A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

জলাশয় ভরাট করে আবাসিক প্রকল্প নয়: গণপূর্তমন্ত্রী | Probe News

প্রোব নিউজ,ঢাকা: গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, জলাশয় ভরাট করে কোনো আবাসিক প্রকল্প গড়ে তুলতে দেওয়া হবে না। শনিবার সকালে ঢাকার সিরডাপ মিলনায়তনে ‘জলাশয় ভরাট, নগরায়ণ ও সুশাসন’ বিষয়ে গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন। অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী এতে সভাপতিত্ব করেন।
মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘বিভিন্ন সময় গুলশান লেক ভরাট করে মন্ত্রী-সাংসদদের প্লট দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে জলাশয় ভরাট করে কোনো আবাসিক প্রকল্প গড়তে দেব না।’ মন্ত্রী বলেন, ড্যাপ সংশোধনের যে প্রস্তাব রয়েছে, সেটা করতে গিয়ে জলাশয় দখল করতে দেওয়া হবে না। অপরিকল্পিত নগরায়ণ ও দূষণের কারণে ঢাকা শহর ইতিমধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে।
পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন, ‘পরিবেশ ছাড়পত্রের জন্য আমাকেও ৪৫ হাজার টাকা দিতে হয়েছে। আমি মন্ত্রী হওয়ার পর অধিদপ্তরের লোকজনকে বলেছি তাঁদের ইমেজ ভালো করার জন্য।’ অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরীর এক বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রী এ কথা বলেন। মন্ত্রীর নির্ধারিত বক্তৃতা শেষে জামিলুর রেজা চৌধুরী তাঁর উদ্দেশে বলেন, ‘পয়সা লাগবে না, কেবল আপনাদের সদিচ্ছা দরকার। এটা নিশ্চিত করেন যে অবৈধ প্রকল্পগুলো পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র পাবে না।’
পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মিরপুর ও আশুলিয়ায় যে ইটের ভাটা রয়েছে, ঢাকার বায়ু দূষণের জন্য এদের দায় অনেকটাই। আধুনিক পদ্ধতিতে যাঁরা ইটভাটা করবে না, আগামী ১৬ জুন সেগুলো ধ্বংস করে দেওয়ার কথা। আমি অধিদপ্তরের লোকদের বলেছি, এগুলো ধ্বংস করার আগে মন্ত্রী-সাংসদদের সঙ্গে কথা বলে নিও। নয়তো আমার চাকরি চলে যাবে।’
অনুষ্ঠানের আলোচকেরা পরিবেশ বাঁচাতে সরকারের কঠোর অবস্থানের দাবি প্রসঙ্গে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘স্বৈরাচারী সরকারের পক্ষে কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব, কিন্তু গণতান্ত্রিক সরকারের পক্ষে সেটা সম্ভব নয়। সেখানে অসুবিধা হচ্ছে সবার কথা শুনতে হয়।’
সভাপতির বক্তব্যে জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, রাজউককে প্লট বিক্রির দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিতে হবে। ড্যাপ সংশোধনের নামে কোনোভাবেই যেন জলাশয় ধ্বংস না হয়, সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। নগরকে বাঁচাতে এখন সময় এসেছে রুখে দাঁড়ানোর।

বুয়েট অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ, ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেক বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) এই গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে।
প্রোব/মুআ/জাতীয় ২৯.০৩.১৪

২৯ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ১৮:২০:৩০ | ১০:০৫:২০

জাতীয়

 >  Last ›