A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Only variable references should be returned by reference

Filename: core/Common.php

Line Number: 257

মুদ্রা পাচার রোধের পদক্ষেপে স্বীকৃতি পেল বাংলাদেশ | Probe News

প্রোব২৪, ডেস্ক:  মুদ্রা পাচার ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধের পদক্ষেপ নেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যে অগ্রগতি দেখিয়েছে, তাকে স্বাগত জানিয়েছে আন্তঃসরকার সংস্থা ফাইন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্কফোর্স এফএটিএফ। পাশাপাশি এই পদক্ষেপকে স্বীকৃতিও দেয় সংস্থাটি।

এর ফলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বাংলাদেশের লেনদেন এফএটিএফর পর্যবেক্ষণের আওতায় থাকবে না। সেইসঙ্গে আমদানি ও রপ্তানি বাণিজ্যে বাংলাদেশের খরচও কমবে। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্ণর বলেন,এতোদিন রপ্তানি আয়ের বিপরীতে এক শতাংশ হারে এলসি কনফারমেশন চার্জ দিতে হয়েছে। এখন এটা দশমিক ৫ শতাংশ দিলেই চলবে।”

গেলো ১৩ই ফেব্রুয়ারি প্যারিসে টাস্কফোর্সের সভায় বলা হয়, “এ দুটি ক্ষেত্রে ২০১০ সালে কৌশলগত যে ঘাটতি চিহ্নিত করা হয়েছিল, তা মিটিয়ে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে একটি আইনি ও নিয়ন্ত্রণমূলক কাঠামো তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।”

এদিকে সোমবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, এই স্বীকৃতির ফলে মুদ্রা পাচার ও সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন প্রতিরোধ সম্পর্কিত জাতিসংঘের বিভিন্ন কনভেনশন-প্রোটোকল, নিরাপত্তা পরিষদের বিভিন্ন রেজুলেশন ও এফএটিএফর মানদন্ড পরিপূর্ণভাবে বাস্তবায়নকারী দেশের মর্যাদা অর্জন করল বাংলাদেশ।


৩৪টি উন্নত দেশ ও দুটি আঞ্চলিক সংস্থা নিয়ে গঠিত একটি আন্তরাষ্ট্রীয় সংস্থা এফএটিএফ। মুদ্রা পাচার ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধে আন্তর্জাতিক মানদন্ড নির্ধারণ ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে কাজ করে সংস্থাটি। এফএটিএফ-এর ‘গ্রে-লিস্ট’ থেকে বেরিয়ে আসতে গত সাড়ে তিন বছরে বাংলাদেশ সরকার মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন প্রণয়ন, সন্ত্রাস প্রতিরোধ আইন সংশোধন, অপরাধ সম্পর্কিত পারস্পরিক সহায়তা আইন প্রণয়ন এবং এসব আইনের বিধিমালা তৈরি করেছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

প্রোব২৪/মম/ঢাকা/১৭.০২.২০১৪

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ | অর্থনীতি | ১৮:৫৮:৩৮ | ২৩:৩৯:৩২

অর্থনীতি

 >  Last ›