A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি কে? | Probe News

hasina khaleda

প্রোবনিউজ, ঢাকা: স্বাধীনতার ঘোষণা নিয়ে যারা মিথ্যাচার করছে তারাই প্রথম রাষ্ট্রপতি নিয়ে নতুন ফর্মূলা দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যদিকে ছেলে তারেক রহমানের পর বিএনপি চেয়ারপার্সন এবং মহাজোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াও জিয়াউর রহমানকে স্বাধীনতার ঘোষক এবং প্রথম রাষ্ট্রপতি বলে দাবি করলেন। পৃথক পৃথক অনুষ্ঠানে তারা এসব মন্তব্য করেন।
বৃহস্পতিবার বিকেলে কৃষিবীদ ইনস্টিটিউটে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা (বিএনপি) এখন ফর্মূলা পাল্টেছে, এতোদিন বলেছেন জিয়া স্বাধীনতার ঘোষক, এখন বলছেন প্রথম রাষ্ট্রপতি। বাংলাদেশে প্রথম রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমার, প্রথম উপরাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ। শেখ হাসিনা আরো বলেন, ৭৫’র পর জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে শাহ আজিজুর রহমানকে প্রধানমন্ত্রী বানালো, মান্নান খানকে মন্ত্রী বানালো, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের পূনর্বাসন করেছে। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষক হলে কিভাবে তিনি এদের জন্য এসব করেছেন। তিনি বলেন, টিআইএ সহ বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা, দেশি-বিদেশি পত্রপত্রিকা সব জায়গাতেই আছে ২৬ মার্চ কে স্বাধীনতা ঘোষণা করেছিলেন।
অন্যদিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ‘মুক্তিযুদ্ধের শ্রেষ্ঠ অহংকার স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমান বীরউত্তম’ শীর্ষক আলোচনা সভায় দেওয়া বক্তৃতায় জিয়াকে স্বাধীনতার ঘোষক এবং প্রথম রাষ্ট্রপতি দাবি করেন খালেদা। ৪৪তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা দল রাজধানীর ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স (আইডিবি) মিলনায়তনে এ সভার আয়োজন করে।
আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি নয় বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, স্বাধীনতার ঘোষক হিসেবে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে মেনে নিতে পারে না আওয়ামী লীগ। কিন্ত পৃথিবী, বাংলাদেশের মানুষ মেনে নিয়েছেন। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন বলেই যুদ্ধ হয়েছে। খালেদা আরও বলেন, আওয়ামী লীগ নেতারাও স্বীকার করেন, জিয়াউর রহমানই স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন। ইতিহাস থেকে এটি মুছে ফেলা যাবে না। জিয়াউর রহমান শুধু স্বাধীনতার ঘোষকই নন, তিনি প্রথম রাষ্ট্রপতি, মুক্তিযোদ্ধা। খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি রাষ্ট্রপতির স্ত্রী বা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গর্বিত নই, আমি গর্বিত স্বাধীনতার ঘোষকের স্ত্রী হিসেবে।’ সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধে দেশের ছাত্র, কৃষক, শ্রমিক সব শ্রেণীর মানুষ ‍অংশ নিয়েছে। তারা অংশগ্রহণ না করলে দেশ স্বাধীন হতো না। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা (আওয়ামী লীগ) বিদেশিদের অনুষ্ঠান করে সম্মাননা দেন, বিদেশিদের অবদানকে বড় করে দেখান। বিদেশিদের প্রতি অতি ভক্তি পরায়ণ না হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তাদের স্বীকৃতির প্রয়োজন নেই, আমাদের স্বীকৃতি দিয়েছে এই দেশের মানুষ।
অনুষ্ঠানে একাত্তরের মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ ৫জনকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। সভার প্রধান অতিথি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া তাদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন।
প্রোব/বান/জাতীয় ২৭.০৩.২০১৪

২৭ মার্চ ২০১৪ | জাতীয় | ২০:১৯:১৩ | ১২:৩২:১৯

জাতীয়

 >  Last ›