে উদ্যোগ নেয়া হয়, আমলারা অকারণে দোহাই দিয়ে আটকে দেয়।”
বিচার বিভাগের বেতন কাঠামো বাড়াতে ‘আমলাতান্ত্রিক প্রতিবন্ধকতা’ দূর করতে হবে মন্তব্য করে সুরঞ্জিত বলেন, “কমিটি সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করবে।” উচ্চ আদালতের বিচারক নিয়োগে পৃথক আইন প্রণয়ন প্রয়োজন বলেও জানান সংসদীয় কমিটির সভাপতি।
রোববার সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, উচ্চ আদালতের বিচারপতিদের বেতনের সঙ্গে তাদের মূল বেতনের ৫০ শতাংশ হারে ‘বিশেষ ভাতা’দিতে সংসদে উত্থাপন করা সুপ্রিম কোর্ট জাজেস (রিমুনারেশন অ্যান্ড প্রিভিলেজেস) (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল-২০১৪’পাসের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।
গত ১৮ মার্চ বিলটি সংসদে উত্থাপনের পর পরীক্ষা করে রিপোর্ট দিতে সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়।

প্রোব/বান/জাতীয় ৩১.০৩.২০১৪

 

৩১ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৫:৪৭:৩৭ | ১৪:৫৫:৫৭

জাতীয়

 >  Last ›