A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা তিনশ’ ছাড়িয়েছে | Probe News

ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা তিনশ’ ছাড়িয়েছে

প্রোবনিউজ, ডেস্ক: হিন্দুকুশ পর্বতে শক্তিশালী ভূমিকম্পে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান মিলিয়ে তিন শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে, আহতের সংখ্যা দুই হাজারের বেশি। সোমবার বিকালে রিখটার স্কেলে ৭ দশমিক ৫ মাত্রার এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে ভারত ও বাংলাদেশ থেকেও। পাকিস্তানে ২২৮ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে, আফগানিস্তানে মৃতের সংখ্যা অন্তত ১১৫ জনে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির উপ-মুখপাত্র সৈয়দ জাফর হাশেমি।

অন্তত ৪ হাজার ঘরবাড়ি ধ্বংস হওয়ার খবর জানিয়েছেন আফগানিস্তানের প্রধান নির্বাহী আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ। রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, বিস্তৃত এলাকার টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ক্ষয়ক্ষতির খবর পেতে দেরি হচ্ছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের কর্মকর্তারা। বৃষ্টি ও ঠান্ডা আবহাওয়ার মধ্যে খাবার ও অন্যান্য সাহায্যের অভাবে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে গৃহহীন মানুষেরা।

পাকিস্তানি গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, পরাঘাতের ভয়ে দুর্গত এলাকার হাজার হাজার মানুষ প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যেও ঘরে না ফিরে খোলা আকাশের নিচে রাত পার করেছে। প্রায় পুরো পর্বতময় এলাকাটির পাকিস্তান অংশে ভূমিকম্প দুর্গতদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণের জন মঙ্গলবার উদ্ধারকর্মীরা সেখানে উপস্থিত হন। পাকিস্তানের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় শহর পেশোয়ার থেকে পাকিস্তানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা লতিফউর রহমান বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, “উদ্ধারকাজ চলছে এবং তাঁবু, কম্বল ও ঘুমানোর মাদুর পাঠানো হচ্ছে।”
পাকিস্তানের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ বলছে, ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ ও উদ্ধারকাজ চালানোর জন্য পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও বেসামরিক কর্তৃপক্ষগুলো দুর্যোগপূর্ণ এলাকায় অনেকগুলো হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে।

ওদিকে, আফগানিস্তানে তালেবান বিদ্রোহীদের ক্রমবর্ধমান তৎপরতার কারণে উদ্ধার কাজ ও ত্রাণ বিতরণ নিয়ে জটিলতা দেখা দেয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এলাকার শত শত ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে, এর পাশাপাশি শীতকালীন নিম্ন তাপমাত্রার কারণে পরিস্থিতি আরো নাজুক হয়ে দাঁড়িয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের ‍ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে, সোমবার বিকেলে সাত দশমিক পাঁচ মাত্রার ভূমিকম্পের পর সর্বোচ্চ চার দশমিক আট মাত্রা পর্যন্ত সাতটি পরাঘাত হয়েছে। মঙ্গলবার ভোরেও একটি পরাঘাত হয়েছে।
২৫ এপ্রিল নেপাল ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ ভূমিকম্পের শিকার হওয়ার ঠিক প্রায় ছয়মাস পর ভারতীয় ভূতাত্ত্বিক প্লেটের অপরাংশে এ ভূমিকম্পটি হল। নেপালের ভূমিকম্পে (মে মাসের একটি বড় ধরনের পরাঘাতসহ) নয় হাজার মানুষের মৃত্যু ও নয় লাখ ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

প্রোব/অমি/পি/আন্তর্জাতিক/২৮.১০.২০১৫

২৮ অক্টোবর ২০১৫ | আন্তর্জাতিক | ১৩:১১:৩৭ | ১৪:০০:৩০

আন্তর্জাতিক

 >  Last ›