A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

গাংনীতে দু'গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ৫০ | Probe News

প্রোব নিউজ, মেহেরপুর: মেহেরপুরের গাংনীতে কবরস্থানের গাছ কাটা ও দখলকে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ৫০ জন গ্রামবাসী আহত হয়েছে। রোববার সকাল ৯টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
আহতদের উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল ও কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত ব্যক্তিরা হলেন- কচুইখালি গ্রামের আবু তাহের, মজিবুর রহমান, ইসরাইল হোসেন, আহাবুদ্দীন, মুজাম্মেল হোসেন ওরফে খোকন ও মন্টু মিয়া। কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে- হাসিবুল ইসলাম, সুফল হোসেন, গুচ্ছগ্রামের শুকমান আলী, তার ছেলে মাছুম হোসেন ও মুনছুর আলী।
গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিগলকান্দি গ্রামের রিয়াজুল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, মুছা করিম, ইয়ার আলী, চাঁদ আলী, ইউছুব আলী, কামাল হোসেন,শামীম আহম্মেদ, আলম হোসেন, জহুরুল ইসলাম, প্রতিবন্ধী স্বপন আলী ও গোলাম মোস্তফা।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন- হাসিবুল ইসলাম, রফেজ উদ্দীন, আনারুল ইসলাম, রনি, জমির উদ্দীন, সাইফুল ইসলাম, বিপ্লব হোসেন, খেদের আলী, সরোয়ার হোসেন ও আকবার আলী। স্থানীয় বারাদী ও আমঝুপি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক এএইচএম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ভর্তি হওয়া সবার শরীরের বিভিন্ন অংশে দেশীয় অস্ত্রের জখম রয়েছে। এদের মধ্যে মুজাম্মেল হোসেন ওরফে খোকন ও মন্টু মিয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।
ধানখোলা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বর ও কচুইখালি গ্রামের বাসিন্দা আব্দুস সামাদ জানান, কচুইখালি ও দিগলকান্দি গ্রামের বাসিন্দাদের জন্য একটি যৌথ কবরস্থান রয়েছে।
এ কবরস্থানের গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকদিন ধরে উভয় গ্রামের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। শনিবার রাত ৮টার দিকে দিগলকান্দি গ্রামের লোকজন মিটিং করে গুচ্ছ গ্রামের তিনজনকে পিটিয়ে জখম করে। রোববার সকাল ৯টার দিকে দিগলকান্দি গ্রামের লোকজন জড়ো হয়ে জোর করে কবরস্থানের গাছ কাটা শুরু করে। এসময় কচুইখালি গ্রামের তাদের গাছ কাটতে বাধা দিলে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।
কচুইখালি গ্রামের ইউছুব আলী জানান, দিগলকান্দি গ্রামের আলী আকবর, নুর ইসলাম ও সাইরুদ্দীনের নেতৃত্বে শতাধিক লোকজন লাঠি-সোটাসহ দেশিয় অস্ত্র নিয়ে কচুইখালি গ্রামের লোকজনের ওপর হামলা চালায়।
অপরদিকে দিগলকান্দি গ্রামের কিচমত আলী পাল্টা অভিযোগ করে জানান, ধানখোলা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বর কচুইখালি গ্রামের আব্দুস সামাদ ও তোফাজ্জেল হোসেন খোকনের নেতৃত্বে শতাধিক লোকজন জোর করে কবরস্থানের প্রায় ইপিল, নিম ও মেহগনি গাছ কেটে ফেলে। এ সংবাদ গ্রামের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে দিগলকান্দি গ্রামের লোকজন তাদের বাধা দিলে দু’গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাছুদুল আলম জানান, সংঘর্ষের খবর পাওয়ার পর পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন এলাকায় পুলিশ থাকায় পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।
প্রোব/মুআ/জাতীয় ৩০.০৩.১৪

৩০ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১২:০৮:১৫ | ১৭:৫২:৩১

জাতীয়

 >  Last ›