A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশী অর্থের খোঁজ নেবে কেন্দ্রীয়ব্যাংক | Probe News

সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশী অর্থের খোঁজ নেবে কেন্দ্রীয়ব্যাংক


Bangladesh bankপ্রোবনিউজ, ঢাকা: সুইজারল্যান্ডের ব্যাংকগুলোতে বাংলাদেশিদের গচ্ছিত অর্থ পাচার হওয়া কি-না তা খোঁজ নেয়ার এবং অর্থের প্রকৃত মালিককে শনাক্ত করারও পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এজন্য সুইস ব্যাংকের কাছ থেকে তথ্য পেতে এমওইউ (সমঝোতা স্মারক) স্বাক্ষরের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, সুইস ব্যাংকে জমা টাকার তথ্যাদি জানা একটি জটিল প্রক্রিয়া হলেও- পুরো প্রক্রিয়াই অনুসরণ করা হবে। সম্প্রতি সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশীদের গচ্ছিত অর্থের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এ বিষয়ের প্রতি বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।
এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুখপাত্র ও বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক ম. মাহফুজুর রহমান প্রোবনিউজকে বলেন, এ বিষয়ে সুইস ব্যাংকের সাথে এমওইউ (সমঝোতা স্মারক) স্বাক্ষর করা হবে। তারপর প্রক্রিয়া শুরু হবে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক এগমন্ট গ্রুপের সদস্য হলেও অন্য দেশের ব্যাংক থেকে তথ্য পেতে কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করতে হয়। সুইস সরকারের সঙ্গে আমাদের কোনো এমওইউ (সমঝোতা স্মারক) নেই। তাদের কাছ থেকে তথ্য পেতে হলে আগে এমওইউ স্বাক্ষর করতে হবে। আমরা চেষ্টা করছি সেটা করার।’
তিনি আরো বলেন, ‘সুইজারল্যান্ড বা অন্য কোনো দেশে স্থায়ীভাবে বসবাস করে বা ব্যবসা করে-এমন বাংলাদেশি নাগরিক বা প্রতিষ্ঠান যেকোনো বিদেশি ব্যাংকে টাকা জমা করতে পারেন। আমরা দেখব, বাংলাদেশে বসবাসরত কেউ সুইস ব্যাংকে টাকা জমা করেছেন কি না এবং করলে সেটা কেন করেছেন।’ কেবলমাত্র সুইস ব্যাংক নয়, অন্য কোনো দেশেও অর্থ পাচার হয়েছে সন্দেহ হলে সে সম্পর্কে জানার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি।
প্রসঙ্গত, এগমন্ট গ্রুপ হলো মানি লন্ডারিং প্রতিরোধে গঠিত বিভিন্ন দেশের ফিন্যান্সিয়াল ইন্টিলিজেন্স ইউনিটগুলোর একটি ফোরাম।
সম্প্রতি সুইজারল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুইস ন্যাশনাল ব্যাংক (এসএনবি) কর্তৃক প্রকাশিত ‘ব্যাংকস ইন সুইজারল্যান্ড ২০১৩’ শীর্ষক বার্ষিক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, ২০১৩ সাল শেষে সুইস ব্যাংকগুলোয় বাংলাদেশিদের অন্তত ৩৭ কোটি ১৯ লাখ সুইস ফ্রাঁ গচ্ছিত রয়েছে, যা প্রায় ৪১ কোটি ৪০ লাখ ডলার বা তিন হাজার ১৬২ কোটি ৩৭ লাখ টাকার সমান।
এই অর্থ ২০১২ সালে সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশিদের গচ্ছিত অর্থের চেয়ে ৬২ শতাংশ বেশি। ওইবছর সুইস ব্যাংকগুলোয় বাংলাদেশি ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের অন্তত ২২ কোটি ৮৯ লাখ সুইস ফ্রাঁ জমা ছিল, যা প্রায় ২৪ কোটি ৫০ লাখ ডলার বা এক হাজার ৯০৮ কোটি টাকার সমান।
প্রোব/আরএম/অর্থনীতি/২৩.০৬.২০১৪

২৩ জুন ২০১৪ | অর্থনীতি | ২০:৪৩:০২ | ১৪:৪৮:৪৫

অর্থনীতি

 >  Last ›