A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

রোজার আগেই দাম বেড়েছে সব পণ্যের | Probe News

সপ্তাহের বাজার দর
রোজার আগেই দাম বেড়েছে সব পণ্যের

weekly bazardorপ্রোবনিউজ, ঢাকা: রোজার মাসে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকার নানামুখি পরিকল্পনার কথা জানিয়ে আসছে। রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে কাঁচা মরিচ, শশা, লেবু, বেগুন এবং ধনে পাতার। তারপরও রোজা শুরুর আগেই বাজারের প্রায় সব পণ্যের দাম বেড়েছে। রাজধানীর একাধিক পাইকারি ও খুচরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে এ চিত্র।
দেখা গেছে, সবধরনের সবজিতে বেড়েছে ১০টাকা থেকে ২০টাকা। বেগুনের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় দ্বিগুন। গত সপ্তাহে গোল বেগুন যা কেজি প্রতি বিক্রি হয়েছে ৩৫টাকা থেকে ৪০টাকায়। লম্বা বেগুন বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৮০টাকায়। গত সপ্তাহে যা বিক্রি হয়েছে ৪০টাকা থেকে ৪৫ টাকায়।
গেল সপ্তাহের তুলনায় মাছ এবং মাংসের দাম স্থিতিশীল থাকলেও বেড়েছে আলু ও পেঁয়াজের দাম। প্রতি কেজি আলুতে সাত টাকা বৃদ্ধি পেয়ে বিক্রি হচ্ছে ২৫টাকা থেকে ২৭টাকায়। পাঁচ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৪০টাকায়।
এছাড়া বরবটি, পটল, ধুন্দল, ঝিঙ্গা, কচুর লতি, ঢেঁড়সে কেজি প্রতি পাঁচ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে বিক্রি হচ্ছে ৪০টাকা থেকে ৪৫টাকায়। কাঁচা মরিচের কেজিতে ২০টাকা বৃদ্ধি পেয়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০টাকায়। চিচিঙ্গা বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়, গাজর ৫০ টাকায়, করলা ৫০টাকা থেকে ৬০টাকায়, কচুরমুখী ৫০ টাকায়, কাঁকরোল ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকায়, টমেটো ৫০টাকা থেকে৬০ টাকায়, পেঁপে ৩০ টাকায় এবং কাঁচাকলার হালি ২০টাকা থেকে ২৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
গত ২৫ জুন রপ্তানি নিষিদ্ধ করা শশা বিক্রি হচ্ছে ৪৫টাকা থেকে ৫০টাকায়, লেবু হালি প্রতি ১২টাকা থেকে ১৫ টাকায় এবং ধনে পাতা ১০০ গ্রাম ২৫টাকা থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৫০টাকায়, লেয়ার ১৬০ টাকায়, দেশি মুরগির কেজি ৩৫০টাকা থেকে ৩৬০ টাকায়, গরুর মাংস ৩০০ টাকা এবং খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪৫০ টাকায়।
ছোট আকারের রুই মাছ কেজি প্রতি ১৮০ থেকে ২০০ টাকা, মাঝারি আকারের রুই মাছ ২২০ টাকা, কাতলের কেজি ৩২০ টাকা। প্রায় একই রয়েছে ইলিশের দাম। ৫০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৫০০ টাকায়, ৮০০ প্রাম ওজনের ইলিশের কেজি এক হাজার টাকা এবং এক কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার ৩০০ টাকায়।
দেশি আদা ২০০ টাকা থেকে ২২০ টাকায় এবং ইন্দোনেশিয়ার আদা ১৬০ টাকা থেকে ১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আকার ভেদে দেশি রসুন কেজি প্রতি ৭০ টাকা থেকে ৮০ টাকায়, অ্যাংকর ডাল ৫০টাকা, বুটের ডাল সর্বোচ্চ ৭০ টাকায়, ছোলা মান ভেদে ৬০টাকা থেকে ৬৫টাকায়, খেসারি ডাল ৪৬ টাকা থেকে ৪৮ টাকায়, দেশি মসুর ডাল ১১৫ টাকায় এবং ভারতীয় মসুর ডাল ৮৫ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। তবে চিনি কেজি প্রতি দুই টাকা বাড়লেও আটার দাম একই রয়েছে। চিনি ৫০ টাকায় এবং আটা ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
এদিকে পাইকারি বাজারে মিনিকেট ও বিআর-২৮ চালের দাম কেজিতে দুই থেকে তিন টাকা কমেলেও খুচরা বাজারে এর প্রভাব নেই। পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি মিনিকেট চাল ৪৪ টাকা আর বিআর-২৮ ৩৬ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি মিনিকেট ৪৮ থেকে ৫০ টাকা, বিআর-২৮ চাল ৪০টাকা থেকে ৪২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য চাল আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। কারওয়ান বাজারের চাল ব্যবসায়ী সোহেল রাইচ এজেন্সির সত্ত্বাধিকারী মো. সোহেল জানান, মিনিকেট ও বিআর আটাশ চালের দাম বস্তা প্রতি (৫০ কেজি) মানভেদে ১৫০টাকা থেকে ২০০ টাকা কমেছে।
প্রোব/আরএম/শর/অর্থনীতি ২৭.০৬.২০১৪

২৭ জুন ২০১৪ | অর্থনীতি | ১৮:২৬:৩০ | ১৪:৪১:১৬

অর্থনীতি

 >  Last ›